Amit Shah

নয়াদিল্লি: বিজেপির জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে আগামী লোকসভা নির্বাচনের রূপরেখা রচনার পাশাপাশি দলের সর্বভারতীয় সভাপতির মেয়াদ নিয়েও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহীত হল।

গত ২০১৬ সালের ২৪ জানুয়ারি সর্বভারতীয় সভাপতিপদে দ্বিতীয়বারের জন্য দায়িত্ব পান অমিত। সে বার তিনি বিনাপ্রতিদ্বন্দিতাতেই পুনরায় ওই পদে আসীন হন। তার আগে অবশ্য প্রথম দফায় ২০১৪ সালের জুলাই তৎকালীন সভাপতি রাজনাথ সিংয়ের ছেড়ে যাওয়া পদে নিয়ে আসা হয় তাঁকে। সে সময় লোকসভা নির্বাচনের পর রাজনাথ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়ায় দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় তাঁকে।

বিজেপির সাংগঠনিক নিয়ম অনুযায়ী দু’টি পর্বেই কোনো নেতা সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করতে পারেন। তিন বছরের ওই দু’টি মেয়াদ পূরণ হওয়ার পর ভোটাভুটির মাধ্যমেই নতুন সভাপতি নির্বাচিত হন। সেই হিসাবে অমিতের দ্বিতীয় দফার সভাপতিত্বের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী বছরের ২৬ জানুয়ারি।


আরও পড়ুন: অভিযুক্ত ওসির শাস্তির দাবিতে ১ ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করল ডাক্তারদের যৌথ মঞ্চ

কিন্তু সামনে লোকসভা নির্বাচন। দলের একাংশ মনে করেন, নরেন্দ্র মোদী সরকারের দ্বিতীয় পর্বকে নিশ্চিত করতে অমিতের মতো অভিজ্ঞ ও দক্ষ নেতার সভাপতিপদে থাকাটাই কাম্য। তিনি উত্তরপ্রদেশের দায়িত্বে থাকাকালীন যে ভাবে ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে ৮০-র মধ্যে ৭৩টি আসনে বিজেপিকে জয় এনে দিয়েছেন, তা এক কথা অভূতপূর্ব। ফলে কোনো মতেই লোকসভা ভোটের আগে সভাপতিপদে রদবদল সম্ভব নয়।

একই সঙ্গে দলের ওই অংশের মতে, নতুন সভাপতি নির্বাচনের প্রক্রিয়া বেশ সময়সাপেক্ষ বিষয়। সেখানে ভোটাভুটি না হলেও তার আয়োজন করতে হয়। ফলে লোকসভা ভোটের আগে ওই কাজে সময় ব্যয় করলে খামতি পড়তে পারে ভোটের প্রচার কাজে। ফলে যা হবে, সবই ভোটের পর। তত দিন অমিত থাকবেন নিজের জায়গাতেই।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন