অন্ত:সত্ত্বা হওয়ার ২৪ সপ্তাহ পর্যন্ত গর্ভপাতের জন্য কেন্দ্রের নতুন নিয়ম

0

নয়াদিল্লি: অন্ত:সত্ত্বা হওয়ার পর বিশেষ ক্ষেত্রে গর্ভপাতের জন্য অনুমোদিত ২০ সপ্তাহের সময়সীমা বাড়িয়ে ২৪ সপ্তাহ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

কোন কোন ক্ষেত্রে কার্যকর?

মেডিক্যাল টার্মিনেশন অব প্রেগনেন্সি (সংশোধন) বিধি, ২০২১ অনুযায়ী বিশেষ ওই ক্ষেত্রগুলোকে নির্দিষ্ট করা হয়েছে। যেমন, যৌন নির্যাতন বা ধর্ষণ বা অতি নিকটাত্মীয়ের মধ্যে যৌন সঙ্গম, নাবালিকা, চলমান গর্ভাবস্থায় (স্বামী মারা যাওয়া এবং বিবাহবিচ্ছেদ) এবং শারীরিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে গর্ভপাতের সর্বোচ্চ সময়সীমা অন্ত:সত্ত্বা হয়ে পড়ার ২৪ সপ্তাহ পর্যন্ত করা হয়েছে।

নতুন নিয়মগুলিতে মানসিক ভাবে অসুস্থ মহিলাদেরও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ভ্রূণের বিকৃতি ঘটার সম্ভাবনা থাকলে জীবনের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণ হওয়ার যথেষ্ট ঝুঁকি থাকে। সে ক্ষেত্রে যদি শিশু জন্ম নেয় তবে তার গুরুতর ভাবে প্রতিবন্ধী হওয়ার সম্ভাবনাও থেকে যায়। শারীরিক বা মানসিক অস্বাভাবিকতায় ভুগতে পারে শিশু।

সে ক্ষেত্রে শিশু জন্মগ্রহণ করলে গুরুতর ভাবে প্রতিবন্ধী হওয়ার মতো শারীরিক বা মানসিক অস্বাভাবিকতায় ভুগতে পারে কি না, সে সবই খতিয়ে দেখবে ওই মেডিক্যাল বোর্ড। এই বোর্ডের কাজ হবে মহিলাকে এবং তাঁর রিপোর্ট পরীক্ষা করা। যদি তিনি গর্ভপাতের জন্য যোগাযোগ করেন, তা হলে সেই অনুরোধ গ্রহণের তিন দিনের মধ্যে আবেদন প্রত্যাখ্যানের বিষয়ে মতামত জানাতে হবে বোর্ডকে। নচেত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।

Shyamsundar

মার্চে পাস হয় সংসদে

মেডিক্যাল টার্মিনেশন অব প্রেগনেন্সি (সংশোধন) আইন, ২০২১ বিলটি গত মার্চ মাসে সংসদে পাশ হয়। ১৬ মার্চ রাজ্যসভায় পাশ হওয়া এই বিলে উল্লেখ করা হয়, “বিশেষ শ্রেণির মহিলাদের” গর্ভপাতের অনুমতি দেওয়ার জন্য সর্বোচ্চ সীমা ২৪ সপ্তাহ পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্ত:সত্ত্বা হওয়া, অনাচারের শিকার, নাবালিকা এবং বিশেষ ভাবে সক্ষম মহিলাদের এই অনুমতি দেওয়া যাবে। এই বিলটি প্রায় এক বছর আগে লোকসভায় পাস হয়েছিল।

এর আগে গর্ভপাতের ক্ষেত্রে দু’টি পৃথক পর্যায় বেঁধে দিয়ে বিশেষ নিয়ম কার্যকর ছিল। গর্ভধারণের ১২ সপ্তাহের মধ্যে প্রয়োজনে গর্ভপাত করাতে হলে এক জন চিকিৎসকের মতামতের দরকার হতো। অন্য দিকে, ১২-২০ সপ্তাহের মধ্যে তা করানোর জন্য দু’জন চিকিৎসকের মতামত লাগত। নতুন নিয়ম অনুযায়ী,, ভ্রূণের বিকৃতি ঘটলে ২৪ সপ্তাহের পরে গর্ভপাত করা যাবে কি না এবং যদি ভ্রূণের বিকৃতি হলে তা জীবনের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণ হওয়ার যথেষ্ট ঝুঁকি আছে কি না, তা নির্ধারণের জন্য একটি রাজ্য-স্তরের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হবে।

আরও পড়ুন: সস্তা হচ্ছে রান্নার তেল, দাম নিয়ন্ত্রণে বড়োসড়ো পদক্ষেপ কেন্দ্রের

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন