journalist attack

রায়পুর: গৌরী লঙ্কেশ, শান্তনু ভৌমিক, কেজে সিংহ। সাংবাদিক হত্যার তালিকাটা ক্রমেই বড়ো হচ্ছে। এই তালিকায় আরও কয়েক জন যোগ হতে পারেন। সাংবাদিকদের হত্যা করার চাঞ্চল্যকর একটি অডিও ক্লিপ ফাঁস হয়েছে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

ঘটনাটি ছত্তীসগঢ়ের মাওবাদী অধ্যুষিত অঞ্চল বস্তারের। এই সংক্রান্ত তিরিশ সেকেন্ডের একটি অডিও ক্লিপ প্রকাশ করেছে বিজাপুর প্রেস ক্লাব। সেই ক্লিপে শোনা যাচ্ছে একজন পুরুষ কণ্ঠ, সে তার অধস্তনদের নির্দেশ দিচ্ছে। সেই নির্দেশে বলা হচ্ছে মাওবাদী অধ্যুষিত অঞ্চলে যে সাংবাদিক খবর সংগ্রহ করতে আসবে তাকে গুলি করে মেরে ফেলা হবে।

অডিও ক্লিপে বলা হচ্ছে, “হাই আলার্ট মে রেহনা, আউর উধার সে কোই পত্রকার দিখে জো নকশালিও কা কভার মে যায়, উসে মার দেনা। (হাই অ্যার্লাটে থেকো, আর মাওবাদীদের খবর সংগ্রহ করতে যাচ্ছে, এমন কোনো সাংবাদিক নজরে পড়লে, তাকে মেরে দিও)।

নিরাপত্তাবাহিনীর মধ্যে থেকেই এই অডিও ক্লিপের সূত্রপাত, এমনই ধারণা বিজাপুর প্রেস ক্লাবের। মাওবাদী অধ্যুষিত অঞ্চলের খবর সংগ্রহ করতে যাওয়া সাংবাদিকদের বিপদ দু’দিকেই এমনই মত প্রেস ক্লাবের সদস্যদের। নিরাপত্তাবাহিনী এবং মাওবাদী, দু’দিক থেকেই তাদের হুমকি দেওয়া হয়।

ছত্তীসগঢ় পুলিশের স্পেশাল ডিরেক্টর জেনারেল জানিয়েছেন, এই ঘটনার তদন্তের দায়িত্বভার বস্তারের ইন্সপেক্টর জেনারেল বিবেকানন্দ সিনহার ওপর দেওয়া হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে যে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে সে আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে মাওবাদীদের হাতে নিহত হন সাংবাদিক সাই রেড্ডী। তবে পুলিশ এবং মাওবাদী, দু’দিক থেকেই হুমকি দেওয়া হচ্ছিল তাঁকে। মাওবাদীদের সঙ্গে যোগসাজশের অভিযোগে তাঁকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। অন্য দিকে নিরাপত্তাবাহিনীর চর সন্দেহে তাঁকে খুন করে মাওবাদীরা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here