কলকাতা: করোনা মহামারিতে চরম সংকটে পড়া মানুষকে স্বস্তি দিয়ে বিনামূল্যের রেশন প্রকল্প চালু করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। মাঝে একাধিক বার সম্প্রসারণের পর ওই প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা চলতি সেপ্টেম্বর মাসে। স্বভাবতই এই প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো নিয়ে চলছিল জোর জল্পনা। এরই মধ্যে, বুধবার প্রত্যাশা মতোই প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ কল্যাণ অন্ন যোজনা আরও তিন মাসের জন্য সম্প্রসারিত করেছে কেন্দ্র।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক আগেই জানিয়েছে, আরও তিন মাস এই বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার ফলে সরকারের উপর অতিরিক্ত ৪৪ হাজার কোটি টাকার আর্থিক বোঝা চাপবে। এ দিন কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ আন্না যোজনা (PM-GKAY)-র মেয়াদ ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হচ্ছে। এই প্রকল্পের অধীনে আগামী তিন মাসে প্রায় ৪৪ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হবে”।

কারণ নিয়ে চাপানউতোর

সরকার পক্ষের যুক্তি, ৩০ সেপ্টেম্বর বিনামূল্যে রেশন প্রকল্প শেষ হওয়ার কথা থাকলেও দেশজুড়ে আসন্ন উৎসবের কথা মাথায় রেখে এই প্রকল্পের মেয়াদ তিন মাস বাড়ানো হয়েছে। তবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ বলছে, এই প্রকল্প বিজেপি-কে সাহায্য করেছে। চলতি বছরের শেষের দিকে গুজরাত এবং হিমাচলপ্রদেশে নির্বাচন। এই বিষয়টি মাথায় রেখেই মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। কেন্দ্রের শাসক দলকে রাজনৈতিক সুবিধা দিতে পারে এই সিদ্ধান্ত।

ডিসেম্বর পর্যন্ত বিনামূল্যে খাদ্য শস্য!

এই প্রকল্প থেকে দেশের অধিকাংশ মানুষ সুবিধা পেয়ে থাকে। এর জন্য বার্ষিক ১৮০০ কোটিরও বেশি খরচ করে কেন্দ্র। এর আগের ঘোষণা অনুয়ায়ী, এই প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা সেপ্টেম্বরে। কিন্তু বিভিন্ন মহল থেকেই আবারও মেয়াদ বাড়ানোর আর্জি জানানো হয়েছিল। খাদ্যমন্ত্রক থেকে প্রধানমন্ত্রীকেও অনুরোধ করেছিল বিভিন্ন মহল। শোনা যাচ্ছিল, পরিস্থিতি বিবেচনা করে ডিসেম্বর পর্যন্ত বিনামূল্যে চাল বা গম সরবরাহ করা চালিয়ে যেতে পারে কেন্দ্র। তবে খাদ্যমন্ত্রক প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানোর পক্ষে থাকলেও অর্থমন্ত্রকের ততটা সায় ছিল না। বিশ্বব্যাপী আর্থিক চাপ এবং জোগান জটিলতার কারণে বিনামূল্যে দেওয়া খাদ্য শস্যের পরিমাণ হ্রাস করার পক্ষে অর্থমন্ত্রক।

মেয়াদ বেড়েছে ধাপে ধাপে

করোনার কারণে তৈরি হওয়া সংকট থেকে গরিব মানুষকে ত্রাণ দেওয়ার লক্ষ্যেই প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনা (PMGKAY) চালু করা হয়েছিল। এর আওতায় দেশের ৮১ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে রেশন দেওয়া হচ্ছে। জাতীয় খাদ্য নিরাপত্তা আইনের অধীনে যে রেশন পাওয়া যায়, এটা তার বাইরে। এই প্রকল্পটি ২০২০ সালের মার্চ মাসে ঘোষণা করা হয়েছিল, যা প্রাথমিক ভাবে এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত কার্যকর করা হয়েছিল। পরে প্রকল্পের মেয়াদ ২০২১ সালের ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়। তার পরেও এই প্রকল্পের মেয়াদ ধাপে ধাপে একাধিক বাড়ায় কেন্দ্র।

ফের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন

কেন্দ্রের ঘোষণা অনুযায়ী, চলতি মাসেই বন্ধ হচ্ছে এই প্রকল্প। এই পরিস্থিতিতে  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)-কে চিঠি লিখে মেয়াদ আরও অন্তত ছ’মাস বাড়ানোর আবেদন জানান তৃণমূল সাংসদ সৌগত (Saugata Roy)। সৌগতর আবেদন, আরও অন্তত ছ’মাস যেন ওই প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে চিঠিতে তিনি লেখেন, “করোনার সংকট কাটিয়ে এখনও পুরোপুরি বেরোতে পারেনি দেশের গরিব মানুষ। এ দিকে প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনায় বিনামূল্যে খাদ্যশস্য দেওয়া শেষ হয়ে যাচ্ছে সেপ্টেম্বরে”। একই সঙ্গে বিকল্প হিসেবে তাঁর পরামর্শ, বিনামূল্যে খাদ্যশস্য দেওয়ার সময় বৃদ্ধি যদি একান্তই সম্ভব না হয় তা হলে যেন জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা আইনের দরে খাদ্যশস্য সরবরাহ করা হয়। তবে যে কারণেই হোক, ফের এক বার এই প্রকল্পের মেয়াদ বাড়াল কেন্দ্র।

খবর অনলাইন-এ আরও পড়ুন:

অপেক্ষার অবসান! কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের ডিএ বাড়ল ৪ শতাংশ

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন