নয়াদিল্লি: ভারতের সব মানুষের জন্য স্যাটেলাইট ফোন পরিষেবা চালু করবে বিএসএনএল। তবে এই পরিষেবা চালু হতে এখনও বছর দুয়েক সময় লাগবে। তবে এই পরিষেবা চালু হয়ে গেলে, তা কাজ করবে দেশের যে কোনো প্রান্তে। এমনকি বিমানে এবং জাহাজেও। যে কোনো রকম প্রাকৃতিক বিপর্যয়েও সচল থাকবে এই পরিষেবা।

বিএসএনএল-এর চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর অনুপম শ্রীবাস্তব এদিন বলেন, “আমরা আন্তর্জাতিক উপকূলবিষয়ক সংস্থার(ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম অর্গানাইজেশন) কাছে আবেদন করেছি। গোটা প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ হতে ১৮-২৪ মাস সময় লাগবে। তারপর আমরা ধাপে ধাপে দেশের মানুষের কাছে স্যাটেলাইট ফোন পরিষেবা পৌঁছে দেব”।

পৃথিবীর ৩৫,৭০০কিমি উপরে অবস্থিত উপগ্রহদের থেকে সিগনাল পাবে এই ফোন। তাই দেশের য়ে কোনো প্রান্তে, বিমানে কিংবা জাহাজেও সিগনাল পাওয়া যাবে।

আমরা এখন যে মোবাইল নেটওয়ার্ক ব্যবহার করি, তা টাওয়ারের চারপাশে ২৫-৩০কিমির মধ্যে কাজ করে। টাওয়ারের সমান উচ্চতায় বা তার নীচেই সিগন্যাল পাঠানো সম্ভব হয়।

INMARSAT পরিষেবার দ্বারা বিএসএনএল স্যাটেলাইট ফোন পরিষেবা চালু করেছে। ১৪টি স্যাটেলাইটের মাধ্যমে এই পরিষেবা দেওয়া হবে। প্রথম ধাপে পরিষেবা দেওয়া হবে কেবলমাত্র সরকারের বিভিন্ন এজেন্সিকে। তারপর তা জনগণের মধ্যে প্রসারিত করা হবে।

যে সরকারি সংস্থাগুলি প্রথমে এই পরিষেবা পাবে, তাদের মধ্যে রয়েছে পুলিশ, রেল, বিএসএফ, প্রাকৃতিক বিপর্যয় মোকাবিলাকারী সংস্থাগুলি।

বিএসএনএল চেয়ারম্যানের কথায়,”ভারতে মোট স্যাটেলাইট ব্যবহারকারীর সংখ্যা খুই কম। কিন্তু যখনই আমরা সমস্ত মানুষের কাছে এই পরিষেবা পৌঁছে দেব, তখন পরিস্থিতির আমূল পরিবর্তন হয়ে যাবে। কারণ স্যাটেলাইট সংস্থা আমাদের থেকে যে অর্থ নেবে, আমরা উপভোক্তাদের থেকে মাত্র তার ১ টাকা বেশি নেব”।

প্রথম পর্যায়ে, যখন দেশে ৪৬০০টি ফোন কানেকশন থাকবে, তখন কল পিছু খরচ হবে ৩৫-৪০ টাকা। কিন্তু সেটা যখন সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়া হবে, তখন সেই খরচ ব্যাপক ভাবে কমে যাবে। একই কথা প্রযোজ্য হ্যান্ডসেটের ক্ষেত্রেও। বর্তমানে এই ফোন আমদানি করতে হয়, ফোনের দাম পড়ে ৪০হাজার টাকা বা তারও বেশি। কিন্তু, ব্যাপুক মানুষ এটা ব্যবহার করা শুরু করলে, হ্যান্ডসেটের দামও কমতে বাধ্য হবে এবং বিভিন্ন বিদেশি সংস্থা এদেশে কারখানা খুলেও ফোন তৈরি শুরু করে দিতে পারে, মত বিএসএনএল কর্তৃপক্ষের।

ভারতে স্যাটেলাইট ফোন পরিষেবা টাটা কমিউনিকেশন দিয়ে থাকে। তারা এটা পেয়েছিল বিদেশে সঞ্চার নিগম লিমিটেডের থেকে। চলতি বছরের ৩০ জুনের মধ্যে এই গোটা পরিষেবাটি দিতে শুরু করবে বিএসএনএল।

ভারতে এই মুহূর্তে ১৫৩২টি স্যাটেলাইট ফোন কানেকশন আছে। যার বেশিরভাগটিই প্রতিরক্ষা বাহিনীর কাছে। এছাড়া জাহাজে ব্যবহারের জন্য ৪,১৪৩টি পারমিট সম্প্রতি দিয়েছে টিসিএল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here