লখনউ: মনুষ্যত্বের কাছে হার মানল দলীয় বৈঠক। গাড়ি থেকে নেমে দুর্ঘটনাগ্রস্ত মুসলিম পরিবারকে উদ্ধারে হাত লাগালেন বিজেপি বিধায়ক। দুর্ঘটনায় একজনকে হারালেও, বিধায়কের এই কাজে আপ্লুত দুর্ঘটনাগ্রস্ত পরিবারের সদস্যরা।

উত্তরপ্রদেশের এটাহ জেলার এক কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক বিপিন বর্মা দাভিদ। দলীয় বৈঠকে যোগ দিতে আগরা-লখনউ এক্সপ্রেসওয়ে ধরে লখনউ যাচ্ছিলেন তিনি। পথে যেতে যেতে পিলাখনা গ্রামের কাছে তাঁর নজরে আসে একটি গাড়ি দুর্ঘটনাগ্রস্ত হয়ে রাস্তার ধারে পড়ে আছে, এবং সেই গাড়িটিকে ঘিরে একটা জটলা। একটুও সময় নষ্ট না করে নিজের গাড়ি থামিয়ে দুর্ঘটনাগ্রস্ত ওই গাড়িটির কাছে ছুটে যান তিনি।

বিপিনবাবু বলেন, “মানুষ শুধু গাড়িটাকে দেখছিল। আমিই প্রথমে এগিয়ে যাই গাড়িটার দিকে। পাঁচ সদস্যের এক মুসলিম পরিবার ছিল ওই গাড়িতে। এক জন মহিলাকে গাড়ি থেকে উদ্ধার করতে পেরেছিলাম। তাঁকে যখন বের করে উনি তিনি ‘আল্লাহ আল্লাহ’ আওড়াচ্ছিলেন।”

কনৌজ নিবাসী এই পরিবারটি ফৈজাবাদের দেরা শরিফে যাচ্ছিল। বিধায়কের কথায়, দু’জন পুরুষ এবং দু’জন মহিলা দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আর একজন মহিলার মৃত্যু হয়েছে। বিপিনবাবু এবং আরও কয়েক জন মিলে সবাইকে উদ্ধার করে চটের মাদুরে এক্সপ্রেসওয়ের ওপর শোয়ান। এর পরেই অ্যাম্বুলেন্স এবং পুলিশকে ফোন করে ডাকেন বিপিনবাবু। আহতদের লখনউ ট্রমা সেন্টারে পৌঁছোনোর ব্যবস্থা করা হয়।

আহতদের সাহায্যে প্রায় তিন ঘণ্টা ওইখানে ছিলেন বিপিনবাবু। এর ফলে তাঁর বৈঠকে যাওয়া হয়নি। কিন্তু তার জন্য কোনো আক্ষেপ নেই তাঁর। তাঁর কথায়, “আমি তখন শুধুমাত্র আহতদের বাঁচানোর জন্য চিন্তায় ছিলেন। অ্যাম্বুলেন্স আসা পর্যন্ত আমি এবং আশেপাশের আরও কয়েক জন তাঁদের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করছিলাম, যাতে তাঁরা সজাগ থাকে এবং চিকিৎসা শুরুতে সমস্যা না হয়।”

বিপিনবাবু জানান, তাঁকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে ফোন করেছিলেন ওই পরিবারের সদস্যরা। তাঁর সঙ্গে দেখা করার ইচ্ছে প্রকাশও করেছে ওই পরিবার। পরের বার এটাহ গেলে ওই পরিবারের সঙ্গে দেখা করার আশ্বাস দিয়েছেন বিপিনবাবু।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন