নয়াদিল্লি: আপাতত আর বিমানে চড়া হচ্ছে না শিবসেনা সাংসদ রবীন্দ্র গায়কোয়াড়ের। তাঁর বিমানে চড়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এমনকি দিল্লি থেকে পুনে ফেরার তাঁর ফিরতি টিকিট বাতিল করেছে এয়ার ইন্ডিয়া।

বৃহস্পতিবার পুনে থেকে দিল্লি যাওয়ার সময় এয়ার ইন্ডিয়ার এক কর্মীর ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁকে ২৫ বার জুতোর ঘা দিয়েছিলেন এই শিবসেনা সাংসদ। এয়ার ইন্ডিয়ার পাশাপাশি তাঁর এই আচরণে অত্যন্ত ক্ষুব্ধ দেশের বেসরকারি বিমান সংস্থাগুলি নিয়ে গঠিত ‘ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্স’ (এফআইএ)। শুক্রবার বিকেল চারটের এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানে তাঁর পুনে ফেরার কথা ছিল, কিন্তু বিমান সংস্থাগুলির এই পদক্ষেপে, ট্রেন ছাড়া ফেরার আর কোনো উপায় নেই তাঁর।

সেই সাংসদের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে যৌথ বিবৃতি দিয়েছে এয়ার ইন্ডিয়া এবং এফআইএ। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “এই সাংসদকে কোনো ভাবেই বিমানে উঠতে দেওয়া হবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে এয়ার ইন্ডিয়া এবং এফআইএ।  কর্মীদের মনোবল ঠিক রাখা এবং যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য এই সাংসদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।” বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, “কোনো একজন কর্মী আক্রান্ত হওয়ার অর্থ সমস্ত বিমানকর্মী আক্রান্ত হওয়া।”

সরকার এবং নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে একটি ‘নো ফ্লাই’ তালিকা তৈরি করার দাবি জানানো হয়েছে এই বিবৃতিতে। বিমানে অভব্য আচরণকারী যাত্রীদের নাম ঠাঁই হবে এই তালিকায়, যাতে তারা ভবিষ্যতে বিমানে না উঠতে পারে। গায়কোয়াড়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা সমর্থন করে স্পাইস জেটের চেয়ারম্যান অজয় সিংহ বলেছেন, “অভব্য আচরণকারী যাত্রীদের বিমানে ওঠা আটকানোর জন্য ‘নো ফ্লাই’ তালিকা দরকার। সরকারের উচিত এই বিষয়ে অবিলম্বে পদক্ষেপ করা।”

উল্লেখ্য, দেশের প্রথম সারির বিমানসংস্থা, জেট, গো-এয়ার, ইন্ডিগো, স্পাইস জেট, এই এফআইএর সদস্য। যে দু’টি বিমানসংস্থা এফআইএর সদস্য নয়, ভিস্তারা এবং এয়ার এশিয়া ইন্ডিয়া, তারা গায়কোয়াড়ের ওপর একই রকম নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে কি না সেটাই দেখার।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন