ryan international school

নয়াদিল্লি শিক্ষক এবং অশিক্ষক কর্মচারী-সহ স্কুলের সব ধরনের কর্মচারীর ‘সাইকোমেট্রিক ইভ্যালুয়েশন’ করার নির্দেশ দিল সিবিএসই। নিজেদের অনুমোদিত স্কুলগুলিতে এই সার্কুলার পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় বোর্ড। আগামী দু’ মাসের মধ্যে পেশাদার মনোবিদদের দিয়ে এই পরীক্ষা নিতে হবে।

এক জন কর্মচারী তাঁর ভূমিকায় কতটা দক্ষ তা মাপাই হচ্ছে ‘সাইকোমেট্রিক ইভ্যালুয়েশন’। এতে ওই কর্মচারীর দক্ষতা, কুশলতা, তাঁর ব্যক্তিগত চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য ধরা পড়ে।

গুরগাঁওয়ের রায়ান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে বাস কন্ডাক্টরের হাতে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র খুন হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ছাত্রছাত্রীদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার জন্য স্কুল বোর্ড নতুন গাইডলাইন দিয়ে এই সার্কুলার জারি করেছে।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, “বাস ড্রাইভার, কন্ডাক্টর, পিওন-সহ স্কুলের বিভিন্ন কাজে নিয়োজিত কর্মচারীদের এই পরীক্ষা ও মূল্যায়ন খুব সতর্কতার সঙ্গে বিশদে করতে হবে। এই সার্কুলার পাওয়ার দু’ মাসের মধ্যে এই পরীক্ষা করতে হবে এবং সিবিএসই ওয়েবসাইটে অনলাইন রিপোর্ট করতে হবে।”

সিবিএসই-র অধীনে সারা দেশে ১৯৩১৬টি স্কুল আছে, বিদেশে আছে ২৫টি। এর মধ্যে ১১১৮টি কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়, ২৭৩৪টি সরকারি/সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুল, ১৪৮৬০টি স্বাধীন স্কুল, ৫৯০টি জওহর নবোদয় বিদ্যালয় এবং ১৪টি কেন্দ্রীয় তিব্বতি স্কুল।

আগামী দু’ মাসের মধ্যে স্থানীয় থানার সাহায্যে সবক’টি স্কুলের চত্বরের এবং তাদের সব কর্মীর ‘সিকিউরিটি ও সেফটি অডিট’ করারও নির্দেশ দিয়েছে সিবিএসই।

বোর্ড বলেছে, “স্কুলচত্বরে শিশুদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তার দায়িত্ব সম্পূর্ণ রূপে স্কুল কর্তৃপক্ষের ওপর বর্তায়। এমন একটি পরিবেশে থাকা এবং পড়াশোনা করা শিশুর মৌলিক অধিকার, যে পরিবেশে সে নিরাপদ অনুভব করবে এবং যেখানে কোনো রকম শারীরিক বা মানসিক নিগ্রহ বা হয়রানি হবে না।”

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন