গুজরাতে ভোটের আগে চমকে দেওয়া তথ্য! ১৬৩ কোটির নির্বাচনী বন্ডে বিজেপি একাই পেয়েছে ৯৪ শতাংশ

0

অমদাবাদ: গত পাঁচ বছর ধরে নির্বাচনী বন্ডের (electoral bond) মাধ্যমে রাজনৈতিক তহবিল নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য। অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্রেটিক রিফর্মস (ADR)-এর একটি প্রতিবেদনে দেখা যাচ্ছে, নির্বাচনী বন্ডের মাধ্যমে গুজরাতে রাজনৈতিক দলগুলির প্রাপ্ত তহবিলের ৯৪ শতাংশই পেয়েছে বিজেপি।

কোনো ব্যক্তি বা কর্পোরেট সংস্থা রাজনৈতিক দলগুলিকে চাঁদা দিতে চাইলে, তিনি বন্ড কিনে দলের হাতে তুলে দেন। রাজনৈতিক দলগুলিকে নির্দিষ্ট অ্যাকাউন্টে সেই বন্ড ভাঙিয়ে নিতে হয়। এডিআর রিপোর্ট বলছে, ২০১৮ সালের মার্চ থেকে ২০২২ সালের অক্টোবর পর্যন্ত মোট ১৭৪ কোটি টাকা অনুদান পেয়েছে গুজরাতের রাজনৈতিক দলগুলি।

বলে রাখা ভালো, দুই দফায় বিধানসভা ভোটগ্রহণ হবে গুজরাতে। প্রথম দফা ১ ডিসেম্বর এবং দ্বিতীয় ৫ ডিসেম্বর। ভোটগণনা ৮ ডিসেম্বর। প্রথম দফার ভোটের বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছে ৫ নভেম্বর এবং দ্বিতীয় দফার ১০ নভেম্বর। মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ছিল যথাক্রমে ১৪ নভেম্বর এবং ১৭ নভেম্বর। মনোনয়ন স্ক্রুটিনি ১৫ নভেম্বর এবং ১৮ নভেম্বর। মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ছিল ১৭ নভেম্বর এবং ২১ নভেম্বর।

কার ভাঁড়ারে কত

রিপোর্টে বলা হয়েছে, মোট ১৭৪ কোটি টাকার মধ্যে বিজেপি একাই পেয়েছে ১৬৩ কোটি টাকা। কংগ্রেস ১০.৫ কোটি। এ ছাড়া অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি পেয়েছে ৩২ লক্ষ টাকা। বাকি ২০ লক্ষ টাকা পেয়েছে অন্য রাজনৈতিক দলগুলি।

মোট ১ হাজার ৫৭১টি অনুদান জমা পড়েছিল। এগুলির মধ্যে ১ হাজার ৫১৯টি পেয়েছে বিজেপি। উল্লেখযোগ্য ভাবে, ২০১৭-১৮ সালে জাতীয় স্তরে মোট নির্বাচনী বন্ডের ৬৫ শতাংশ পেয়েছিল বিজেপি।

প্রসঙ্গত, ভোটে কালো টাকার খেলা বন্ধ করার হুঙ্কার দিয়ে নির্বাচনী বন্ড চালু করেছিল কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকার। তবে এ ভাবে অনুদান আদায় নিয়ে বিরোধী দল এবং নির্বাচনী প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতা নিয়ে আন্দোলনকারীরা অভিযোগও বিস্তর।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন