পশ্চিমবঙ্গে ‘সিন্ডিকেট’ চালাচ্ছেন অধীর চৌধুরী, সংসদে অভিযোগ বিজেপির

Adhir Ranjan Chowdhury
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে ‘অনুপ্রবেশকারী’ বলে এনআরসি ইস্যুতে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছিলেন লোকসভায় কংগ্রেস দলনেতা অধীররঞ্জন চৌধুরী। গত রবিবার সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের কাছে তিনি এমন মন্তব্য করার পর দিনই সোমবার তাঁর ক্ষমাপ্রার্থনার দাবিতে সংসদ উত্তাল হয়ে উঠল।

বিজেপি সদস্যরা অধীরকে পশ্চিমবঙ্গে একটি “সিন্ডিকেট” চালানোর অভিযোগেও অভিযুক্ত করেন। তাঁরা বলেন, ওই সিন্ডিকেট বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ভারতীয় নাগরিক হতে সহায়তা করছে।

সোমবার লোকসভায় বিজেপি সদস্যরা বহরমপুরের সাংসদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে “অনুপ্রবেশকারী” আখ্যা দেওয়ার প্রতিবাদ জানান। অধীরের ক্ষমাপ্রার্থনার দাবিতে তাঁরা সরব হন।

প্রহ্লাদ জোশী

এ দিন সংসদীয় বিষয়কমন্ত্রী প্রহ্লাদ জোশী স্বদলীয় সংসদ সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে কংগ্রেস নেতাকে আক্রমণ করেন। কংগ্রেসের অন্তর্বর্তী সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর বিদেশি উৎসের কথা তুলে ধরে তাঁকেও “অনুপ্রবেশকারী” বলে অভিহিত করা হয়। জোশীর ডেপুটি অর্জুন রাম মেঘওয়াল অধীরকে বলেন,”আপনাকে ক্ষমা চাইতে হবেই”।

জোশী জিজ্ঞাসা করেন, “অধীরকে পশ্চিমবঙ্গ থেকে আসা অনুপ্রবেশকারী বলা যেতে পারে কি না”? এ ভাবেই আক্রমণের ঝাঁঝ ক্রমশ বাড়তে থাকে। বিজেপি সদস্যরা অধীরের বিরুদ্ধে পশ্চিমবঙ্গে সিন্ডিকেট চালানোর অভিযোগ নিয়ে আসেন।

পরিস্থিতি ক্রমশ ঘোরালো হতে শুরু করে। বিজেপি সদস্যরা তাঁদের বিক্ষোভ অব্যাহত রেখে লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লাকে জোর করেই সভা মুলতুবি প্রস্তাব নিয়ে আসতে বাধ্য করেন।

প্রসঙ্গত, এনআরসি প্রসঙ্গে সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের কাছে অধীর বলেন, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দিল্লিতে অনুপ্রবেশকারী”। তাঁর যুক্তি, “তাঁদের (মোদী-শাহ) বাড়ি গুজরাতে, তবে তাঁরা দিল্লিতে এসেছেন। তাঁরা অভিবাসী, এটা আইনী অথবা অবৈধ, তা পরে জানা যাবে”।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.