স্বস্তির খবর! মাত্র দুটি রাজ্য বাদে ভারতের সব প্রান্তেই কমেছে করোনার সাপ্তাহিক সংক্রমণ

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: এই মুহূর্তে ভারতের দুটো রাজ্য এমন রয়েছে যেখানে সাপ্তাহিক সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী। কিন্তু দেশের বাকি অঞ্চলে সাপ্তাহিক সংক্রমণ এখনও কমতির দিকে। ফলে, দেশে করোনার তৃতীয় ঢেউ শুরু হচ্ছে এমন দাবি করা এখনও পর্যন্ত এক্কেবারেই অমূলক।

যে দুটি রাজ্যে সাপ্তাহিক সংক্রমণ বেড়েছে, সেগুলি হল কেরল এবং মিজোরাম। কেরলে গত এক সপ্তাহের সংক্রমণ, তার আগের সপ্তাহের থেকে ৫২.৭ শতাংশ বেড়েছে। আর অন্যদিকে মিজোরামে বেড়েছে ৬৩ শতাংশ।

তবে মিজোরামে দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা যে হেতু কম, তাই তার প্রভাব ভারতের সামগ্রিক করোনাতথ্যে পড়ছে না, যেটা পড়ছে কেরলের ক্ষেত্রে। তবে এর বাইরে দেশের সব প্রান্তেই পরিস্থিতি অত্যন্ত ভালো। মহারাষ্ট্রে সাপ্তাহিক সংক্রমণ কমেছে ১৫.২ শতাংশ, কর্নাটকে ১৯ শতাংশ এবং তামিলনাড়ুতে ১৮.৩ শতাংশ। অন্ধ্রপ্রদেশে সংক্রমণ ৯.৪ শতাংশ কমেছে।

উল্লেখ্য, কেরল বাদে বর্তমানে মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, কর্নাটক এবং অন্ধ্রপ্রদেশেই দৈনিক সংক্রমণ চার সংখ্যায় থাকছে।

পশ্চিমবঙ্গে গত দেড় মাস ধরে সংক্রমণ কার্যত এক জায়গায় ঘোরাফেরা করছে। কখনও সে পাঁচশোর ঘরে নেমে যাচ্ছে তো কখনও সে উঠছে সাতশোর ঘরে। তবুও এ রাজ্যের সাপ্তাহিক সংক্রমণ কমেছে। গত এক সপ্তাহে রাজ্যের সংক্রমণ, তার আগের সপ্তাহের তুলনায় কমেছে ২ শতাংশ।

দিল্লিতে এখন সংক্রমণ হার ০.০৫ শতাংশের আশেপাশে ঘোরাফেরা করছে। বোঝাই যাচ্ছে রাজধানীতে সংক্রমণ এখন তলানিতে। এর মধ্যেও দিল্লির সাপ্তাহিক সংক্রমণ কমেছে সাড়ে ১৭ শতাংশ। যে হিমাচল প্রদেশে কিছু দিন আগেই সংক্রমণ বেড়ে যাচ্ছে বলে হইচই পড়ে যাচ্ছিল সেখানে সাপ্তাহিক সংক্রমণ কমেছে ৩২.৬ শতাংশ।

বোঝাই যাচ্ছে ভারতের বেশিরভাগ অঞ্চলেই পরিস্থিতি এখন অত্যন্ত ভালো। কিন্তু কেরলের প্রভাব পড়ছে দেশের সামগ্রিক চিত্রে। আর সে কারণেই দেশে সাপ্তাহিক সংক্রমণ ২২ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে।

আরও পড়তে পারেন

বায়ুদূষণের কারণে উত্তর ভারতের বাসিন্দাদের আয়ু কমে যেতে পারে ন’বছর, দাবি রিপোর্টে

টেস্ট বাড়তেই সাতশোর কাছাকাছি পশ্চিমবঙ্গের দৈনিক সংক্রমণ, কলকাতায় ফের আক্রান্ত শতাধিক

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন