কলকাতা: সোদপুরের তাপস কিংবা হিন্দমোটরের অভিষেক, তিরিশের ঘরেও পৌঁছোয়নি ওঁদের বয়স। ওঁরা কিন্তু দিব্যি পৌঁছে গেছেন মাউন্ট আনেতোর শিখরে। স্পেনের পিরানিজ পর্বতমালার সর্বোচ্চ শৃঙ্গ জয় করার রেকর্ড খুব সম্ভবত এর আগে কোনো ভারতীয়রই নেই।

স্পেনের তৃতীয় উচ্চতম পর্বত মাউন্ট আনেতো। উচ্চতা সাড়ে তিন হাজার মিটার বা সাড়ে ১১ হাজার ফুটের কম হলেও শৃঙ্গ জয়ের প্রতিটা ধাপেই ছিল প্রতিকূলতা। প্রধান বাধা ছিল আবহাওয়া। ঘণ্টায় ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে বইতে থাকা হাওয়াকে তোয়াক্কা না করে এগিয়ে যাওয়া খুব সহজ ব্যাপার নয়। আর এটাকেই চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছিলেন ২৮ বছরের তাপস পাল আর উনত্রিশের অভিষেক দাস।

মাউন্টেন মেডিসিনের ওপর এক মাসের একটা ডিপ্লোমা কোর্সে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করতেই স্পেনে পাড়ি দিয়েছিলেন বাংলার দুই তরুণ। সেখান থেকেই সুযোগ আসে ট্রেকিং-এর। বার্সিলোনা থেকে গাড়িতে প্রায় ৭০০ কিলোমিটার যাওয়ার পর ২৩ এপ্রিল শুরু হল আসল অভিযান। যাওয়ার পথে পেরোতে হয়েছে হিমবাহ গলা জলে পুষ্ট এসার নদী, মাহোমা গিরিখাত, মহম্মদ সেতু। ইসলামিক মিথ অনুযায়ী যে মাহোমা খাত আসলে নাকি স্বর্গের দ্বার।

মাউন্ট আনেতোর পথে প্রতিটা পদক্ষেপ ছিল খুব গুরুত্বপূর্ণ। ছোট কোনো ভুল সিদ্ধান্তও ডেকে আনতে পারত বিপদ। – ১৩ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রা, তার ওপর দুর্গম পথ। সব মিলিয়ে রোমহর্ষক এক অভিযান। এবং সব শেষে শৃঙ্গ জয়ের সাফল্য।

পর্বতারোহণের নেশায় নিজেদের কেরিয়ার বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি অভিষেক আর তাপসের। নিজেদের প্যাশনের জন্য সব কিছুই ছাড়তে রাজি তাঁরা। ভবিষ্যতে মাউন্টেন মেডিসিন নিয়ে আরও কিছু করতে চান এই দুই বঙ্গ তনয়। সম্প্রতি তাঁদের কোর্স চলাকালীন ভারতের পর্বতারোহণ এবং অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টস নিয়ে একটি লেকচারও দিয়েছেন ওঁরা। খবর অনলাইনের পক্ষ থেকে বাংলার দুই দামাল ছেলে অভিষেক আর তাপসের জন্য রইল আন্তরিক শুভেচ্ছা।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here