দিল্লির জমায়েতের কারণে করোনার ঝুঁকি রয়েছে অন্তত ৯,০০০ জনের, চাঞ্চল্যকর দাবি কেন্দ্রের

খবর অনলাইনডেস্ক: দিল্লির নিজামুদ্দিনের (Nizamuddin) ওই জমায়েতের কারণে অন্তত ৯ হাজার মানুষের করোনাভাইরাসের (Coronavirus) ঝুঁকি রয়েছে। এমনই দাবি করেছে কেন্দ্র। তবে যত দিন এগোবে, সেই সংখ্যাটা আরও বাড়তে পারে বলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক (Ministry of Home Affairs) সূত্রে জানানো হয়েছে।

ওই জমায়েতের অংশগ্রহণকারী ৭,৬৮৮ জন ভারতীয় এবং ১,৩০৬ জন বিদেশকে চিহ্নিত করেছে বিভিন্ন রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল।

১ এপ্রিল পর্যন্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছে যে খবর রয়েছে তাতে জানা গিয়েছে যে ১,০৫১ জন বিদেশিকে কোয়ারান্টাইনে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এঁদের মধ্যে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে।

কেন্দ্র জানাচ্ছে, ২৩টি রাজ্য আর চারটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল দিনরাত এক করে তবলিগি জমাতের স্থানীয় কর্মীদের খুঁজে বের করে কোয়ারান্টাইনে (Quarantine) পাঠানোর ব্যবস্থা করেছে। এই প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর দফতরের এক আধিকারিক এনডিটিভিকে বলেন, “চিহ্নিতকরণের কাজ এখনও চলছে। তবে বেশির ভাগ বিদেশি এবং ভারতীয় কর্মীকেই আমরা খুঁজে বের করেছি।”

দিল্লির জমায়েতে হাজির হয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের ৭১ জন। এঁদের মধ্যে ৫৪ জনকে খুঁজে কোয়রান্টাইনে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বুধবার রাত পর্যন্ত ভারতে কোভিড ১৯-এ (Covid 19) আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৮৩৪। এঁদের মধ্যে চারশো জনই ওই জমায়েতের সঙ্গে সম্পর্কিত। সব থেকে বেশি আক্রান্ত তামিলনাড়ুতে। সেখানে জমায়েতে যোগ দেওয়া ১৯০ জন কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত।

এর পরেই রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ (৭১), দিল্লি (৫৩), তেলঙ্গানা (২৮), অসম (১৩), মহারাষ্ট্র (১২), আন্দামান (১০), জম্মু-কাশ্মীর (৬) এবং পুদুচেরি ও গোয়া (দু’জন করে)।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের কারণে মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকেই সতর্ক ছিল ভারত। লকডাউন (Lockdown) ঘোষণা না করা হলেও বিভিন্ন জায়গায় জমায়েত এড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হচ্ছিল। করোনার কথা মাথায় রেখেই এ বছর বড়ো করে দোল বা হোলি উৎসব হয়নি অনেক জায়গায়।

কিন্তু তার পরেই এই জমায়েত হয় দিল্লির নিজামুদ্দিনে। জমায়েতের পর অনেকেই ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে চলে যাওয়ার পরে দিল্লির ওই বাড়িতে রয়ে গিয়েছিলেন ২,৩৩৫ জন। দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন জানিয়েছেন, বুধবার ওই বাড়ি থেকে সবাইকে বের করে আনা হয়েছে। যাঁদের করোনার উপসর্গ রয়েছে, তাঁদের হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে আর বাকিদের কোয়ারান্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.