modi and amit

কলকাতা: গত বৃহস্পতিবার ১১টি রাজ্যের ১১টি বিধানসভা এবং চারটি লোকসভার নির্বাচনের ফলাফল দেখে যথেষ্ট হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছে বিজেপি-নেতৃত্বাধীন এনডিএ-র জোট শরিকরা। বেশ কয়েক মাস আগেই সরকারি ভাবে এনডিএ ছেড়েছে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নায়ডুর তেলুগু দেশম পার্টি। একই ভাবে সাম্প্রতিক উপনির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে প্রার্থী দিয়ে এনডিএ ছাড়ার মহড়া দিল শিবসেনা। আবার বিহার থেকেও বিজেপির বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন জো‌টসঙ্গী জেডি(ইউ) নেতৃত্ব। এমনকী সে রাজ্য থেকেই আরও এক জোট শরিক রাষ্ট্রীয় লোক সমতা পার্টির তরফে তীব্র ভাষায় সমালোচনা করা হল বিজেপির।

হাতে মাত্র বছরখানেক সময়, তারপরই দেশের সাধারণ নির্বাচন। ওই নির্বাচনকে পাখির চোখ করে বিজেপি-বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি যখন এক ছাতার তলায় আসার চেষ্টা করছে, তখন বিজেপির ক্রমশ দূরত্ব তৈরি হচ্ছে শাসক জোটের শরিক দলগুলির মধ্যে। উপনির্বাচনের ফল ঘোষণার পর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা সমতা পার্টির নেতা উপেন্দ্র কুশওয়া মন্তব্য করেন, বিজেপি সব সময়ই এনডিএ-র শরিকদের সঙ্গে বড়দার মতো আচরণ করে। কিন্তু সমস্ত দলকে একত্রিত করে জোটবদ্ধ লড়াইয়ে তাদের বরাবরই উদাসীনতা দেখা যায়।

আরও পড়ুন: খাদের কিনারে এসে দাঁড়াল লোকসভায় বিজেপির একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা

উপেন্দ্রর মতে, এটা কোনো গোপন বিষয় নয় যে বিজেপির বিরুদ্ধে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তবে বিজেপি যে ভাবে বড়দার মতো আচরণ এখনও চালিয়ে যাচ্ছে, তা মোটেই মানানসই নয়। উপেন্দ্র সরাসরি বিজেপির উচ্চ নেতৃত্বের উদ্দেশে বলেন, “এটা আমরা আশা করব সাম্প্রতিক পরিস্থিতি দেখে বিজেপি নিজের উপলব্ধি দিয়ে চিন্তাভাবনা বদলাবে। সমস্ত শরিকদের একত্রিত করে একটা শক্তিশালী জোট অটুট রাখবে”।

upendra kushwaha
উপেন্দ্র কুশওয়া

ওদিকে বিহারের আর এক এনডিএ শরিক জেডি(ইউ)-র একাধিক নেতৃত্ব ইতিমধ্যেই জোকিহাট বিধানসভার উপনির্বাচনে হারের জন্য দায়ী করেছেন বিজেপির জনবিরোধী নীতিকেই। স্পষ্টতই তাঁরা বলেছেন, একের পর এক ভ্রান্ত নীতির ফলে হারের সম্মুখীন হতে হচ্ছে তাঁদের। ইদানীংকালে পেট্রোল-ডিজেলের লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধির বিষয়টিতেও তাঁর আলোকপাত করেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here