Supreme Court
সুপ্রিম কোর্ট। প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: শনিবার দীর্ঘ দশকের অযোধ্যা জমি বিরোধের রায় ঘোষণা করেছে সুপ্রিম কোর্ট। বিতর্কিত জমির সম্পূর্ণ অংশ হিন্দুদের হাতে দিয়ে মুসলমানদের জন্য বিকল্প মসজিদ গড়ার ৫ একর জমি বরাদ্দের নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত। এই রায়ের পরই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করলেন বিজেপির ‘লৌহপুরুষ’ হিসাবে খ্যাত প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী লালকৃষ্ণ আডবাণী।

বিজেপির প্রাক্তন সর্বভারতীয় সভাপতি আডবাণী বলেন, “আমি আজ অযোধ্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চের দেওয়া ঐতিহাসিক রায়কে আন্তরিকভাবে স্বাগত জানাতে আমার সমস্ত দেশবাসীর সঙ্গে যোগ দিয়েছি”।

আডবাণী এ দিন অযোধ্যায় রামমন্দির গড়ার আন্দোলনকে ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের পর সব থেকে বড়ো আন্দোলন হিসাবে ব্যাখ্যা করেন। তিনি বলেন, “এটি আমার জন্য একটি বিশেষ মুহূর্ত, কারণ সর্বশক্তিমান ঈশ্বর আমাকে গণআন্দোলনে আমার নিজের বিনীত অবদান রাখার সুযোগ দিয়েছিলেন, ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের পর থেকে বৃহত্তম এই গণআন্দোলন। সুপ্রিম কোর্ট আজ যে রায় দিয়েছে, তার লক্ষ্য নিয়েই চলেছিল এই আন্দোলন”।

উল্লেখ্য, অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের পথ সুগম করে সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া এই রায় এল তাঁর ৯২তম জন্মদিন উদযাপনের ঠিক একদিন পরে।

প্রায় তিন দশক আগে, ১৯৯০ সালের ২৩ অক্টোবর স্বল্প-পরিচিত সমস্তিপুরে বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লালুপ্রসাদ যাদবের নির্দেশে তাঁর ‘রথ’টি আটকে দেওয়া হয়েছিল। অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের দাবি নিয়েই ওই যাত্রা শুরু হয়েছিল।

তাঁর ‘রাম রথযাত্রা’র মধ্য দিয়ে আডবাণী হিন্দুদের উজ্জীবিত করার প্রচেষ্টা চালিয়েছিলেন। লালুপ্রসাদ প্রশাসনের হাতে তাঁর গ্রেফতারির ঘটনা আজও দেশের ইতিহাসে একটি উল্লেখ্যণীয় অধ্যায় হিসাবে চিহ্নিত হয়ে রয়েছে। মণ্ডল-মন্দিরের রাজনীতির জন্ম দেওয়া, এবং সার্বিক ভাবে সমাজে ছড়িয়ে দেওয়ায় গুরুত্ব ভূমিকা নেয় ওই ঘটনা।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন