bharat bandh
বন্‌ধের সমর্থনে ওড়িশায় বামেদের বিক্ষোভ। ছবি: টুইটার (সিপিআইএম)

ওয়েবডেস্ক: কংগ্রেস, বাম এবং বিজেপি-বিরোধী বিভিন্ন দলের ডাকা ভারত বন্‌ধের মিশ্র প্রভাব পড়েছে দেশ জুড়ে। কিছু কিছু রাজ্যে বন্‌ধে ব্যাপক প্রভাব পড়েছে, তো কোথাও সে ভাবে প্রভাব পড়েনি। দেখে নিই পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও কোথায় কেমন প্রভাব পড়ল।

কেরল– প্রত্যাশামতোই বন্‌ধে ব্যাপক সাড়া কেরলে। শাসক এলডিএফ এবং বিরোধী ইউডিএফ দুই জোটই এই বন্‌ধের সমর্থক। রাজ্যে অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ। খোলেনি স্কুল-কলেজ। তবে বন্যাদুর্গত অঞ্চলগুলিকে এই বন্‌ধের আওতা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

কর্নাটক – বন্‌ধের ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। জোটসঙ্গী কংগ্রেসের ডাকা বন্‌ধকে সমর্থন করেছে জেডিএস। কংগ্রেসের দাবি অনেক অটো এবং ট্যাক্সি ইউনিয়ন এই বন্‌ধকে সমর্থন করেছে।

বিহার– মিশ্র প্রভাব। জায়গায় জায়গায় রেল অবরোধ করেছেন বন্‌ধের সমর্থকরা। পটনায় গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে।

অসম– বন্‌ধের ভালো সাড়া মিলেছে। রাস্তায় যানবাহন বিশেষ দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না। অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ।

মহারাষ্ট্র– কংগ্রেস, এনসিপির সঙ্গে একযোগে এই বন্‌ধে সমর্থন করছে রাজ ঠাকরের এমএনএস। মুম্বইয়ে প্রভাব পড়েছে ট্রেন চলাচলে। মুম্বইয়ের কিছু জায়গায় বন্ধ পেট্রোল পাম্প। দোকানপাট। শপিং মল বন্ধ। মেট্রো পরিষেবা বন্ধ করার চেষ্টা করেছিল এমএনএস।

দিল্লি– মিশ্র প্রভাব। অফিসকাছারি, স্কুল-কলেজ খোলা। রাজঘাটে বিক্ষোভ সমাবেশ কংগ্রেসের। সেই সমাবেশে যোগ দিয়েছে বিভিন্ন বিরোধী নেতা। রয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ এবং সনিয়া গান্ধীও। রয়েছে আপের নাতারাও।

ওড়িশা– নবীন পট্টনায়ক বন্‌ধকে সমর্থন না করলেও, বন্‌ধের ভালোই প্রভাব পড়েছে রাজ্যে। হাওড়া-ভুবনেশ্বর জনশতাব্দী এক্সপ্রেস-সহ বারোটি ট্রেন বাতিল করেছে ইস্টকোস্ট রেল।

তেলঙ্গানা-অন্ধ্রপ্রদেশ– বন্‌ধের মিশ্র প্রভাব। সকাল থেকে বাস চলাচল বন্ধ। অধিকাংশ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

উত্তরপ্রদেশ– বন্‌ধের মিশ্র প্রভাব। জায়গায় জায়গায় অবরোধ, বিক্ষোভে শামিল হয়েছেন সমাজবাদী পার্টি, বহুজন সমাজ পার্টি এবং কংগ্রেসের সমর্থকরা।

ঝাড়খণ্ড– মিশ্র প্রভাব পড়েছে। জোর করে বন্‌ধ সফল করার জন্য গ্রেফতার করা হয়েছে ৫৮ জন বন্‌ধ সমর্থককে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন