রাজনীতিবিদদের মধ্যে প্রথম টিকা নিলেন বিজেপি সাংসদ, তৃণমূল বিধায়ক

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: বিজেপি সাংসদ মহেশ শর্মা এবং তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় টিকাকরণ অভিযানের প্রথম দিনেই টিকা পেলেন।

উত্তরপ্রদেশের গৌতমবুদ্ধ নগরের বিজেপি সাংসদ মহেশ শর্মা স্বাস্থ্যকর্মী হিসেবে এ দিন টিকা পেয়েছেন। তিনি পেশাগত ভাবে চিকিৎসক। সংবাদ সংস্থা পিটিআই-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, এ দিন সকাল ১১টায় নয়ডা সেক্টর-১৭-এর একটি হাসপাতালে করোনা টিকা নিয়েছেন মহেশ।

Shyamsundar

টিকা দেওয়ার পর ৬১ বছর বয়সি প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে আধঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হয় হাসপাতালে।

তিনি টুইটারে লেখেন, “বিশ্বের বৃহত্তম টিকাকরণ কর্মসূচির সূচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এক জন চিকিৎসক হিসেবে আমিও টিকা পেয়েছি। আমি পুরোপুরি সুস্থ রয়েছি। এই ভ্যাকসিন সম্পূর্ণ নিরাপদ এবং আপনারও নেওয়া উচিত”।

টিকা পেলেন তৃণমূল বিধায়ক

পূর্ব বর্ধমান জেলার কাটোয়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়কেও টিকা দেওয়া হয়। রোগীকল্যাণ সমিতির অংশ হিসাবে তাঁকে টিকা দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

কাটোয়া হাসপাতালের সুপার নবারুণ গুপ্তা জানান, “রোগীকল্যাণ সমিতির সঙ্গে যাঁরা যুক্ত, তাঁদের নাম টিকাকরণের জন্য পাঠানো হয়েছে। কাটোয়ার বিধায়ক তথা পুরপ্রশাসক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় রোগীকল্যাণ সমিতির সদস্য। তাই উনি আজ টিকা নিলেন”।

আরও এক তৃণমূল বিধায়ক টিকা পেয়েছেন। ভাতারে টিকা নেন বিধায়ক সুভাষ মণ্ডল। এ দিন টিকা পেয়েছেন প্রাক্তন বিধায়ক বনমালী হাজরা। তাঁরা রোগীকল্যাণ সমিতির সদস্য।

নেওয়ার কথা ছিল আরও এক বিধায়কের

আলিপুরদুয়ারে প্রথম করোনা টিকা প্রাপকদের তালিকায় নাম ছিল বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তীর। আলিপুরদুয়ার জেলা সদর হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান। তবে বিতর্কের পর টিকা নিচ্ছেন না বলেই জানান সৌরভ।

আরও পড়তে পারেন: প্রয়োজনে সংস্থার কাছ থেকে কিনে প্রত্যেককে বিনামূল্যে টিকার আশ্বাস মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন