jubilation after the supreme court verdict
রায়ের খবরে খুশি। ছবি রাজীব বসু।

ওয়েবডেস্ক: সবে মাত্র একটা ধাপ পেরিয়েছে। এখনও অনেক যুদ্ধ রয়েছে সমকামীদের সামনে। সমকামিতা অপরাধ নয়, এই ঐতিহাসিক রায়ের পরে সমকামীদের এ বার লড়াই হবে সমলিঙ্গ বিবাহকে বৈধতা দেওয়া নিয়ে। পাশাপাশি সম্পত্তির অধিকার-সহ আরও একাধিক বিষয়ে নতুন করে লড়াই শুরু হবে সমকামীদের।

সমকামিতা অপরাধ নয়, সুপ্রিম কোর্টের এই রায় মেনে নিলেও, সম্ভবত সমলিঙ্গ বিবাহকে বৈধতা দেওয়ার জন্য কোনো আবেদন জমা পড়লে তার বিরোধিতা করবে কেন্দ্র। এই প্রসঙ্গে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কেন্দ্রের এক প্রতিনিধি বলেন, “সমকামিতা অপরাধ নয়, এটা আমরা মেনে নিলাম। কিন্তু সমলিঙ্গ বিবাহের ব্যাপারে কোনো আবেদন করা হলে কেন্দ্র তার বিরোধিতা করবে।”

একই মত আরএসএসেরও। সমকামিতা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পরেই আরএসএসের তরফে সংগঠনের অখিল ভারতীয় প্রচার প্রমুখ অরুণ কুমার বলেন, “সুপ্রিম কোর্টের মতোই আমরা এই সমকামিতাকে অপরাধ হিসাবে গণ্য করি না। কিন্তু আমরা প্রকৃতিগত অংসগতির দরুণ সমলিঙ্গের বিবাহকে সমর্থন করি না। ঐতিহ্যগত কারণেই ভারতীয় সংস্কৃতি এই ধরনের সম্পর্ককে মেনে নেয় না”।

আরও পড়ুন সমকামী রায়ের বিরোধিতায় এক সুর হিন্দু-মুসলিম-খ্রিস্টান কট্টরপন্থী সংগঠনগুলির

সমকামীদের হয়ে অন্যতম আবেদনকারী সুনীল মেহরা বলেন, “সমকামিতা তো এখন বৈধ, তা হলে এর মধ্যেই বিবাহের অধিকার, সম্পত্তি অধিকারের মতো ব্যাপারগুলোও বৈধ বলে ধরে নেওয়া হবে। আমরা আমাদের অধিকারের জন্য দাবি করছি। কেউ যদি এই দাবির বিরোধিতা করে তা হলে সেটা যথেষ্ট নিন্দনীয়।”

বিগত বছরগুলিতে ভারতীয় সমকামী মানুষের অনেকেই বিদেশে চলে গিয়ে বিয়ে করেছেন। সমকামী মামলার এক আবেদনকারীই বলেন, কী ভাবে বিদেশে গিয়ে তিনি বিয়ের পরিকল্পনা করেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেনের মতো দেশে সমকামিতা বৈধ। এ ছাড়াও সমকামী বিবাহ, সম্পত্তি পাওয়া নিয়ে আইনত আর কোনো বাধা নেই।

আরও পড়ুন সুপ্রিম কোর্টের রায়ে সমকামিতা আইনি স্বীকৃতি পাওয়ার পর সেরা এক ডজন ছবি

বিয়ের এবং অন্যান্য অধিকার নিয়ে কিছু দিনের মধ্যেই নতুন লড়াই শুরু হবে বলে জানিয়েছেন আরও এক আবেদনকারী গৌতম যাদব। আপাতত কয়েক দিন উৎসব করার সময় বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, “সমকামিতা অপরাধ নয়, এটাই ছিল আমাদের প্রথম লড়াই। বিয়ের ব্যাপারে নতুন লড়াই শুরু হবে আমাদের।”

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন