Connect with us

দেশ

গোটা বছরের জন্য অফলাইন ক্লাস বাতিল করে দিল বোম্বে আইআইটি

মুম্বই: চলতি শিক্ষাবর্ষের পুরোটাই অফলাইন ক্লাস বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিল বোম্বে আইআইটি (Bombay IIT)। করোনাভাইরাসের (Coronavirus) বিরুদ্ধে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে আইআইটি বম্বের তরফে জানানো হয়েছে।

বুধবার রাতে ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে আইআইটি বম্বের ডিরেক্টর প্রফেসর শুভাশিস চৌধুরী এই সিদ্ধান্তের কথা জানান। পড়ুয়াদের সুরক্ষার বিষয়ে প্রতিষ্ঠান কোনো রকম আপস করবে না বলে জানিয়েছেন তিনি। দীর্ঘ আলাপ-আলোচনার পর এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইআইটি বম্বে কর্তৃপক্ষ।

প্রফেসর চৌধুরী তাঁর ফেসবুক পোস্টে লেখেন, “আইআইটি বোম্বের কাছে ছাত্র-ছাত্রীদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। পড়ুয়াদের কথা ভেবেই আমরা এই চলতি সেমেস্টার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিলাম। দেশের মধ্যে প্রথম শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে এই সিদ্ধান্ত নিল আইআইটি বম্বে।”

General information and a special request to all: For IIT Bombay, students are the first priority. We took the first…

Posted by Director, IIT Bombay on Wednesday, June 24, 2020

তিনি আরও বলেন, “বর্তমান পরিস্থিতিতে করোনা অতিমারীর (pandemic) কথা মাথায় রেখে কী ভাবে আগামী সেমেস্টারের পরিকল্পনা করা হবে, সেই বিষয়েও আমাদের চিন্তাভাবনা করতে হবে। এই বিষয়ে দীর্ঘ আলোচনার পর আমরা স্থির করেছি যে আগামী সেমেস্টার সম্পূর্ণ ভাবে অনলাইনেই হবে। যাতে পড়ুয়াদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা বিঘ্নিত না হয়।”

আন্ডার গ্র্যাজুয়েট এবং পোস্ট-গ্র্যাজুয়েট কোর্সের জন্য জুলাই মাস থেকে সেমেস্টার শুরু হবে। আর্থিক ভাবে পিছিয়ে পড়া ছাত্রছাত্রীদের জন্য আর্থিক সহায়তার কথাও এই পোস্টে বলা হয়েছে। তাঁদের জন্য আইটি হার্ডওয়্যার যেমন ল্যাপটপ, ব্রডব্যান্ড সংযোগের ব্যবস্থা করার অনুরোধ করেছেন তিনি।

বোম্বে আইআইটিই দেশের প্রথম বড়ো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যারা গোটা ২০২০-তেই অফলাইন পড়াশোনা বাতিল করে দিল।

দেশ

আতঙ্ক বাড়িয়ে ফের কাঁপল দিল্লি

নয়াদিল্লি: ফের ভূমিকম্প হল রাজধানী দিল্লিতে। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা নাগাদ এই কম্পনের জেরে মানুষের মধ্যে তীব্র আতঙ্ক ছড়ায়। যদিও এই কম্পনের ফলে কোনো হতাহতের খবর নেই।

শুক্রবার এই কম্পনের মাত্রা ছিল ৪.৫। কেন্দ্রস্থল ছিল হরিয়ানার গুরুগ্রাম থেকে ৬৩ কিমি দূরে।

এপ্রিল থেকেই কম্পনের হিড়িক লেগেছে দিল্লি এবং তার আশেপাশের এলাকায়। সব কম্পনই ২ থেকে সাড়ে চার মাত্রার মধ্যে হয়েছে। এই কম্পনের কারণে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়েছে যে আগামী দিনে আরও বড়ো কোনো কম্পন হবে কি না।

তবে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এই ছোটো কম্পনগুলো আসন্ন বড়ো কোনো কম্পনের ইঙ্গিত আদৌ দেয় না।

শুক্রবার ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে ভূমিকম্প হয়েছে। এ দিন সকালে মিজোরামের চাম্ফাইয়ে ৪.৫ মাত্রার একটি কম্পন হয়। এর পর ৪.৪ মাত্রার একটি কম্পন হয় কার্গিলে। পাশাপাশি মহারাষ্ট্রেও এ দিন ৫.২ মাত্রার একটি কম্পন হয়। উৎসস্থল ছিল পুনে থেকে ২২৫ কিমি দূরে বারশিতে।

Continue Reading

দেশ

নাগাল্যান্ডে নিষিদ্ধ হল কুকুরের মাংস

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র চাপের মুখে পড়ে নতি স্বীকার করল নাগাল্যান্ড সরকার। রাজ্যে কুকুরের মাংস বিক্রির ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হল।

শুক্রবার এই বিষয়েই টুইট করে নাগাল্যান্ডের মুখ্যসচিব টেনজেন টয় বলেন, “কুকুরের বাণিজ্যিক রফতানি এবং কুকুরের মাংস বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে রাজ্য সরকার। কাঁচা বা রান্না করা, কোনো ধরনের মাংসই আর বিক্রি করা যাবে না।”

উল্লেখ্য, কিছু দিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল। ছবিতে দেখা যাচ্ছিল যে বস্তায় করে কুকুরদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গ থেকে কুকুরগুলিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন একজন টুইটার ব্যবহারকারী।

এই খবর প্রকাশ্যে আসতে হস্তক্ষেপ করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মানেকা গান্ধীও। কুকুর এ ভাবে আমদানি বা রফতানি বন্ধ করার জন্য নাগাল্যান্ড পুলিশের কাছেও আবেদন করেন মানেকা। এই নিয়ে হইচই শুরু হতেই মাংসের ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারি হল নাগাল্যান্ডে।

উল্লেখ্য, উত্তরপূর্ব ভারতে, বিশেষত নাগাল্যান্ডে কুকুরের মাংস খুবই জনপ্রিয় একটা খাবার। এই মাংস খাওয়ার ব্যাপারে সরকারি কোনো আইনও নেই। এ ছাড়া খরগোশ আর বাঁদরের মাংসও ব্যাপক ভাবে খাওয়া হয় এই সব অঞ্চলে।

Continue Reading

দেশ

রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা, রেল বেসরকারিকরণের প্রতিবাদে ট্রেড ইউনিয়নগুলি

ওয়েবডেস্ক: জাতীয়তাবাদের নামে ‘সরকারের শ্রমিক-বিরোধী, কৃষক-বিরোধী, জনবিরোধী নীতি’র বিরুদ্ধে শুক্রবার সারাদেশে বিক্ষোভ দেখাল কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনগুলি। তারা দিনের শেষে কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপিও জমা দেয়।

স্মারকলিপিতে কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনগুলি সরকারি উদ্যোগের বেসরকারিকরণ, যেমন ভারতীয় রেল, প্রতিরক্ষা, বন্দর ও ডক, কয়লা, এয়ার ইন্ডিয়া, ব্যাঙ্ক, বিমা এবং মহাকাশ বিজ্ঞান ও পারমাণবিক শক্তির বেসরকারিকরণের বিরোধিতা করে। সরকারের এই সিদ্ধান্ত দেশের প্রাকৃতিক সম্পদ এবং ব্যবসা দখল করতে বেসরকারি ও বিদেশি সংস্থাগুলিকে সুবিধা করে দেবে বলে অভিযোগ করা হয়।

সংগঠনগুলির একটি যৌথ বিবৃতিতে দাবি করা হয়, “কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে চরম সংকটে পড়েছে সাধারণ মানুষ। এই পরিস্থিতিতে জরুরিকালীন পদক্ষেপ নেওয়ার পরিবর্তে নিত্যনতুন আইন এবং নির্দেশ জারি করে মানুষকে আরও বিপাকে ফেলা হচ্ছে।”

সংগঠনগুলি দাবি, গত তিনমাসে করোনাভাইরাস লকডাউনের কারণে দেশের ১৪ কোটি কর্মী কাজ হারিয়েছেন। দৈনিক মজুরির, চুক্তিভিত্তিক শ্রমিকদের ধরলে এই সংখ্যাটা ২৪ কোটি ছুঁয়ে ফেলবে।

পথে নামল কোন কোন সংগঠন

শুক্রবার ১০টি কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠন বিক্ষোভ দেখায়। এগুলির মধ্যে ছিল কংগ্রেসের আইএনটিইউসি, বামপন্থী সিআইটিইউ এবং এআইটিইউসি। এ ছাড়া এআইইউটিইউসি, এলপিএফ, এইচএমএস, টিইউসিসি, এসইডব্লিউএ, এআইসিসিটিইউ এবং ইউটিইউসি বিক্ষোভে শামিল হয়। এর আগে গত ২২মে শ্রম আইন পরিবর্তনের বিরোধিতায় প্রতিবাদে শামিল হয়েছিল সংগঠনগুলি।

পড়তে পারেন: যাত্রী ট্রেন চালাতে বেসরকারি সংস্থার কাছ থেকে আবেদন চাইছে রেলমন্ত্রক

Continue Reading
Advertisement

নজরে