himachal pradesh

ওয়েবডেস্ক: বুথ ফেরত সমীক্ষা জয়ের পূর্বাভাস দিলেও হিমাচলপ্রদেশে নির্বাচনের আগে থেকেই তা অবধারিত ছিল বিজেপির। বড়ো ব্যবধানে জয়ও পেয়েছে তারা। কিন্তু ভোটের ফলাফলের দিকে তাকালে দেখা যাচ্ছে, গতবার লোকসভা নির্বাচনের তুলনায় বিজেপির ভোট ব্যাঙ্কে বড়োসড়ো ধস নেমেছে। ফলে তাৎক্ষণিক ভাবে জয়ের উচ্ছ্বাসে মাতলেও বিজেপি নেতৃত্ব আড়ালে ভোট কমার কারণ অনুসন্ধানে তৎপর হয়ে উঠেছেন।

২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনে হিমাচলে বিজেপির ভোটপ্রাপ্তির হার ছিল ৫৩.৩ শতাংশ এবং কংগ্রেস পেয়েছিল ৪০.৭ শতাংশ ভোট। এবার সেখানে ঘটে গিয়েছে বড়োসড়ো রদবদল। বিজেপি এবং কংগ্রেস ভোট পেয়েছে যথাক্রমে ৪৮ এবং ৪১ শতাংশ। অর্থাৎ কংগ্রেসের ভোট প্রায় একই থাকলেও বিজেপির ভোট একলপ্তে প্রায় পাঁচ শতাংশ কমে গিয়েছে। লোকসভা ভোটের নিরিখে বিধানসভার আসনের হিসেব দেখলে দেখা যাবে, বিজেপির আসন কমেছে ১৫টি, কংগ্রেসের আসন বেড়েছে ১১টি।

হিমাচলপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচন এ বার কংগ্রেসের কাছে ছিল নিতান্তই নিয়ম রক্ষার লড়াইয়ের শামিল। এক দিকে একাধিক দুর্নীতির অভিযোগে জর্জরিত বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী বীরভদ্র সিংহ অন্য দিকে পাঁচ বছর অন্তর হিমাচলে সরকার বদলের ঐতিহ্য এবারের নির্বাচনে কংগ্রেস হাই-কম্যান্ডকে কিছুটা নিষ্ক্রিয় করে রেখেছিল। যার সম্পূর্ণ ফয়দা তুলল বিজেপি।

একই সঙ্গে ভোট হওয়া গুজরাতে যখন সম্মান রক্ষার ভোট লড়ছে বিজেপি তখন শাসক দল কংগ্রেস কার্যত নিয়মরক্ষার লড়াই চালিয়েছে হিমাচলে। যে কারণে দলের পক্ষ থেকে প্রচারের কাজে জাতীয় স্তরের নেতারা ততটা উদ্যোগ দেখাননি। বিশেষ করে রাহুল গান্ধী নাম মাত্র প্রচারে গিয়ে দায় সেরেছিলেন। এমনকী বীরভদ্র কংগ্রেসকে টিকিয়ে রাখতে নিজের ছেলে বিক্রমাদিত্যকে সামনে এনে চমক দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু কংগ্রেস হাই-কম্যান্ডের কাছে তাঁর এই উদ্যোগ মোটেই গ্রহণযোগ্য হয়ে ওঠেনি। ফলে সরাসরি বীরভদ্রের মুখের উপর জবাব না দিলেও ভোট প্রচারে দলের উচ্চ নেতৃত্বের উদাসীনতা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল।

উল্টো দিকে বিজেপি নেতারা অশীতিপর মুখ্যমন্ত্রীর দুর্নীতির বহরকে কাজে লাগিয়ে পুরো দমে প্রচার চালিয়ে গিয়েছে। যার সুফল হাতেনাতে পেল তারা। তবে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে তুলে ধরা প্রেমকুমার ধুমল নিজের নির্বাচনী ক্ষেত্র সুজানপুরে হেরে যাওয়ায় মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নতুন মুখ খোঁজার কাজ শুরু করেছে বিজেপি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here