navjyot singh sidhu
বিতর্কে সিধু। ছবি: এনডিটিভি

ওয়েবডেস্ক: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের শপথের অনুষ্ঠানে পাক সেনাপ্রধান কামার বাজওয়াকে আলিঙ্গন এবং পাক অধিকৃত কাশ্মীরের প্রেসিডেন্টের পাশে নভজ্যোত সিংহ সিধুর বসা নিয়ে বিতর্ক কম হয়নি। সেই বিতর্কে ইন্ধন দিল বজরং দল। যদিও বিতর্ক কমাতে পালটা জবাব দিলেন প্রাক্তন এই ক্রিকেটার।

পঞ্জাবের বর্তমান মন্ত্রী সিধুর শিরশ্ছেদ করলে পাঁচ লক্ষ টাকার পুরস্কার দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করেছে বজরং দল। একটি ভিডিও বার্তায় এই আবেদন করেছেন বজরং দলের আগরা শাখার সভাপতি সঞ্জয় জাট। এ দিকে ইমরান খানের অনুষ্ঠানে সিধুর ভূমিকা নিয়ে অসন্তুষ্ট তাঁর নিজের দল কংগ্রেসও। সিধুর কাজকে সমর্থন করেননি পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংহও।

মঙ্গলবার অবশ্য সাংবাদিক সম্মেলন করে যাবতীয় সমালোচনার জবাব ছক্কা হাঁকিয়েই দেওয়ার চেষ্টা করলেন সিধু। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের প্রেসিডেন্ট মাসুদ খানের পাশে বসার ব্যাপারে সিধু বলেন, শেষ মুহূর্তে তাঁর আসন বদলানো হয়। তিনি বলেন, “শেষ মুহূর্তে আমার আসন বদলে দেওয়া হয়। আমাকে বলা হয় সামনের সারিতে গিয়ে বসতে। আমাকে যেখানে বসতে বলবে আমি তো সেখানেই বসব।”

আরও পড়ুন কর্নাটকে বন্যা দুর্গতদের দিকে বিস্কুট ছুড়ে বিতর্ক, দাদারই পাশে দাঁড়ালেন কুমারস্বামী

২০১৫ সালে সূচিতে না থাকা সত্বেও লাহৌরে আসেন নরেন্দ্র মোদী। নওয়াজ শরিফের সঙ্গে আলিঙ্গনও করেন তিনি। এই প্রসঙ্গ টেনে এনে সিধু বলেন, “কই প্রধানমন্ত্রীকে তো কেউ কোনো প্রশ্ন করছেন না।”

অন্য দিকে আবেগতাড়িত হয়ে পাকিস্তানের সেনাপ্রধানকে তিনি আলিঙ্গন করেন বলে জানান সিধু। তিনি বলেন, “ঐতিহাসিক গুরুদ্বার করতারপুর সাহেব খুলে দেওয়া হবে এই কথা আমায় বলেন পাক সেনাপ্রধান। এর পর আমি আবেগতাড়িত হয়ে তাঁকে জড়িয়ে ধরি।”

তবে সিধু আত্মপক্ষ সমর্থন করলেও এই বিতর্কের আগুন এখনই নিভে যাবে বলে মনে হয় না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন