bombay highcourt
ফাইল ছবি

মুম্বই: মামলা বিচারাধীন থাকাকালীন কী ভাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে পুলিশ। সমাজকর্মী গ্রেফতারে এ ভাবেই পুলিশকে তুলোধোনা করল বম্বে হাইকোর্ট।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার মহারাষ্ট্র পুলিশের এডিজি পরমবীর সিংহ এক সাংবাদিক বৈঠকে দাবি করেন ভিমা কোরেগাঁও হিংসায় এই পাঁচ সমাজকর্মীর জড়িত থাকার ব্যাপারে যথেষ্ট প্রমাণ হাতে রয়েছে। গত জুনে এই ঘটনায় যাঁরা গ্রেফতার হয়েছিলেন, তাঁদের সঙ্গে এই পাঁচ সমাজকর্মীর মধ্যে চিঠি চালাচালি হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।

কিন্তু বিচারপতি এসএস শিন্ডে এবং বিচারপতি মৃদুলা ভটকরের ডিভিশন বেঞ্চ পুলিশের বিরুদ্ধে একহাত নিয়ে জানিয়ছে, যে চিঠিগুলি মামলার গুরুত্বপূর্ণ নথি হিসেবে পেশ করা যেত, সেগুলি কেন প্রকাশ্যে আনল তারা। মৃদুলা ভটকর বলেন, “পুলিশ কী ভাবে এটা করল? মামলা এখন বিচারাধীন। এই পরিস্থিতিতে মামলার প্রামাণিক নথি প্রকাশ্যে নিয়ে আসা ভুল।”

আরও পড়ুন ‘জেলে থাকতে দিন,’ নিরপরাধ মানুষদের আবেদনে সরগরম লখনউ, কারণ জানলে চমকে যাবেন

জনৈক সতীশ গায়কোয়াড়ের একটি আবেদনের ভিত্তিতে এই শুনানি চলছিল বম্বে হাইকোর্টে। নিজেকে ভিমা কোরেগাঁও হিংসার শিকার দাবি করে এনআইএ তদন্ত চান তিনি। পাশাপাশি এই মামলায় পুনে পুলিশকে বিরত রাখার আবেদনও করেন তিনি। পুনে পুলিশ অসৎ উদ্দেশ্যে মামলায় অন্যায় ভাবে তদন্ত করে বিশিষ্টজনদের ফাঁসিয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

এই মামলায় পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে ৭ সেপ্টেম্বর।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন