BJP Lok Sabha

ওয়েবডেস্ক: চার বছর অতিক্রান্ত কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকার আগামী শুক্রবার মুখোমুখি হতে চলেছে অনাস্থা ভোটের। জয় নিয়ে ততটা উদ্বেগ না থাকলেও বিজেপি নেতৃত্ব চাইছেন কোথাও যেন কোনো রকমের ফাঁকফোঁকর রয়ে যায়। সামনে তিনটি রাজ্যের বিধানসভা ভোট তার পরেই লোকসভা নির্বাচন। সব মিলিয়ে বিরোধীদের দাবি মেনে নিয়ে ভোটাভুটিতে যাওয়ার পর, তা জিতে দেখানোই এখন মূল চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে বিজেপির কাছে। যে কারণে, দলীয় সংসদ সদস্যদের চোখে চোখে রাখার যাবতীয় বন্দোবস্ত করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

আরও পড়ুন: লোকসভায় অনাস্থা ভোট: ৬ বিজেপি সাংসদকে নজরে রাখছে বিরোধীরা

দলীয় ভাবে জানানো হয়েছে, বৃহস্পতিবার মধ্যাহ্নভোজ এবং নৈশভোজে একত্রে সারার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বিজেপি সাংসদদের। একই ভাবে ভোটাভুটির দিনেও সমস্ত সাংসদ একত্রে মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেবেন। তাঁদের উদ্দেশে হুইপ জারি করে শুক্রবার সশীরের উপস্থিত থাকা এবং দলের পক্ষে ভোট দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এক বিজেপি নেতা জানিয়েছেন, “আমরা জানি সমস্ত সাংসদের ভোটই দলের পক্ষে যাবে। তবে এর অন্যথা ঘটলে দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের অপরাধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে”।

আরও পড়ুন: বাদল অধিবেশনের শুরুতেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব বিরোধীদের

একই সঙ্গে জানানো হয়েছে, এআইএডিএমকে এবং তেলঙ্গনা রাষ্ট্রীয় সমিতির সঙ্গেও বিজেপি যোগাযোগ রাখছে। তাদের সাংসদরা যাতে অনাস্থার বিরুদ্ধে ভোট দেন, সে বিষয়ে দলীয় ভাবে চেষ্টা চলছে। বৃহস্পতিবার বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন। তিনি বিজেপি-কে সমর্থনের আর্জি জানান ঠাকরের কাছে। তবে শিবসেনা তাঁকে ‘হ্যাঁ’ বা ‘না’ – কিছুই বলেননি। সে কথা সংবাদ মাধ্যমে চাউর হয়ে যাওয়ার পরেও বিজেপি দাবি করেছে, শিবসেনাপ্রধান কেন্দ্রের শাসক দলের সঙ্গেই আছেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here