BJP leader Janardhana Reddy with sushma swaraj
ফাইলছবি

ওয়েবডেস্ক: কর্নাটকে উপনির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর দিনই সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্র্যাঞ্চ (সিসিবি) হানা দিল রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা জনার্দন রেড্ডির বাড়িতে। তাঁর বিরুদ্ধে চিট ফান্ডের নামে বেআইনি ভাবে টাকা তোলার অভিযোগ রয়েছে। জানা গিয়েছেন, রেড্ডির বাড়ির দেওয়ালের চাঙড় সরিয়ে লকারের হদিশ পেয়েছেন গোয়েন্দারা। একই সঙ্গে তাঁর শাগরেদ আলি খানের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার হয়েছে বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র।

সিসিবি রেড্ডি এবং আলির বিরুদ্ধে তল্লাশি অভিযানে নেমেছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত তাঁদের কোনো হদিশ মেলেনি। গোয়েন্দা সংস্থার দাবি, বাজার থেকে বেআইনি ভাবে ১৮ কোটি টাকা লেনদেনের একটি মামলায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিশ জারি করা হয়েছে। একই সঙ্গে সিসিবির উচ্চপদস্থ কর্তাদের দাবি, জনার্দন রেড্ডি হয়তো বা দেশ ছেড়ে পালিয়ে যেতে পারেন। তবে হদিশ মিললেই তাঁকে জেরা করা হবে।

BJP leader Janardhana Reddy with sushma swaraj

একটি চিটফান্ড মালিককে এনফোর্সমেন্ট ডিপার্টমেন্টের হাত থেকে বাঁচাতে জনার্দনের বিরুদ্ধে ঘুষ বিনিময়ের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ, তিনি ইডির একাংশের আধিকারিককে ঘুষ দিয়ে ওই চিটফান্ড মালিককে বাঁচানোর চেষ্টা করেছেন। পাশাপাশি আয়কর বিভাগও এই আর্থিক প্রতারণা কাণ্ডের তদন্ত চালাচ্ছে।

কংগ্রেস-জেডিএস জোটের কাছে বিজেপির রেড্ডি ব্রাদার্স সাম্রাজ্যের পতন

উল্লেখ্য, দু’বছর আগে নোটবন্দির ঠিক পর দিন নিজের মেয়ের বিয়েতে লাগামছাড়া টাকা খরচ করে বিতর্কে জড়়ান। জানা যায়, ওই বিয়ের অনুষ্ঠানে অতিথির সংখ্যা ছিল ৫০ হাজার। সব মিলিয়ে খরচ হয়েছিল ৫০০ কোটি টাকা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here