দিল্লিতে বিধ্বংসী আগুনে মৃত অন্তত ২৭, হাসপাতালে ভর্তি ৮ জন  

0

নয়াদিল্লি: শুক্রবার বিকেলে পশ্চিম দিল্লিতে একটি চারতলা ভবনে আগুন লেগে বহু লোক মারা গিয়েছেন। এখনও পর্যন্ত ২৭ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে এবং ৮ জনকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে বলে দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন বলেছেন।

মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে পুলিশের আশঙ্কা কারণ একটা তলে দমকলকর্মীরা এখনও ঢুকতেই পারেননি। দমকল আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছেন। বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর কর্মীরা ঘটনাস্থলে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছেন।

মুন্ডকা মেট্রো স্টেশনের কাছের ওই ভবনটি একটি অফিসবাড়ি। দমকলের ৩০টি ইঞ্জিন এখনও ঘটনাস্থলে রয়েছে এবং বেশ কিছু অ্যাম্বুলেন্স মজুদ রাখা হয়েছে। ওই বাড়ি থেকে অন্ততপক্ষে ৬০-৭০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

দমকল আধিকারিকরা জানিয়েছেন, বিকেল ৪টে ৪০ নাগাদ তাঁরা আগুন লাগার খবর পান। খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ২০টি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়। পরে আরও ইঞ্জিন যায়।

দিল্লির ডেপুটি চিফ ফায়ার অফিসার সুনীল চৌধুরী জানান, “যে ভবনে আগুন লাগে সেটি একটি সিসিটিভি ক্যামেরার অফিস ও গুদাম। আমরা গোড়া থেকেই তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছি। স্থানীয় মানুষজন বলছেন, বহু লোক ভিতরে আটকা পড়েছেন।”

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই দুর্ঘটনায় গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি টুইট করে বলেছেন, “দিল্লিতে এক মর্মান্তিক আগুনে বহু মানুষের জীবনহানি হওয়ায় গভীর ভাবে ব্যথিত। আমার চিন্তাভাবনা এখন সবই ওই স্বজনহারা পরিবারগুলিকে কেন্দ্র করে। জখম যাতে দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠেন সেটাই কামনা করছি।”

মৃতদের পরিবারদের জন্য মাথাপিছু ২ লক্ষ টাকা করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। আহতরা পাবেন ৫০ হাজার টাকা করে।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালও শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি টুইট করে বলেছেন, “এই মর্মান্তিক ঘটনার খবর পেয়ে খুব দুঃখ ও ব্যথিত বোধ করছি। আমি আধিকারিকদের সঙ্গে অবিরাম যোগাযোগ রেখে চলেছি। আগুন নেভানোর জন্য ও জীবন বাঁচানোর আমাদের সাহসী দমকলকর্মীরা আপ্রাণ চেষ্টা করছেন। ঈশ্বর সবাইকে আশীর্বাদ করুন।”

রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী প্রমুখ এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন