Piyush Goyal

ওয়েবডেস্ক: আজ শুক্রবার লোকসভায় বাজেট অধিবেশনের দ্বিতীয় দিনে পেশ হল ভোট অন অ্যাকাউন্ট। এটা লোকসভা নির্বাচনের বছর। কয়েক মাসের মধ্যে আসছে লোকসভা ভোট। তাই নিয়ম অনুযায়ী এ বারের বাজেট হল ভোট অন অ্যাকাউন্ট বা অন্তর্বর্তী বাজেট, পরবর্তী আর্থিক বছরের প্রথম চার মাসের অত‍্যাবশ‍্যকীয় ব‍্যয় নির্বাহের জন্য। ভোট অন অ্যাকাউন্ট পেশ করলেন আপাতত অর্থ দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী পীযূষ গয়াল। ভোট অন অ্যাকাউন্টের আপডেটগুলি দেখে নিন।

বাজেট লাইভ


— মুদ্রা যোজনায় ১৫ হাজার কোটি টাকা ঋণ।

—ব্যাঙ্ক, ডাকঘর থেকে বার্ষিক ৪০ হাজার টাকা পর্যন্ত সুদ হল আয়করমুক্ত।

— স্ট্যান্ডার্ড ডিডাকশন ৪০ হাজার থেকে বেড়ে ৫০ হাজার।

— ৫ লক্ষ টাকা আয় পর্যন্ত কর ছাড়। ৮০সিতে ছাড় আরও দেড় লক্ষ টাকা। বছরে মোট সাড়ে ছ’লক্ষ টাকা পর্যন্ত করমুক্ত।

— তফশিলি জাতি, উপজাতিদের জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধি। ৭৬ হাজার ৮০০ কোটি টাকা বরাদ্দ।

— দেশকে দূষণমুক্ত করতে, বিদ্যুৎচালিত যান চালানো হবে।

— প্রত্যক্ষ কর আদায় হয়েছে ১২ লক্ষ কোটি টাকা।

— মহাকাশ গবেষণায় জোর কেন্দ্রের। ২০২২-এর মধ্যে মহাকাশে লোক পাঠানো হবে।

— প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ ভুয়ো কম্পানি ধরা পড়েছে।

— প্রধানমন্ত্রী মুদ্রা যোজনায় ঋণ দেওয়া হবে ১৫ লক্ষ কোটি টাকা।

— উজ্জ্বলা প্রকল্পে রান্নার গ্যাস পাবেন ৮ কোটি মানুষ। ইতিমধ্যে পেয়েছেন ৬ কোটি।

— ৪০ লক্ষ টাকার টার্নওভারে জিএসটি নেই।

— ২১ হাজার আয়ের শিল্প শ্রমিকদের বোনাস দ্বিগুণ।

— আয়কর থেকে আয় হয়েছে ১২ লক্ষ কোটি টাকা। এই সাফল্যকে ধরে রাখাবে সরকার, জানালেন পীযূষ।

—গ্র্যাচুয়িটির সীমা ১০ লক্ষ থেকে বেড়ে ২০ লক্ষ হল। শ্রমিকদের পিপিএফের অংক আড়াই লক্ষ থেকে বেড়ে হল ছ’লক্ষ টাকা।

— পশুপালনে ৭৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ।

— বাড়ল না আয়কর ছাড়ের ঊর্ধ্বসীমা।

— আগামী পাঁচ বছরে এক লক্ষ ডিজিটাল গ্রাম তৈরি হবে।

— ঝুঁকিপূর্ণ জায়গায় থাকা সেনাদের ভাতা বাড়ানো হয়েছে।

— প্রতিরক্ষা খাতে বরাদ্দ তিন কোটি।

ছোটো এবং প্রান্তিক কৃষকের অ্যাকাউন্টে বছরে ৬০০০ টাকা সরাসরি ট্রান্সফার। ছোট এবং প্রান্তিক কৃষককে আর্থিক ভাবে সাহায্য করতে চালু হবে ‘প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান যোজনা’। এই যোজনায় ২ হেক্টর পর্যন্ত জমির মালিক কৃষককে বছরে ৬০০০ টাকা সরাসরি দেওয়া হবে সরাসরি তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে। মোট তিনটি পর্বে দেওয়া হবে এই অনুদান। এই প্রকল্পে উপকৃত হবেন দেশের ১২ কোটি কৃষক। এই খাতে বরাদ্দ হয়েছে ৭০ হাজার কোটি টাকা।

২০২১-এর মধ্যে সকলের বিদ্যুৎ সং‌যোগ।

কর-কাঠামো উন্নত এবং স্বচ্ছ হয়েছে

১০ শতাশেরও বেশি মূল্যবৃদ্ধির হার কমেছে।

রাজস্ব ঘাটতি জিডিপি-র ২.৫ শতাংশ।

গরিবদের জন্ট ১০ শতাংশ সংরক্ষণ করা হয়েছে।

সকাল ১১টা– বাজেট ভাষণ শুরু করলেন অন্তর্বর্তী অর্থমন্ত্রী পিযুষ গোয়েল। শুরুতে বললেন, কৃষকদের আয় বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে, দুর্নীতি কমেছে।

সকাল ১০টা : বাজেট ব্রিফকেস নিয়ে সংসদে পৌঁছলেন অন্তর্বতী অর্থমন্ত্রী পিযুষ গোয়েল। মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর তিনি বাজেট পেশ করবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here