পুনে: তাঁর সংস্থা পতঞ্জলির জন্য বহুজাতিক সংস্থাগুলির রাতের ঘুম উড়ে গেছে। পুনেতে এক অনুষ্ঠানে দাবি করলেন যোগগুরু রামদেব। “কোনো বহুজাতিক সংস্থা এখানে কাউকে টাকা দিতে আসে না। ওদের ভারতের প্রতি কোনো ভালবাসা নেই। ওরা এখানে লাভ করতে আসে। ১ টাকা নিয়ে আসে আর ১০০টাকা ঘরে নিয়ে যায়। পতঞ্জলির জন্য ওদের রাতের ঘুম উড়ে গেছে” বলেন রামদেব।

যোগগুরুর মতে, ভারতের কোনো বহুজাতিক সংস্থাকে প্রয়োজন নেই। ভারত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির দিক থেকে স্বনির্ভর,অভাব কেবল পুঁজি আর সম্পদের।

“প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগের খোঁজে মোদীজি সারা দুনিয়া ঘুরে বেড়িয়েছেন। কত টাকা এসেছে, তা সবাই জানে। শেষ পর্যন্ত ডিমনিটাইজেশন করে তাঁকে দেশ থেকেই টাকা বের করতে হল”, হাল্কা চালে বলেন যোগগুরু।

রামদেব বলেন, তিনি পতঞ্জলিকে বাংলাদেশ এবং আফ্রিকার দেশগুলিতে পৌঁছে দিচ্ছেন, একদিন এই সংস্থাকে তিনি পাকিস্তানেও পৌঁছে দেবেন। 

“লোকে বলে, অন্য দেশে আমায় বাধার মুখে পড়তে হবে। আমি (পতঞ্জলি সংস্থা) নেপালে রয়েছি, বাংলাদেশ এবং আফ্রিকার দেশগুলিতেও যাচ্ছি। পাকিস্তানেও একদিন যাব। এইসব দেশগুলি থেকে যা লাভ হবে, তা সবই ওই দেশগুলির গরিবদের কল্যাণে ব্যয় করা হবে। আমি যদি সেটা করি, তাহলে কেন বাধার মুখে পড়ব”? প্রশ্ন বাবার। 

পতঞ্জলির অর্থে ভারতে দুনিয়ার সবচেয়ে বড়ো বিশ্ববিদ্যালয় ভারতে বানাবেন বলেও এদিন ঘোষণা করেন রামদেব।

অর্থাৎ অচিরেই হয়তো শিক্ষা-ব্যবসাতেও ঢুকে পড়তে চলেছে পতঞ্জলি।

 

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here