ceasefire in j&k

ওয়েবডেস্ক: রমজান মাসে জম্মু-কাশ্মীরে শর্তাধীন অস্ত্রবিরতি ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের এই ঘোষণায় খুশি হয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি।

বুধবার কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এক বিবৃতি জারি করে বলা হয়েছে, যে সব শক্তি বেলাগাম হিংসা আর সন্ত্রাস সৃষ্টি করে ইসলামের বদনাম করে তাদের বিচ্ছিন্ন করা খুবই দরকার। অস্ত্রবিরতি ঘোষণায় সবাই সহযোগিতা করবেন বলে বিবৃতিতে আশা প্রকাশ করা হয়েছে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, সরকারের এই উদ্যোগে মুসলিম ভাইবোনেরা শান্তিতে এবং কোনো রকম বিঘ্ন ছাড়াই রমজান পালন করতে পারবেন বলে তাদের আশা।

কাশ্মীর উপত্যকায় আগামী ৩০ দিন কোনো রকম অভিযান না চালানোর জন্য নিরাপত্তা বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র। তবে নিরাপত্তা বাহিনী যদি আক্রান্ত হয় কিংবা নিরীহ মানুষদের রক্ষা করার প্রয়োজন যদি হয় তা হলে প্রত্যাঘাত করার অধিকার তাদের থাকবে বলে কেন্দ্রীয় সরকারের ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের কথা মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতিকে জানানো হয়েছে বলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে। কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে মেহবুবা বলেছেন, “টানা আলোচনা চালানোর উপযোগী শান্তিপূর্ণ ও সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ সৃষ্টিতে এই সিদ্ধান্ত সাহায্য করবে।” উল্লেখ্য, রমজান মাসের শুরু থেকে অমরনাথ যাত্রার শেষ পর্যন্ত (আগস্ট) অস্ত্রবিরতি ঘোষণা করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে অনুরোধ করেছিলেন মেহবুবা। অটলবিহারী বাজপেয়ীর আমলে যে এটা করা হয়েছিল তা স্মরণ করিয়ে দিয়েছিলেন তিনি।

রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা বলেছেন, সন্ত্রাসবাদীরা যদি কেন্দ্রের এই অস্ত্রবিরতি প্রস্তাবে সাড়া না দেয় ‘জনগণের শত্রু’ হিসাবে তারা নিজেদের রূপ প্রকাশ করে ফেলবে। তিনি বলেন, “বিজেপি বাদে সব রাজনৈতিক দলের দাবি মেনে কেন্দ্র এই অস্ত্রবিরতি ঘোষণা করেছে। এখন যদি জঙ্গিরা এই ঘোষণায় সাড়া না দেয় তবে তারা জনগণের শত্রু হিসাবে চিহ্নিত হয়ে যাবে।”

রমজান মাস কাল বৃহস্পতিবার শুরু হওয়ার কথা। তবে সব কিছুই নির্ভর করছে চাঁদ দেখার উপর।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন