৫ রাজ্যের বিধানসভা ভোটের আগে কেন্দ্রীয় বাজেট ২০২২, ছুঁয়ে যাবে মূল রাজনৈতিক সমস্যা

0

নয়াদিল্লি: মঙ্গলবার (১ ফেব্রুয়ারি) কেন্দ্রীয় বাজেট ২০২২ (Union Budget 2022) পেশ হচ্ছে সংসদে। ২০১৪ সালে কেন্দ্রের ক্ষমতায় আসার পর থেকে এটা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সরকারের দশম বাজেট এবং কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমনের চতুর্থ বাজেট পেশ।

ভোটের আগে কেন্দ্রীয় বাজেট

উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, পঞ্জাব, মণিপুর এবং গোয়া বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম দফার ভোটগ্রহণের মাত্র কয়েকদিন আগে পেশ হচ্ছে কেন্দ্রীয় বাজেট ২০২২। ফলে এ বারের কেন্দ্রীয় বাজেট সম্ভবত ছুঁয়ে যেতে পারে এমন কিছু মূল রাজনৈতিক সমস্যা, বিশেষ করে যেগুলো উত্তরপ্রদেশ এবং পঞ্জাবের মতো বড়ো রাজ্যগুলির সঙ্গে সম্পর্কিত।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এই পাঁচটি রাজ্য মোট ৬৯০ জন বিধায়ক এবং ১৪৫ জন সাংসদকে (লোকসভায় ১০২ এবং রাজ্যসভায় ৪৩ জন) নির্বাচন করে। অন্য দিকে, সাম্প্রতিক অতীতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সবচেয়ে বড়ো সংস্কারগুলি নিয়ে কড়া প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে পঞ্জাব এবং উত্তরপ্রদেশ।

অর্থনৈতিক সমীক্ষা

আগের মতোই বাজেটের এক দিন আগে সংসদে অর্থনৈতিক সমীক্ষাও পেশ করেছে কেন্দ্র। এ বছর বাজেট এমন একটি সময়ে পেশ করা হচ্ছে, যখন ভারতীয় অর্থনীতি কোভিড -১৯ মহামারির কবলে পড়ার পরে পুনরুদ্ধারের পথে এগিয়ে চলেছে।

সোমবার দেশের অর্থনৈতিক সমীক্ষা রিপোর্ট পেশ করে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী জানান, পর্যালোচনায় চলতি বছরের এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া অর্থবছরে (২০২৩) বৃদ্ধির হার ধরা হয়েছে ৮ থেকে ৮.৫ শতাংশ। যা চলতি বছরে ৯.২ শতাংশ পর্যন্ত প্রসারিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এমনটাই অনুমান করা হয়েছে জাতীয় পরিসংখ্যান অফিস (NSO)-র পর্যালোচনায়।

রাষ্ট্রপতির ভাষণ

৩১ জানুয়ারি সংসদের উভয় কক্ষের যৌথ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণ দিয়ে শুরু হয় এ বারের বাজেট অধিবেশন।

সোমবার করোনা অতিমারির কথা উল্লেখ করে প্রথম সারির যোদ্ধাদের ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রপতি। এ ছাড়া টোকিও অলিম্পিকে ভারতের তরুণ তুর্কীদের দক্ষতার প্রশংসা, তালাক প্রথার বিলোপ, জাতীয় শিক্ষানীতি, জম্মু ও কাশ্মীর প্রসঙ্গ-সহ অর্থনৈতিক বৃদ্ধি সংক্রান্ত একাধিক বিষয় উঠে আসে তাঁর বক্তৃতায়।

মিষ্টি বিতরণ

বাজেটের গোপনীয়তা বজায় রাখতে বাজেট প্রণয়নের সঙ্গে জড়িত কর্মী-আধিকারিকদের ‘রুদ্ধদ্বারে’ রাখা হয়। সংসদে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বাজেট পেশ করার পরেই ওই আধিকারিক এবং কর্মীদের নিজের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের অনুমতি মেলে। বাজেট তৈরির সূচনায় তাঁদের নিয়ে আয়োজিত হয় ‘হালুয়া অনুষ্ঠান’। অর্থমন্ত্রী-সহ মন্ত্রকের আধিকারিকরা এই বিশেষ অনুষ্ঠানে অংশ নেন ওই অনুষ্ঠানে। তবে কোভিডের কারণে তা স্থগিত রয়েছে। পরিবর্তে তাঁদের মধ্যে মিষ্টি বিতরণ করেন অর্থমন্ত্রী।

প্রথম পর্ব

প্রথম পর্বের অধিবেশন শুরু ৩১ জানুয়ারি। শুরুর দিন সংসদের উভয়কক্ষের যৌথ অধিবেশনে বক্তৃতা রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের। এই পর্বে ১ ফেব্রুয়ারি সাধারণ বাজেট পেশ করছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। অধিবেশনের প্রথম অংশ ১১ ফেব্রুয়ারি শেষ হবে।

দ্বিতীয় পর্ব

প্রথম পর্বের পর প্রায় এক মাসব্যাপী অবকাশের পর অধিবেশনের দ্বিতীয় অংশটি শুরু হবে। সংসদ বিষয়ক মন্ত্রীসভা কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী, দ্বিতীয় পর্ব চলবে ১৪ মার্চ থেকে ৮ এপ্রিল পর্যন্ত।

কাগজবিহীন বাজেট

করোনা সংক্রমণের আবহে গত বছরের বাজেট প্রথমবারের জন্য কাগজবিহীন আকারে পেশ করা হয়েছিল। ডিজিটাল সুবিধার সহজতম পদ্ধতি ব্যবহার করে “ইউনিয়ন বাজেট মোবাইল অ্যাপ” চালু করেছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। তাতে সংসদ সদস্য এবং সাধারণের কাছে সহজেই পৌঁছে গিয়েছিল বাজেট নথি।

জিডিপি-র পূর্বাভাস

চলতি অর্থবছরের জন্য জিডিপি বৃদ্ধির পূর্বাভাস ৯.৫ শতাংশে ধরে রেখেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। কিন্তু সতর্ক করে দিয়ে বলা হয়েছে, অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার এখনও স্বয়ংসম্পূর্ণ এবং টেকসই হওয়ার মতো যথেষ্ট শক্তিশালী নয়। ফলে অনুমানের সঙ্গে জি়ডিপি বৃদ্ধির বাস্তব হারে কতটা মিল থাকবে, সেটা জানার জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

আরও পড়তে পারেন:

কেন্দ্রীয় বাজেট ২০২২: কৃষকদের আয় বাড়ানোর কোনো পদক্ষেপ নেবে কি কেন্দ্র?

বেশ কিছু কর ছাড়ের সুবিধা বাতিলের সম্ভাবনা এ বারের কেন্দ্রীয় বাজেটে, বলছে রিপোর্ট

বাজেট ২০২২: বোঝা লাঘবে বেতনভুক করদাতারা কী ধরনের প্রত্যাশা করছেন

কেন্দ্রীয় বাজেট ২০২২: গ্রামোন্নয়নে ই-পঞ্চায়েতে জোর দিতে পারে কেন্দ্র

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন