Connect with us

খবর

অজ্ঞাত সূত্র থেকে অনুদানে শীর্ষস্থানে বিজেপি, বলছে রিপোর্ট

স্বচ্ছ আর দুর্নীতিমুক্ত ভারত গড়তে যতই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উদ্যোগী হন, তথ্য কিন্তু বলছে অজ্ঞাত সূত্র থেকে অনুদানে রাজনৈতিক দল হিসেবে শীর্ষ স্থানে রয়েছে তাঁর নিজেরই দল। এমনই জানা গেছে গণতান্ত্রিক সংস্কার সংস্থার (এডিআর) প্রকাশ করা একটি রিপোর্টে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, ২০১৩ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত এই দু’বছরে অজ্ঞাত সূত্র থেকে বিজেপি অনুদান পেয়েছে ৯৭৭.২৫ কোটি […]

Published

on

স্বচ্ছ আর দুর্নীতিমুক্ত ভারত গড়তে যতই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উদ্যোগী হন, তথ্য কিন্তু বলছে অজ্ঞাত সূত্র থেকে অনুদানে রাজনৈতিক দল হিসেবে শীর্ষ স্থানে রয়েছে তাঁর নিজেরই দল। এমনই জানা গেছে গণতান্ত্রিক সংস্কার সংস্থার (এডিআর) প্রকাশ করা একটি রিপোর্টে।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, ২০১৩ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত এই দু’বছরে অজ্ঞাত সূত্র থেকে বিজেপি অনুদান পেয়েছে ৯৭৭.২৫ কোটি টাকা। ২০১৩-১৪ অর্থবর্ষে বিজেপির প্রাপ্ত অনুদান ছিল ৪৭১.৯৯ কোটি টাকা, যেটা তার পরের অর্থবর্ষে বেড়ে হয় ৫০৫.২৬ কোটি। এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কংগ্রেস। এই দু’বছরে তাদের প্রাপ্ত অনুদান ৯৬৯.২১ কোটি টাকা।

Loading videos...

সংস্থার প্রকাশ করা রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, সিপিএমের প্রাপ্ত অনুদান ২০১৩-১৪ অর্থবর্ষে ছিল ৬০.২২ কোটি, তার পরের অর্থবর্ষে কিছুটা কমে হয় ৬০.১৩ কোটি। অন্য দিকে ২০১৩-১৪ অর্থবর্ষে তুলনায় কিছুটা কম, ৪৮.৬ কোটি টাকা অনুদান প্রাপ্ত হলেও পরের অর্থবর্ষে এর প্রায় দ্বিগুণ অনুদান পেয়েছে বিএসপি। তবে সিপিআই প্রথম অর্থবর্ষে কোনো অনুদান না পেলেও পরের অর্থবর্ষে অজ্ঞাত সূত্র থেকে মাত্র ৩০০০০ টাকার অনুদান পেয়েছে।

বাংলাদেশ

Bangladesh Covid Situation: স্বাস্থ্যবিধি না মেনে বেপরোয়া চলাচল সুইসাইডের শামিল, মনে করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মার্কেট, বিপণী-বিতান, যানবাহন, বিভাগীয় শহরের মার্কেট – সর্বত্রই মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি না-মানার প্রতিযোগিতা।

Published

on

ঈদে ঘরে ফেরার ভিড়।

ঋদি হক: ঢাকা

ঈদে (Eid) ঘরমুখো মানুষের স্রোত নেমেছে কয়েক দিন আগে থেকেই, যার সাক্ষী দেশের ফেরিঘাটগুলো। মানুষের চাপে শববাহী গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্স-সহ জরুরি যানের পারাপারে সমস্যা দেখা দিচ্ছে। ঘরমুখো মানুষ স্বাস্থ্যবিধি তোয়াক্কা না করে এতটাই গাদাগাদি করে পদ্মা পার হচ্ছে, করোনা-দুনিয়ায় তা রীতিমতো ভয়ানক চিত্র। মার্কেট, বিপণী-বিতান, যানবাহন, বিভাগীয় শহরের মার্কেট – সর্বত্রই মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি না-মানার প্রতিযোগিতা।

Loading videos...

এ অবস্থায় ঘরমুখো মানুষের বেপরোয়া চলাচলকে সুইসাইডের শামিল বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী (Bangladesh health minister) জাহিদ মালেক (Zahid Malek)। তিনি আক্ষেপের সুরে বলেন, লকডাউনের সামান্য শিথিলতার সুযোগ নিয়ে স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে যাতায়াত চলছে। তাতে ঈদের পর করোনার প্রাদুর্ভাব ঠেকানো কষ্টসাধ্য ব্যাপার হয়ে উঠবে। এটি রীতিমতো সুইসাইডের শামিল।

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট রুখতে করণীয় বিষয় নিয়ে বৈঠক

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট রুখতে করণীয় বিষয় নিয়ে বাংলাদেশের চারটি সীমান্ত জেলার বিভাগীয় উচ্চপদন্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠককালে এ সব কথা তুলে ধরেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, সারা দেশের শহরাঞ্চলের মানুষ বেপরোয়া। ও দিকে পড়শি দেশ ভারতে নতুন ভ্যারিয়েন্টের কারণে প্রতি দিন বহু মানুষ মারা যাচ্ছে। আরেক দেশ নেপালের অবস্থাও খারাপ। সেখানেও ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়েছে। এরই মধ্যে ভারত-ফেরত বাংলাদেশি মানুষের মাধ্যমে ভাইরাস চলে এসেছে। এই রকম জটিল সময়ে মানুষ গ্রামে গিয়ে পরিবার পরিজন-সহ আরও মানুষজনকে গণহারে আক্রান্ত করতে পারে, এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

আলোচনায় যোগ দিয়ে খুলনার বিভাগীয় কমিশনার জানান, ভারতে যাতায়াত করেছেন এমন ২৭০০ জনকে হোম কোয়ারান্টাইনে রাখা হয়েছে। তাঁদের ওপর সর্বক্ষণ নজরদারি চলছে। তা ছাড়া ভারত থেকে স্থলবন্দর দিয়ে আসা পণ্যবাহী ট্রাকের ড্রাইভার-হেল্পারদেরও কঠোর ভাবে আইসোলেশন রাখার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

ভারত থেকে যে সব ব্যক্তি ফিরে এসেছেন, জরুরি ভিত্তিতে তাঁদের পরিবার-সহ সকল সদস্যকে বাধ্যতামূলক করোনা পরীক্ষার আওতায় আনার নির্দেশ দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। সীমান্ত এলাকার যানবাহনের অন্য জেলায় যাতায়াত বন্ধ করার নির্দেশ দেন। দেশের নিরাপত্তার স্বার্থে সীমান্ত সংশ্লিষ্ট আধিকারিকদের সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়ারও নির্দেশ দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন: Bangladesh-China relation: বিরোধী জোটে যুক্ত হলে সম্পর্কের অবনতি হবে, বাংলাদেশকে হুঁশিয়ারি চিনের

Continue Reading

বাংলাদেশ

Bangladesh-China relation: বিরোধী জোটে যুক্ত হলে সম্পর্কের অবনতি হবে, বাংলাদেশকে হুঁশিয়ারি চিনের

জিমিং দাবি করেন, বাংলাদেশের ভুলের জন্যই টিকা পেতে দেরি হচ্ছে।

Published

on

ঋদি হক: ঢাকা

যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে বেজিং-বিরোধী জোটে যোগ দিলে বাংলাদেশ-চিন সম্পর্কের (Bangladesh-China relation) অবনতি হবে। সোমবার এক আলোচনাসভায় এমনই হুঁশিয়ারি এল ঢাকায় নিযুক্ত চিনা রাষ্ট্রদূত (Chinese ambassador) লি জিমিং-এর (Li Jiming) তরফে।

Loading videos...

চিনা রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, বাংলাদেশ আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব দিলে তিস্তা প্রকল্প নিয়ে কাজ করবে বেজিং। জিমিং দাবি করেন, বাংলাদেশের ভুলের জন্যই টিকা পেতে দেরি হচ্ছে। তবে চিনের দেওয়া ৫ লাখ ডোজ টিকা ১২ মে ঢাকায় আসার বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিনি। কূটনীতিক সাংবাদিকদের সংগঠন ডি ক্যাবের আলোচনায় এ সব কথা বলেন চিনা রাষ্ট্রদূত।

করোনা পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যব্যবস্থাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে গেল বছর প্রথম আসে চিনা মেডিকেল প্রতিনিধিদল। সে সময়ই বাংলাদেশে ভ্যাকসিন উৎপাদনের প্রস্তাব দেয় চিন। সেই প্রস্তাব অবশ্য প্রথমে নাকচ করে দেয় বাংলাদেশ। এ বারে সেই চিনের ভ্যাকসিনই আসছে।

জিমিং জানান, শুধু টিকাই নয়, আরও অনেক প্রস্তাবই দেওয়া হয়েছে ফেব্রুয়ারিতে। অথচ তিন মাস ধরে সে সব প্রস্তাব ঝুলে আছে। দক্ষিণ এশিয়ায় করোনা মোকাবিলায় চিনের জোটের কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, জোটে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব ভারতকেও দেওয়া হয়েছে, প্রস্তুত নয় বাংলাদেশ। 

বাংলাদেশ ও চিনের সর্ম্পকের নানা দিক

বাংলাদেশ ও চিনের সর্ম্পকের নানা দিক উঠে আসে আলোচনায়। সেই সঙ্গে এ নিয়ে অন্য রাষ্ট্রের উদ্বেগের বিষয়ও আসে। এক প্রশ্নের জবাবে রাষ্ট্রদূত বলেন, তিস্তার প্রস্তাব আনুষ্ঠানিক ভাবে পেলে তা নিয়ে কাজ শুরু করবে চিন। যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে জাপান, ভারত এবং অস্ট্রেলিয়া যে কৌশলগত কোয়াড (কোয়াড্রিল্যাটারাল সিকিউরিটি ডায়ালগ, Quadrilateral Security Dialouge, QUAD) গঠন করেছে, তা মূলত চিনকে ঠেকানোর জন্যই। ভারত মহাসাগর ও প্রশান্ত মহাসাগরে নৌ চলাচল অবাধ ও স্বাধীন রাখার যুক্তি দেখিয়ে ২০০৭ সালে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের মধ্যে কোয়াড কথাবার্তার সূচনা হয়।

কোয়াডে যোগ দেওয়ার বিষয়ে বাংলাদেশকে সতর্ক করে চিনের রাষ্ট্রদূত বলেন, “এই প্রক্ষাপটে বলব, এ ধরনের ছোটো গোষ্ঠী বা ক্লাবে যুক্ত হওয়ার ভাবনাটা ভালো না। বাংলাদেশ এতে যুক্ত হলে তা আমাদের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক যথেষ্ট খারাপ করবে।”

এপ্রিলের শেষ দিকে চিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল ওয়েই ফেংহে ঢাকা সফর করেন। এ সময় কোয়াড, আইপিএস ইত্যাদি বিষয়ে নিয়ে বাংলাদেশের সহযোগিতা চেয়েছিল চিন।

চিনের অনুরোধের জবাবে বাংলাদেশ কী বলেছে জানতে চাওয়া হলে রাষ্ট্রদূত জবাবটি এড়িয়ে যান। এ সময় রাষ্ট্রদূত বলেন, “চিন সব সময় মনে করে, যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে কোয়াড হচ্ছে চিন-বিরোধী একটি ছোটো গ্রুপ। আমি খুব স্পষ্ট করেই বলতে চাই, অর্থনৈতিক প্রস্তাবের কথা বললেও এতে নিরাপত্তার উপাদান রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সুর মিলিয়ে জাপানও এখানে চিনের বিরুদ্ধে বলছে।”

চিনা টিকা বুধবার আসছে

চিনের পাঁচ লাখ ডোজ টিকা বুধবার নাগাদ পৌঁছোনোর কথা জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, কেনা টিকার জন্য বাংলাদেশকে অপেক্ষা করতে হবে। টিকা নিয়ে দুই দেশের সরকারের মধ্যে আলোচনা চলছে এবং বাংলাদেশে টিকা পাঠানোর বিষয়টি চিন খুবই ইতিবাচক ভাবে দেখছে। সমস্যা হল, বাংলাদেশ সরকার চিনের সিনোফার্মের টিকা জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে মাত্র এক সপ্তাহ আগে।

চিনা রাষ্ট্রদূত বলেন, টিকা পেতে আন্তর্জাতিক বাজারে ক্রেতাদের দীর্ঘ লাইন। স্বাভাবিক ভাবেই বাংলাদেশ টিকার সেই লাইনের সামনের দিকে নেই। সরকারি পর্যায়ে চিন থেকে কেনা টিকার প্রথম চালান হাতে পেতে কিছু সময় অপেক্ষা করতে হবে।

এই অপেক্ষা কত দিন জানতে চাইলে রাষ্ট্রদূত বলেন, “বাণিজ্যিক ভাবে বাংলাদেশ যাতে দ্রুত টিকা কিনতে পারে তার জন্য আমার তরফ থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টা আমি করব। বেজিংয়ে আমার সহকর্মীরা প্রথমে বলেছে, টিকার লাইন এতটা দীর্ঘ যে ডিসেম্বরের আগে টিকা পাওয়ার আশা না করাই ভালো। আমি তাদের বলেছি, যত দ্রুত সম্ভব এখানে টিকা দরকার। এর পর আমার মনে হচ্ছে, ডিসেম্বরের অনেক আগেই আমরা পারব। তবে দুর্ভাগ্যজনক ভাবে এ বছরের প্রথমার্ধে সেটা হবে না।”

আলোচনাসভায় অন্য যাঁরা বক্তৃতা করেন তাঁরা হলেন ডিপলোম্যাটিক করেসপনডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশের (ডিকাব) প্রেসিডেন্ট পান্থ রহমান ও সাধারণ সম্পাদক এ কে এম মঈনুদ্দিন।

আরও পড়ুন: ভারতের সঙ্গে স্থলসীমান্ত আরও ১৪ দিন বন্ধ রাখছে বাংলাদেশ

Continue Reading

রাজ্য

Bengal Corona Update: রাজ্যের সংক্রমণচিত্রে স্থিতাবস্থা অব্যাহত, সুস্থতার হারে বৃদ্ধি, ৮ জেলায় কমল সক্রিয় রোগী

সুস্থতার হার ৮৬ শতাংশ পার।

Published

on

Coronavirus west bengal

খবরঅনলাইন ডেস্ক রাজ্যের নতুন আক্রান্তের সংখ্যায় মোটের ওপরে স্থিতাবস্থাই অব্যাহত রয়েছে। গত দু’ দিনে রাজ্যে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা কার্যত বাড়েইনি। অন্য দিকে, নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা সামান্য কমলেও সংক্রমণের হার কার্যত অপরিবর্তিত রয়েছে। এ দিকে মৃতের সংখ্যায় রেকর্ড করেছে ঠিকই, কিন্তু দৈনিক মৃত্যুহার এখনও নগণ্য রাজ্যে। তবে স্বস্তি দিয়ে রাজ্যে সুস্থতার হারে বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। ঠিক একই ভাবে স্থিতাবস্থা অব্যাহত রয়েছে কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগণার সংক্রমণেও।

রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি

এ দিন স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় গোটা রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৪৪৫ জন। এখনও পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লক্ষ ১২ হাজার ৬০৪।

Loading videos...

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৮ হাজার ৬৭৫ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট কোভিডজয়ীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ লক্ষ ৭৩ হাজার ৪৮০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজ্যে। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত কোভিডে প্রাণ হারিয়েছেন মোট ১২ হাজার ৪৬২ জন।

রাজ্যে বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ১ লক্ষ ২৬ হাজার ৬৬৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৩৬ জন সক্রিয় রোগী বেড়েছে রাজ্যে। রাজ্যে সুস্থতার হার কিছুটা বেড়ে হয়েছে ৮৬.২৬ শতাংশ। রবিবার এই হার ছিল ৮৬.০৭ শতাংশ।

দৈনিক সংক্রমণের হার ৩০ শতাংশের ওপরে

গত দু’ সপ্তাহ ধরে রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণের হারে একটা স্থিতাবস্থা চলছে। সেটা খুব বেশি না বাড়লেও কমেওনি। কিন্তু অন্য অনেক রাজ্যেই যখন সংক্রমণের হার কমতে শুরু করেছে, তখন এ রাজ্যেও তার ছোঁয়া লাগবে বলে আশা করাই যায়।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে টেস্ট হয়েছে ৬২ হাজার ১৮৬টি। এর বিপরীতে সংক্রমণের হার ছিল ৩১.২৬ শতাংশ। রাজ্যের সামগ্রিক সংক্রমণের হার বর্তমানে রয়েছে ৯.১৮ শতাংশ। সোমবার পর্যন্ত মোট ১ কোটি ১০ লক্ষ ৩০ হাজার ৯২৭টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণায় স্থিতাবস্থা

ক্রমাগত টেস্টের সংখ্যা বাড়ার পরেও গত ২৬ এপ্রিলের পর থেকে কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগণার দৈনিক সংক্রমণ কার্যত এক জায়গাতেই ঘোরাঘুরি করছে। দু’ সপ্তাহ ধরে সংক্রমণ এক জায়গায় রয়েছে মানে বিশেষজ্ঞরা অনেকেই মনে করছেন এই দুই জেলায় সংক্রমণ সম্ভবত চূড়ার কাছাকাছি চলে এসেছে।

কলকাতায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৩,৯৪৮ এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ৩,৯৭১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই দুই জেলায় সুস্থ হয়েছেন যথাক্রমে ৩,৮৬১ এবং ৩,৬২৩ জন। কলকাতায় ৩৪ এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ৪২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

কলকাতায় এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ লক্ষ ৩০ হাজার ৮৩১, উত্তর ২৪ পরগণায় মোট আক্রান্ত ২ লক্ষ ১৭ হাজার ৩০৬। কলকাতায় বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২৬ হাজার ২৫৮ জন এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ২৪ হাজার ২৭৫ জন। দুই জেলায় মৃত্যু হয়েছে যথাক্রমে ৩,৭১২ এবং ৩,০৮৫ জনের।

রাজ্যের বাকি জেলার চিত্র

রাজ্যের বাকি জেলার করোনা পরিস্থিতি তো ভয়াবহই রয়েছে। কিন্তু সব জেলাতেই গত কয়েক দিন ধরে সংক্রমণে একটা স্থিতাবস্থা লক্ষ করা যাচ্ছে। অন্য দিকে, বেশ কয়েকটি জেলায় দৈনিক সংক্রমণকে ছাপিয়ে যাচ্ছে দৈনিক সুস্থতা। ফলে সেখানে পরিস্থিতির কিঞ্চিৎ উন্নতিও হচ্ছে।

কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণা বাদে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যের অন্যান্য জেলায় নতুন সংক্রমণ এবং সুস্থতার সংখ্যা কেমন ছিল, দেখে নিন।

১) আলিপুরদুয়ার

নতুন করে আক্রান্ত – ৪৫

সুস্থ হলেন – ৫৪

২) কোচবিহার

নতুন করে আক্রান্ত – ২৫৩

সুস্থ হলেন – ১৯৮

৩) দার্জিলিং

নতুন করে আক্রান্ত – ৬৪৪

সুস্থ হলেন – ৫৫৬

৪) কালিম্পং

নতুন করে আক্রান্ত – ১০

সুস্থ হলেন – ৫৪

৫) জলপাইগুড়ি

নতুন করে আক্রান্ত – ৩৫২

সুস্থ হলেন – ২৮৯

৬) উত্তর দিনাজপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ৩১১

সুস্থ হলেন – ২৮০

৭) দক্ষিণ দিনাজপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ২৫৭

সুস্থ হলেন – ২২১

৮) মালদহ

নতুন করে আক্রান্ত – ৪৭৮

সুস্থ হলেন – ৫৩৫

৯) মুর্শিদাবাদ

নতুন করে আক্রান্ত – ৪২৯

সুস্থ হলেন – ৩৭৯

১০) নদিয়া

নতুন করে আক্রান্ত – ১,০১৬

সুস্থ হলেন – ৯২১

১১) বীরভূম

নতুন করে আক্রান্ত – ৭৩২

সুস্থ হলেন – ৭০২

১২) পশ্চিম বর্ধমান

নতুন করে আক্রান্ত – ৮৮৭

সুস্থ হলেন – ১০৬৭

১৩) পূর্ব বর্ধমান

নতুন করে আক্রান্ত –৮৫০

সুস্থ হলেন – ৭০৬

১৪) বাঁকুড়া

নতুন করে আক্রান্ত – ৪১৮

সুস্থ হলেন – ৪২২

১৫) পুরুলিয়া

নতুন করে আক্রান্ত – ১৪৮

সুস্থ হলেন – ৪৩৭

১৬) পূর্ব মেদিনীপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ৭২৮

সুস্থ হলেন – ৭২৩

১৭) পশ্চিম মেদিনীপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ৬৫৩

সুস্থ হলেন – ৪১৫

১৮) ঝাড়গ্রাম

নতুন করে আক্রান্ত –১৪৪

সুস্থ হলেন -১০৪

১৯) দক্ষিণ ২৪ পরগণা

নতুন করে আক্রান্ত – ১,০৭৩

সুস্থ হলেন – ১,০৮৮

২০) হুগলি

নতুন করে আক্রান্ত – ৯৫১

সুস্থ হলেন – ৯৫৭

২১) হাওড়া

নতুন করে আক্রান্ত – ১১৪৭

সুস্থ হলেন – ১,০৭৩

স্বস্তির খবর হল দৈনিক সংক্রমণের থেকে সুস্থতার সংখ্যা বেশি হওয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় সক্রিয় রোগী কমেছে আলিপুরদুয়ার, কালিম্পং, মালদহ, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম বর্ধমান, হুগলি এবং দক্ষিণ ২৪ পরগণায়।

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
বাংলাদেশ3 hours ago

Bangladesh Covid Situation: স্বাস্থ্যবিধি না মেনে বেপরোয়া চলাচল সুইসাইডের শামিল, মনে করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

বাংলাদেশ4 hours ago

Bangladesh-China relation: বিরোধী জোটে যুক্ত হলে সম্পর্কের অবনতি হবে, বাংলাদেশকে হুঁশিয়ারি চিনের

Coronavirus west bengal
রাজ্য7 hours ago

Bengal Corona Update: রাজ্যের সংক্রমণচিত্রে স্থিতাবস্থা অব্যাহত, সুস্থতার হারে বৃদ্ধি, ৮ জেলায় কমল সক্রিয় রোগী

দেশ8 hours ago

Coronavirus Second Wave: টিকা নেওয়ার পরেও কি কোভিড হতে পারে? ব্যাখ্যা দিল সরকার

রাজ্য10 hours ago

Coronavirus Second Wave: সংসদের বিশেষ অধিবেশন ডাকতে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি দিলেন অধীররঞ্জন চৌধুরী

দেশ10 hours ago

CWC Meet: “দলকে নতুন শৃঙ্খলায় সঙ্ঘবদ্ধ করতে হবে”, ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে বললেন সনিয়া গান্ধী

প্রোনিং
শরীরস্বাস্থ্য10 hours ago

বাড়িতে কোভিড রোগীর হঠাৎ শ্বাসকষ্ট হলে কেন প্রোনিং করাবেন?

রাজ্য10 hours ago

‘গঠনমূলক কাজে সহযোগিতা করব সরকারকে’, বিরোধী দলনেতা হয়েই বললেন শুভেন্দু অধিকারী

ক্রিকেট3 days ago

IPL 2021: বাকি ম্যাচগুলি আয়োজন করতে চেয়ে বিসিসিআইকে আবেদন জানাল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড

রাজ্য3 days ago

Bengal Corona Update: রাজ্যের ১৫ জেলায় মৃত্যুহার ১ শতাংশের কম

দেশ3 days ago

Corona Update: দৈনিক সংক্রমণ কিছুটা কমলেও মৃতের সংখ্যায় রেকর্ড, তবুও মৃত্যুহার নিম্নমুখী

দেশ2 days ago

Covid Crisis: জলে গুলে খেতে হবে, করোনারোধী ওষুধে ছাড়পত্র দিল ডিজিসিআই

রাজ্য2 days ago

Bengal Corona Update: সংক্রমণের হার ফের ৩০ শতাংশ পার, বাড়ল মৃতের সংখ্যাও, তবে কলকাতা-সহ ৯ জেলায় কমল সক্রিয় রোগী

রাজ্য1 day ago

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃতীয় মন্ত্রীসভায় একাধিক নতুন মুখ

রাজ্য1 day ago

Bengal Corona Update: নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় একই, রাজ্যে বাড়ল সুস্থতা

দেশ1 day ago

ভ্যাকসিন এবং কোভিডের চিকিৎসা সরঞ্জামে ট্যাক্স কেন? মমতার চিঠির পর ১৬টা টুইট কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর

ভিডিও

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 months ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা4 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা4 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা4 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা4 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা4 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা4 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা4 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে