ন্যাশনাল হেরাল্ডকে আটকেছিল ব্রিটিশরা, আর এখন ইডি-কে কাজে লাগাচ্ছে মোদী সরকার: সুরজেওয়ালা

নয়াদিল্লি: ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলায় আর্থিক দুর্নীতির মামলায় সনিয়া গান্ধী (Sonia Gandhi) ও রাহুল গান্ধীকে (Rahul Gandhi) সমন পাঠাল ইডি (ED)। বুধবার এই তথ্য প্রকাশ্যে আসার পরই তোলপাড় দেশের রাজনীতি।

কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, রাহুলকে ২ জুন এবং সনিয়াকে ৮ জুন ইডি-র সামনে হাজিরা দেওয়ার নোটিশ পাঠানো হয়েছে। এর পরই কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপি-র বিরুদ্ধে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার অভিযোগ তুলেছে কংগ্রেস।

ন্যাশনাল হেরাল্ড এবং কংগ্রেস

প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরু প্রতিষ্ঠা করেন ন্যাশনাল হেরাল্ড সংবাদপত্রের। ১৯৩৮ সালে ৯ সেপ্টেম্বর পথ চলা শুরু। স্বাধীনতা সংগ্রামে বড়ো ভূমিকা নিয়েছিল এই সংবাদপত্র। ১৯৪২-এর ‘ভারত ছাড়ো’ আন্দোলনের সময় সংবাদপত্রটিকে নিষিদ্ধ করে ব্রিটিশ সরকার।

২০০৮ সালে সংবাদপত্রটির প্রকাশনা বন্ধ হয়ে যায়। সেই অবস্থাতেই সংস্থাটি অধিগ্রহণ করে সনিয়া, রাহুল এবং শীর্ষস্থানীয় কংগ্রেস নেতাদের ‘ইয়ং ইন্ডিয়ান প্রাইভেট লিমিটেড’ সংস্থা। যার পর ন্যাশনাল হেরাল্ডের কয়েক হাজার কোটি টাকার সম্পত্তি ইয়ং ইন্ডিয়ানের দখলে চলে আসে। ৯০ কোটি টাকা দেনার বোঝাও চাপে তাদের ঘাড়ে। তবে কেন্দ্রের কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সরকার সেই ঋণের টাকা মকুব করে দেয় বলে অভিযোগ। এই সংবাদপত্রটিতে যেহেতু কংগ্রেস নেতৃত্বের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রিত, তাই বেআইনি ভাবে সুবিধা দেওয়া-নেওয়ার অভিযোগ ওঠে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে চালু হয় সংবাদপত্রটির ডিজিটাল সংস্করণ। কিন্তু তার আগেই, ২০১৪ সালে কেন্দ্রের ক্ষমতা পরিবর্তনের পর বিষয়টি নিয়ে নতুন করে জলঘোলা শুরু হয়।

ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলা

এই মামলায় ইতিমধ্যেই প্রবীণ কংগ্রেস নেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে এবং পবন বনসলকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। এ বার সমন পেলেন সনিয়া-রাহুল। কংগ্রেসের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, “এটা পুরোপুরি প্রতিহিংসার রাজনীতি। আমরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে এর মোকাবিলা করব”।

বিজেপি-কে নিশানায় রেখে কংগ্রেস নেতা রণদীপ সুরজেওয়ালা এ দিন বলেন, “১৯৪২ সালে ন্যাশনাল হেরাল্ডকে বন্ধ করে দিয়েছিল ব্রিটিশরা। সে সময় ব্রিটিশরা এই সংবাদপত্রকে দমন করার চেষ্টা করেছিল। আজ মোদী সরকারও তাই করছে এবং এর জন্য ইডি-কে ব্যবহার করা হচ্ছে”।

ইডি-র নোটিশে কংগ্রেসের অফিসিয়াল অ্যাকাউন্ট থেকে একটি টুইট করা হয়েছে। যেখানে লেখা হয়েছে, “কংগ্রেস যখন ব্রিটিশ শাসনের নৃশংসতায় ভয় পায়নি, তখন ইডি-র নোটিশেও কংগ্রেসের সাহস চিড় ধরবে না। আমরা লড়ব…আমরা জিতব…আমরা মাথা নত করব না…ভয় পাব না”।

আরও পড়তে পারেন:

এ বার সনিয়া-রাহুলকে ইডি-র সমন, বেআইনি অর্থ লেনদেন মামলায় হাজিরার নির্দেশ

চাকরির আবেদনই করেননি, এমন প্রার্থীর নামে সুপারিশ! এসএসসি গ্রুপ সি নিয়োগ দুর্নীতিতে চাঞ্চল্যকর তথ্য

বাণিজ্যিক সিলিন্ডারের দাম ছাঁটাই, আজ থেকে এতটাই হল সস্তা হল এলপিজি

শোকস্তব্ধ প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রী, কলকাতায় এসে কেকে-র দেহ শনাক্ত করলেন স্ত্রী

হম রহে ইয়া না রহে কল… জীবনের প্রথম অ্যালবামের গান ছুঁয়ে গেল কেকে-র শেষ অনুষ্ঠানে, দেখুন ভিডিয়োয়

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন