Atal Bihari Vajpayee

নয়াদিল্লি: বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে পাঁচটার বুলেটিনে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারীর জীবনাবসানের কথা জানাল দিল্লির এইমস। গত ১১ জুন থেকে তিনি কিডনি, বুক এবং মূত্রনালীতে সংক্রমণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।

এইমস জানায়, এ দিন বিকাল ৫.০৫টায় তিনি প্রয়াত হয়েছেন। উল্লেখ্য, ২৫ ডিসেম্বর, ১৯২৪-এ গোয়ালিয়রে জন্মগ্রহণ করেন বাজপেয়ী।

হাসপাতালের তরফে বৃহস্পতিবার সকালে জানানো হয়, তাঁর শারীরিক অবস্থা সংকটজনক। লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে তাঁকে। এ দিন তাঁকে হাসপাতালে দেখতে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী-সহ একাধিক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিল্লি যাওয়ার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। কংগ্রেস সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালরাও তাঁকে দেখতে যান।

বুধবার তাঁকে হাসপাতালে দেখতে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৃহস্পতিবার সকালে তাঁকে দেখতে যান উপ-রাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নায়ডু এবং বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। এ দিনই হাসপাতাল সূত্রে খবর পাওয়া যায়, শারীরিক অবস্থার অবনতির জন্য তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে। এইমস-এর তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “দুর্ভাগ্যজনক ভাবে গত ২৪ ঘণ্টায় তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। তাঁর বর্তমান অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁকে লাইফ সাপোর্ট সিস্টেমে রাখা হয়েছে।”

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাজপেয়ীকে দেখতে বৃহস্পতিবারই দিল্লি যাচ্ছেন। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীরও বাজপেয়ীকে দেখতে এ দিনই এইমস-এ যাওয়ার কথা।

গত ১১ আগস্ট এইমস-এ বাজপেয়ীকে দেখতে যান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ ও অমিত শাহ। বুধবার সেখানে যান কেন্দ্রীয় বস্ত্রমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি।


আরও পড়ুন: আয়ুষ্মান ভারত স্বাস্থ্যবিমার সুবিধা আপনি পাবেন কি? তালিকায় মিলিয়ে দেখে নিন


উল্লেখ্য, গত ১১ জুন কিডনির ট্র্যাক্ট ইনফেকশন, শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট এবং মূত্রনালির সমস্যার জন্য বাজপেয়ীকে এইমস-এ ভর্তি করা হয়। ৯৩ বছরের বাজপেয়ী বহু দিন থেকেই ডায়াবেটিসের রোগী। ২০০৯ সালে তাঁর স্ট্রোক হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন