hyderabad baby

গুরুগ্রাম: শৌচালয়ে মিলল দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রের গলাকাটা দেহ। ভয়ংকর এই ঘটনাটি ঘটেছে গুরুগ্রামের রায়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে। ঘটনার পর স্কুলে ভাঙচুর চালিয়েছেন অভিভাবকরা।

শুক্রবার সকালে এই ঘটনাটি জানাজানি হতেই ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। মৃত ছাত্রের নাম প্রদ্যুম্ন ঠাকুর। শৌচালয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় তার দেহ উদ্ধার হয়। দেহের পাশেই একটি ছুরি ছিল। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। গুরুগ্রাম পুলিশের জনসংযোগ আধিকারিক রবীন্দ্র কুমার বলেন, “পড়ুয়ারা প্রথমে স্কুল কর্তৃপক্ষকে খবর দেয়। স্কুল কর্তৃপক্ষেই পুলিশকে জানায়। ছাত্রটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন ডাক্তাররা।

তদন্তের স্বার্থে রক্তের নমুনা সংগ্রহ করেছে পুলিশ। পুরোনো কোনো শত্রুতা ছিল কি না, সে ব্যাপারেই খতিয়ে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন কুমার। ৩০টি সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজও পরীক্ষা করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

স্কুলের কর্মচারী এবং প্রদ্যুম্নের সহপাঠীদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ। অন্য দিকে স্কুলের বিরুদ্ধে কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগ এনেছেন ছাত্রের বাবা। প্রথম দিকে প্রদ্যুম্নের মৃত্যুর খবর এড়িয়ে যাচ্ছিল স্কুল, এমনই অভিযোগ তাঁর। তিনি বলেন, “আমাকে বলা হল আমার ছেলের শরীর নাকি হঠাৎ করে খারাপ হয়ে গিয়েছে। সময়মতো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে, ওকে হয়তো বাঁচানো যেত।”

তবে এটা নতুন ঘটনা নয় এই স্কুলের কাছে। গত বছর জানুয়ারিতে স্কুলের জলের ট্যাঙ্কে পড়ে গিয়ে মৃত্যু হয় ছ’বছরের এক ছাত্রের। কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগে তখন স্কুলের অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here