bank

ওয়েবডেস্ক: ব্যাঙ্ক যেন তার প্রত্যেক গ্রাহককে নিজের অ্যাকাউন্টের সঙ্গে মোবাইল নম্বর যোগ করার ব্যাপারে সচেতন করে। যদি থাকে, তা হলে যেন ই-মেল আইডিটাও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে সংযুক্ত করা হয়। সে ক্ষেত্রে আর্থিক লেনদেনের ব্যাপারটা ব্যাঙ্ক এসএমএস মারফত গ্রাহককে জানাতে পারবে। দুই পক্ষের কারও তরফেই অস্বচ্ছতা এবং অজ্ঞানতার জায়গা থাকবে না!

এই মর্মে গত বছরেই একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক। তার পরে অনেক গ্রাহক-ই নিজের মোবাইল নম্বর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে যুক্ত করেছেন। এবং কখন টাকা ঢুকল, কখন টাকা কাটা গেল- সে সব খবর যথা সময়ে এসএমএস-এ পেয়েও যাচ্ছেন।

কিন্তু এই কাজ করার জন্য ব্যাঙ্ক যে বেআইনি ভাবে টাকা কেটে নিচ্ছে, সে খবর আমরা কতজন জানি?

সম্প্রতি এই ব্যাপারটা সম্পর্কে জনতাকে সচেতন করার জন্য ব্যাঙ্কিং কোডস অ্যান্ড স্যান্ডার্ড বোর্ডস অব ইন্ডিয়া-র তরফে একটি সমীক্ষার রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে। যা জানাচ্ছে, এসএমএস-এর মাধ্যমে ব্যাঙ্কের এই লেনদেন-সংক্রান্ত খবর দেওয়ার পরিষেবা আরবিআই বা রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার নির্দেশ মোতাবেকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে করা উচিত। কিন্তু এসবিআই বা স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া এবং আইসিআইসিআই ব্যাঙ্ক এই নির্দেশ লঙ্ঘন করেছে এবং করেই চলেছে। গ্রাহককে এই এসএমএস পরিষেবা দেওয়ার পরিবর্তে একটা টাকা কেটে নিচ্ছে তারা।

এটা ঠিক যে সেই টাকার অঙ্কটা খুবই কম! মাসে মাত্র ১৫ টাকা বা কাছাকাছি একটা অঙ্ক! এতে গ্রাহকের সঞ্চয়ে টান পড়ছে না ঠিকই, কিন্তু ব্যাঙ্কের ঘরে বছর শেষে এক বিশাল মুনাফা জমা পড়ছে।

“আরবিআই যে নির্দেশিকা মেনে কাজ করতে বলে, এটা তার আওতায় পড়ছে না। ব্যাপারটাকে আইন লঙ্ঘন ছাড়া আর কিছুই বলা যায় না”, জানিয়েছেন ব্যাঙ্কিং কোডস অ্যান্ড স্যান্ডার্ড বোর্ডস অব ইন্ডিয়া-র চেয়ারম্যান এ সি মহাজন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here