babul supriya

নয়াদিল্লি: বর্তমানে কেন্দ্রের ভারী শিল্প প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র হাতে বাড়তি দায়িত্ব তুলে দিতে চাইছে বিজেপি। দলের দিল্লি নেতৃত্ব মনে করেন, রাজনীতিতে নবাগত বাবুল গত চার-পাঁচ বছরের মধ্যে যে দক্ষতা দেখিয়েছেন, তা যথেষ্ট আকর্ষক।

গত ২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনে আসানসোলের মতো ‘দুর্ভেদ্য’ আসনে বাবুল জয় ছিনিয়ে নিয়ে এসে প্রথম তাঁর যোগ্যতা প্রমাণ করেন। এর পর কেন্দ্রীয় নগরোন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্বের সঙ্গে কাজ করে এখন নিজের মন্ত্রকে সুনামের সঙ্গে কাজ করে চলেছেন। তারই সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বাংলা লাগোয়া ত্রিপুরা এবং মেঘালয়ের বিধানসভা নির্বাচনে তাঁর সমুজ্জ্বল উপস্থিতি। সব মিলিয়ে আগামী পঞ্চায়েত এবং ২০১৯-এর সাধারণ নির্বাচনে তাঁর জনপ্রিয়তাকে আরও বেশি করে কাজে লাগাতে চায় দল।

ত্রিপুরার নির্বাচনে বাংলা থেকে প্রায় এক ডজন নেতা-নেত্রীকে প্রচারে পাঠানো হয়েছিল। বিজেপির দিল্লি নেতৃত্ব মনে করেন, পশ্চিমবঙ্গের থেকেও দুর্বল সংগঠনকে পায়ের তলায় মাটি পাইয়ে দিতে সফল হয়েছেন ওই নেতৃত্ব। হতে পারে ত্রিপুরায় বুথের সংখ্যা মাত্র ৩,৭০০টি, কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের প্রায় ৭৭ হাজার বুথে দলীয় সংগঠনকে চাঙ্গা করার আগাম অভিজ্ঞতা তাঁরা অর্জন করেছেন ওই ত্রিপুরা থেকেই।

বিশেষ করে বাবুলের নাম দিল্লি নেতৃত্বের মুখে বারবার ঘুরে বেড়াচ্ছে। বাবুল যে ভাবে ত্রিপুরায় ভোট প্রচারে অংশ নিয়েছেন, একই ভাবে মেঘালয়েও তাঁকে ব্যবহার করেছে দল। নিজের স্বভাবসিদ্ধ ঢংয়ে তিনি সভায় আগত মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন তাঁর গানের মাধ্যমেই। ওই দুই রাজ্যেই বাংলাভাষী মানুষের বাস। ফলে তিনি রবীন্দ্র সংগীতের পাশাপাশি নিজের জনপ্রিয় ছবি ‘কহনা প্যায়ার হ্যায়’ থেকেও কয়েকটি কলি শুনিয়ে মানুষের মনে অন্য অনুভূতির সৃষ্টি করেছেন। সেই একই কৌশলে বাংলায় বাজিমাতের ‘অস্ত্র’ হয়ে উঠতে চলেছেন বাবুল। সূত্রের খবর, বাবুল রাজি থাকলে তাঁকে পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলীয় কোনো গুরুত্বপূর্ণ পদে বসানো হতে পারে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here