Prasad

ওয়েবডেস্ক: প্রসাদে না কি আগে থেকেই মিলেছিল কেরোসিন জাতীয় কোনো তরলের গন্ধ। তবুও বিশ্বাসে ভর করে তা ভক্তরা খেয়ে নেন। যার ফলশ্রুতিতে বেঘোরে প্রাণ গেল দুই নাবালক-সহ পাঁচ জনের। অসুস্থতার শিকার হয়ে চিকিৎসাধীন আরও প্রায় ৮০ জন।

ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ-পশ্চিম কর্নাটকের চামারাজনগরের সুলিভাদিগ্রামের একটি মন্দিরে। সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, মৃতের তালিকায় রয়েছে দুই নাবালক-সহ পাঁচ জন। গোপীআম্মা (৫৫), পাপান্না (৫০), সান্থা (২০), অনিতা (১৪) এবং অনিল (১২) নামের এই পাঁচ জনকে চিহ্নিত করেছে পুলিশ।

এই নির্মম ঘটনার পর জেলা স্বাস্থ্য আধিকারিক জানিয়েছেন, প্রসাদের মধ্যে কোনো বিষাক্ত পদার্থের মিশ্রণের ফলেই এমন মর্মান্তিক ঘটনার শিকার হয়েছেন মৃত এবং অসুস্থরা।

তিনি জানান, “আমরা ওই প্রসাদের নমুনা সংগ্রহ করেছি। তা পরীক্ষার জন্য ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়েছে। ফলে সেখান থেকে রিপোর্ট হাতে আসার পরই পুরো বিষয়টা স্পষ্ট হবে”।

পুলিশ জানিয়েছে, সুলিভাদিগ্রামে মারাম্মা মন্দির স্থাপনের জন্য গত বৃহস্পতিবার ভিতপুজো হয়। ওই অনুষ্ঠানের পরই প্রসাদ বিতরণ করা হয়। সেই প্রসাদ খাওয়ার পরই বমি এবং পেটের যন্ত্রণার শুরু। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয়রা আক্রান্তদের কাছের একটি হাসপাতালে নিয়ে যান।

একই সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ এবং জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা। আসে প্রাথমিক চিকিৎসক দল।

আরও পড়ুন: লোকসানের কারণে বন্ধ হওয়ার মুখে ঝাড়গ্রামের কয়েক’শ বালি খাদান

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামী জানিয়েছেন, “প্রথম পর্যায়ে অসুস্থ ব্যক্তিদের যাবতীয় চিকিৎসার ভার সরকারি ভাবে তত্তাবধান করা হচ্ছে। পাশাপাশি পুলিশ-প্রশাসন ঘটনার উৎস অনুসন্ধানের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here