by-election counting

ওয়েবডেস্ক: লোকসভার চার কেন্দ্রে এবং দেশ জুড়ে বিধানসভার দশ কেন্দ্রের উপনির্বাচনে ভোটগণনা শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার সকালে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য লড়াই হচ্ছে পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের কৈরানা কেন্দ্রে। এখানে বিজেপি প্রার্থী মৃগাঙ্ক সিং-এর বিরুদ্ধে বিরোধী দলগুলি সম্মিলিত ভাবে লড়ছে। তাদের প্রার্থী আরএলডি-র তবসুম বেগম। লোকসভার বাকি যে তিনটি কেন্দ্রে উপনির্বাচন হয়েছে সেগুলি হল মহারাষ্ট্রের পালঘর ও ভান্ডারা-গোন্ডিয়া এবং নাগাল্যান্ড। যে দশটি বিধানসভা কেন্দ্রে ভোট নেওয়া হয়েছে সেগুলি হল মহেশতলা (পশ্চিমবঙ্গ), নুরপুর (উত্তরপ্রদেশ), জোকিহাট (বিহার), থারালি (উত্তরাখণ্ড), গোমিয়া ও সিলি (ঝাড়খণ্ড), আমপাতি (মেঘালয়), আর আর নগর (কর্নাটক), শাহকোট (পঞ্জাব) এবং চেঙ্গানুর (কেরল)।


দেখে নিন লাইভ আপডেট

 

৫.৫৫–কইরানায় আরএলডি প্রার্থী তামাসুম হাসানকে বিজয়ী ঘোষণা করা হল।

৩.১৫–উত্তরপ্রদেশের কইরানা লোকসভায় ৪৯,২৯১ ভোটে এগিয়ে গেলেন আরএলডি প্রার্থী।

২.২০–উত্তরাখণ্ডের থা্রালি বিধানসভার উপনির্বাচনে জিতেলন বিজেপি প্রার্থী মুন্নিদেবী শাহ।

১.৫৮–৬২,৮৯৬ ভোটের ব্যবধানে মহেশতলা কেন্দ্রে জয়ী হলেন তৃণমূল প্রার্থী দুলাল দাস।

দুপুর ১.২৪ — ১ লক্ষ চার হাজারেরও বেশি ভোট পেয়ে মহেশতলা থেকে জিতলেন তৃণমূল প্রার্থী দুলালচন্দ্র দাস। ঝাড়খণ্ডের সিলি কেন্দ্র থেকে ১৩ হাজারেরও বেশি ভোটে জিতলেন ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা প্রার্থী। কৈরানা লোকসভা কেন্দ্র থেকে বড়োসড়ো ব্যবধানে জেতার পথে  সম্মিলিত বিরোধী প্রার্থী আরএলডি-র তবসুম বেগম।

১২.৫৫ — উত্তরপ্রদেশের নুরপুর কেন্দ্রে ৬০০০ ভোটে জিতেছেন সপা প্রার্থী।

১২.৫০ — ৭৬ হাজার ভোটে জেডি(ইউ) প্রার্থীকে দুরমুশ করে বিহারের জোকিহাট কেন্দ্রে জিতলেন আরজেডি প্রার্থী শাহনওয়াজ আলম। কর্নাটকের আর আর নগর থেকে ৪৩ হাজারেরও বেশি ভোটে জিতলেন কংগ্রেস প্রার্থী এন মুনিরত্ন। উত্তরাখণ্ডের থারালি কেন্দ্রে এগিয়ে আছে কংগ্রেস।

১২.৩০ — মহেশতলায় ১৭ রাউন্ড গণনার পর তৃণমূল প্রার্থী দুলালচন্দ্র দাস পেয়েছেন ৮৯৩১৮ ভোট, দ্বিতীয় স্থানে বিজেপি, পেয়েছে ৩৩৭৩৭ ভোট এবং তৃতীয় স্থানে সিপিএম, পেয়েছে ২৫২৬২ ভোট।

১২.২০ — কৈরানায় সম্মিলিত বিরোধী প্রার্থী এগিয়ে। মহারাষ্ট্রের পালঘরে বিজেপি এগিয়ে থাকলেও ভান্ডারা-গোন্ডিয়া পিছিয়ে। মহেশতলায় তৃণমূল প্রার্থী বিপুল ভোটে এগিয়ে। বিহারের জোকিহাটে লালুপ্রসাদের আরজেডি এগিয়ে। কেরলের চেঙ্গানুর ও মেঘালয়ের আমপাতি দখল করেছে যথাক্রমে সিপিএম ও কংগ্রেস।

১১.৪০ — ১১ রাউন্ড গণনার পর কৈরানায় আরএলডি প্রার্থী ৪২ হাজার ভোটে এগিয়ে। মহেশতলায় তৃণমূল কংগ্রেসের দুলাল চন্দ্র দাস ২০ হাজারেরও বেশি ভোটে এগিয়ে।

১১.২৩ — শাসক বিজেপি জোটের প্রার্থীকে হারিয়ে কংগ্রেসের মিয়ানি ডি শিরা জিতলেন মেঘালয়ের আমপাতি কেন্দ্র থেকে। শিরা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মুকুল শর্মার মেয়ে। মেঘালয় বিধানসভায় কংগ্রেসের আসন সংখ্যা দাঁড়াল ২১।

১০.৪০ — বিহারের জোকিহাটে এগিয়ে গিয়েছে আরজেডি। আপাতত লিড ৩০২৬ ভোট।

১০.৩২ — লোকসভা ও বিধানসভা মিলিয়ে যে ১৪টি কেন্দ্রে গণনা চলছে, তার মধ্যে ১১টির ফল জানা যাচ্ছে। ২টিতে এগিয়ে বিজেপি। কংগ্রেস এগিয়ে ৪টিতে এবং অন্যরা এগিয়ে ৫টিতে।

১০.১৮ — কৈরানায় আরএলডি ১০ হাজার, কেরলের চেঙ্গানুরে সিপিএম প্রাহ ৪ হাজার, মহেশতলায় তৃণমূল ২০ হাজারেরও বেশি ভোটে, ভান্ডারা- গোন্ডিয়ায় এনসিপি ৩ হাজার ভোটে এগিয়ে।

১০.০৪ — মহেশতলায় তৃণমূল এগিয়ে ৭ হাজার ভোটে।

১০.০৩ — লোকসভা ও বিধানসভা মিলিয়ে যে ১৪টি কেন্দ্রে গণনা চলছে, তার মধ্যে ১টিতে এগিয়ে বিজেপি। সেটি মহারাষ্ট্রের পালঘর লোকসভা কেন্দ্র। বাদবাকি দশটির মধ্যে কংগ্রেস এগিয়ে ৪টিতে এবং অন্যরা এগিয়ে ৬টিতে।

৯.৪৭ — জোকিহাটে জনতা দল (ইউ), আমপাতিতে কংগ্রেস, শাহকোটে কংগ্রেস, নুরপুরে সপা এগিয়ে।

৯.৪২ — কৈরানায় এগিয়ে আরএলডি। প্রাপ্ত ভোট ১৩৩০১। বিজেপি প্রার্থী ৯৯১৬।

— কৈরানায় এগিয়ে বিজেপি।

— মহেশতলায় ১০ হাজার ভোটে এগিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস।

— পালঘরে (লোকসভা) বিজেপি এগিয়ে। বিধানসভা কেন্দ্রগুলির মধ্যে চেঙ্গানুরে সিপিএম, নুরপুরে সপা, জোকিহাটে আরজেডি, এগিয়ে রয়েছে। বিহারের  জোকিহাট জনতা দল (ইউ)-এর হাতে ছিল।

— পালুস- কাড়েগাঁও-এ কংগ্রেস বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে গিয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here