Congress And BJP

রামনগর/কর্নাটক: বিধানসভা নির্বাচনে এমন ঘটনা অতীতে কবে ঘটেছে বা আদৌ ঘটেছে কি না, তা নিয়ে চলছে তথ্য-পরিসংখ্যানের চালাচালি। দু’দিন বাদেই কর্নাটকের রামনগর কেন্দ্রে উপনির্বাচন। বৃহস্পতিবার ওই কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী এল চন্দ্রশেখর পাল্টি খেয়ে যোগ দিলেন কংগ্রেসে। ও দিকে বিজেপি প্রার্থী হিসাবে দেওয়ালে তাঁর নাম, এমনকী নির্বাচন কমিশনও জানিয়েছে, মনোনয়ন প্রত্যাহারের দিন পার হয়ে যাওয়ায় ইভিএমে তাঁর নামের পাশে বোতাম টিপলে বিপ বিপ আওয়াজ ছাড়বে ভোটযন্ত্র।

প্রায় শেষ সিনে এসে কেনই বা এমন ডিগবাজি? চন্দ্রশেখর জানিয়েছেন অভিমানে ভেজা স্বরে- “ওঁরা (বিজেপি নেতারা) আমাকে প্রচারে পাত্তাই দেননি। ওঁরা আমাকে নাচিয়েছে। জোর গলায় বলেছিল, আমি রামনগরে বিজেপির প্রার্থী হলে আমার জন্য প্রচারে জান লড়িয়ে দেবে। কিন্তু কোথায় কী? কারও টিকির দেখা পেলাম না এ ক’দিনে”। “ফলে পদ্ম-তৃপ্তির ঢেকুর তোলার আগেই বদহজমের জ্বালায় ছেড়ে দে মা পালিয়ে বাঁচি অবস্থা”। বলছেন কংগ্রেস নেতারা।

L. Chandrashekar

অবাক হওয়ার পালায় এখনই ঝাঁপ পড়ার নয়। চন্দ্রশেখর তো প্রার্থীপদ ছেড়েইছেন, সঙ্গে যোগ দিয়েছেন কংগ্রেসে, পাশাপাশি তিনি রাজ্যরাজনীতির ইতিহাস-ভূগোলে যোগ করেছেন নতুন এক মানচিত্রের। তাঁর বিরোধী প্রার্থী অর্থাৎ কংগ্রেস-ডেজিএস প্রার্থী অনিতা কুমারস্বামী (মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারস্বামীর স্ত্রী)। সেই অনিতার হয়েই নির্বাচনী কাজে অংশ নিচ্ছেন চন্দ্রশেখর। বলেছেন, “কংগ্রেস করে যে আদর্শ আত্তীকরণ করেছি, তা ভোলার নয়”।

কংগ্রেস কর্মীরা অবশ্য আড়ালে-আবডালে বলছেন, তা হলে কেন এমন ভিমরতি। চন্দ্রশেখর তো ১০ অক্টোবরের আগে কংগ্রেসেই ছিলেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here