রাজ্যসভায় সদস্য সংখ্যা বাড়াতে বিজেপির নতুন কৌশল!

0
Narendra Modi and Amit Shah
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: রাজ্যসভার সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে মরিয়া হয়ে উঠেছে বিজেপি। লোকসভায় শুধুমাত্র ধ্বনিভোটে একাধিক বিল পাশ করানোর পরেও বিরোধীদের সংখ্যাধিক্যে তা আটকে গিয়েছে রাজ্যসভায়। এমনকী তিন তালাকের মতো বিলের বিরোধিতা করতে দেখা গিয়েছে এনডিএ শরিক ডেজি(ইউ)-কে। যে কারণে রাজ্যসভায় স্বনির্ভর হওয়ার পথে দ্রুত এগোতে চাইছে গেরুয়া শিবির। সেই লক্ষ্য পূরণে নিশানা হয়ে উঠেছে বিরোধী শিবির।

সম্প্রতি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন সমাজবাদী পার্টির রাজ্যসভার সাংসদ নীরজ শেখর। তিনি প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী চন্দ্র শেখরের ছেলে। ২০১৭ সালের উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা ভোটে সমাজবাদী পার্টির বিধায়ক সংখ্যা অনেকটাই কমে যাওয়ার পুনরায় রাজ্যসভায় যাওয়া প্রায় অনিশ্চিত হয়ে গিয়েছে নীরজের। তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা এমন কথা বললেও নীরজের দাবি, লোকসভা ভোটের ফলাফল স্পষ্ট করে দিয়েছে, এ মুহূর্তে নরেন্দ্র মোদীর কোনো বিকল্প নেই। পাশাপাশি তাঁর দাবি, অখিলেশ যাদবের দলের অসংখ্য নেতা বিজেপির দিকে পা বাড়িয়ে রয়েছেন। বিজেপি নেতৃত্ব তাঁদের সঙ্গে কথা বললেই তাঁরা শিবির বদল করার সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

তা যাইহোক, রাজ্যসভায় বিজেপির সদস্য সংখ্যা পৌঁছে গিয়েছে ৭৮-এ। সম্প্রতি ডিটিপির মোট ছ’জন রাজ্যসভা সাংসদের মধ্যে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন চার জনই। সব মিলিয়ে ২৪৫ আসনের রাজ্যসভায় এনডিএর সংখ্যাগরিষ্ঠতা হাসিলের লক্ষ্য পূরণ আর মাত্র কয়েক কদম দূরে। তাদের দখলে এখন রয়েছে ১১৫*। এর মধ্যে এআইএডিএমকের ১১ এবং জেডি(ইউ)-র ছ’জন। সময় মতো শরিকদের ব্যতিরেকেই বিজেপি যাতে রাজ্যসভায় বিল পাশ করাতে সফল হয়, আপাতত সেই লক্ষ্য নিয়েই এগোচ্ছেন নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ জুটি।

জানা গিয়েছে, আগামী ২০২০ সালে নতুন সদস্য আসবেন ৭২টি আসনে। ফলে বর্তমান লোকসভা জয়ের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ১২৪-এ পৌঁছে যেতে পারে বিজেপি

প্রসঙ্গত, এ বারের লোকসভা নির্বাচনে ৫৪৩টি আসনের মধ্যে বিজেপি জয় পেয়েছে ৩০৩-টিতে। অন্য দিকে এনডিএ জোটের দখলে এসেছে ৩৫৩টি আসন। তবুও রাজ্যসভায় পর্যাপ্ত শক্তির অভাবে বারবার পিছু হঠতে হচ্ছে ‘তিন তালাক‘-এর মতো বিল পাশ করাতে।  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here