এ বার জরুরি ভিত্তিতে ‘কোভ্যাক্সিন’ ব্যবহারের ছাড়পত্র চাইল ভারত বায়োটেক

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ফাইজার, সেরামের পর এ বার জরুরি ভিত্তিতে কোভিড টিকা ব্যবহারের জন্য আবেদন করল ভারত বায়োটেক। সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি টিকা ‘কোভ্যাক্সিনে’ (Covaxin)-এর জন্য ড্রাগস কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়ার (ডিসিজিআই) কাছে আবেদন জানিয়েছে করেছে ভারত বায়োটেক (Bharat Biotech)।

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর) – ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজির (এনআইভি) সঙ্গে যৌথ ভাবে সেই সম্ভাব্য টিকা তৈরি করেছে ভারত বায়োটেক। আপাতত কলকাতা-সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল চলছে।

এর ট্রায়ালে ২৬ হাজার স্বেচ্ছাসেবক অংশগ্রহণ করছেন। গত বুধবার কলকাতায় কোভ্যাক্সিনের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের উদ্বোধন হয়। টিকা নেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

যদিও ‘কোভ্যাক্সিন’ নিয়ে আচমকা বিতর্কও তৈরি হয়ে গিয়েছে। পরীক্ষামূলক ভাবে এই টিকা নেওয়ার কয়েক দিনের মধ্যেই কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন হরিয়ানার মন্ত্রী অনিল ভিজ। এর ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে ভারত বায়োটেক বলে, “করোনাভাইরাস প্রতিরোধক ‘কোভ্যাক্সিন’-এর দু’টি ডোজ নেওয়ার পরেই তা কার্যকর হয়।”

তাদের দাবি, “এই টিকা অভীষ্ট ফলদানে সক্ষম হল কি না তা দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার ১৪ দিন পরে নিরূপণ করা যায়।” উল্লেখ্য, এই নিয়ে পর পর তিন দিন তিনটে টিকা-প্রস্তুতকারী সংস্থা ভারতে জরুরি ভিত্তিতে টিকা ব্যবহারের অনুমোদন চাইল।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

দেশে নতুন কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ১৫২ দিনে সর্বনিম্ন, সংক্রমণের হার কমিয়ে আরও বাড়ল সুস্থতা

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন