minor pregnant girl abortion

ওয়েবডেস্ক: মায়ের সঙ্গে ঝগড়া করে এ বছরের ৩১ মার্চ ঘর ছেড়ে পালিয়ে ছিল কিশোরীটি। অবিভাবক মেয়েকে খোঁজার জন্য উচ্চ আদালতে পিটিশন দাখিল করার পর তাকে পাওয়া যায় উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরের নরৌরা গ্রাম থেকে। প্রথমে সে পরিবারের সঙ্গে বাড়ি ফিরে যেতে চাইনি। ফলে তাকে রাখা হয় প্রয়াস জুভেনাইল এড সেন্টারে। এর পর গত মাসের ২৭ নভেম্বর পুলিশ গ্রেফতার করে সেই যুবককে, মেয়েটি যার হাত ধরে ঘর ছেড়েছিল। বর্তমানে কিশোরীটি চার মাসের অন্ত‌ঃসত্ত্বা।

গত ১৩ ডিসেম্বর অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্স (এইমস)-এর দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের সামনে কিশোরী জানায়, ‘আমি গর্ভপাত করাতে চাই না। বিবাহের কারণেই আমি অন্ত‌ঃসত্ত্বা হয়েছি।’

কিন্তু কিছু দিন পরেই সে বাড়ি ফিরে যাওয়ার কথা জানায়। এর পর তার বাবা দিল্লি হাই কোর্টে আবেদন জানান, এই বয়সে গর্ভপাত করানো সম্ভব কি না, তা খতিয়ে দেখার জন্য।

গত কাল কিশোরীটিকে আদালতে নিয়ে আসা হলে বিচারক তার সঙ্গে আলাদা করে কথা বলেন। সেখানে সে জানায়, আগামী দিনে সে পড়াশোনা করতে চায়। ফলে সামগ্রিক পরিস্থিতির কথা পুনর্বিবেচনা করে সে  গর্ভপাতে রাজি আছে। কিন্তু আদালত তার কথার মধ্যে বার বার মত বদলের ইঙ্গিত খুঁজে পেয়ে ধন্দে পড়ে যায়। চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটিকে সে বলেছিল বাড়ি ফিরবে না। এইমস-কে বলেছিল, গর্ভপাত করাতে চায় না। আবার আদালতে বলছে, সে গর্ভপাতে রাজি আছে।

আজ সেই ধন্দ কাটিয়ে মেয়েটির তরফে আদালতকে লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে, সে গর্ভপাতে ইচ্ছুক। এর পরই আদালত এইমস-কে নির্দেশ দেয়, আগামী ২২ ডিসেম্বরের মধ্যে জানাতে হবে, ১৫ বছর বয়সে গর্ভপাত করানো নিরাপদ কি না?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here