বনজমি কিনে রিসোর্ট তৈরি, অভিযোগ ছত্তীসগঢ়ের মন্ত্রীর স্ত্রীর বিরুদ্ধে

0
173

রায়পুর: তিনি ছত্তীসগঢ়ের মন্ত্রীর স্ত্রী। কিন্তু তা সত্ত্বেও সেই রাজ্যের হাতে থাকা বনজমি কিনে নিয়ে সেখানে রিসোর্ট তৈরি করার অভিযোগ উঠল তাঁর বিরুদ্ধে। ঘটনায় চাঞ্চল্য আরও বেড়েছে যখন এই রিসোর্ট তৈরির বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না বলে লিখিত ভাবে জানিয়ে দিয়েছে ওই মন্ত্রীর দফতর।

রিসোর্টটি তৈরি করছেন সরিতা অগরওয়াল। তাঁর স্বামী ব্রিজমোহন অগরওয়াল রাজ্যের কৃষি, জলসম্পদ উন্নয়ন দফতরের মন্ত্রী। সেই সঙ্গে ‘ধর্মীয় ট্রাস্ট এবং দান’ দফতরের মন্ত্রিত্বও সামলান তিনি। সরিতাদেবীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি রাজ্যের অধীনে থাকা ৪.১২ হেক্টর বনভূমি কিনেছেন একটি রিসোর্ট তৈরি করার জন্য।

সরকারি নথি অনুযায়ী জমিটির মালিক ছিলেন বিষ্ণুরাম শাহু নামক স্থানীয় এক কৃষক। জনস্বার্থে কাজে লাগানোর জন্য ১৯৯৪ সালে তিনি এই জমিটি তৎকালীন মধ্যপ্রদেশের জলসম্পদ উন্নয়ন দফতরকে দান করেন তিনি। পরে এই জমিটি বন দফতরের হাতে তুলে দেওয়া হয়। ২০০৩ সালে ছত্তীসগঢ় সরকার এই জমিতে ২২ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা খরচ করে অরণ্যায়ন করে।

রাজ্যের মহাসমুন্দ জেলার সিরপুরের এই বনজমিতে গড়ে উঠছে রিসোর্টটি, সরিতার পাশাপাশি যার ভাগীদার তাঁর ছেলে অভিষেকও। গত কয়েক বছর ধরে এখানে খননকার্যের মাধ্যমে বৌদ্ধ নিদর্শন বেরিয়ে এসেছে। ভবিষ্যতে জায়গাটি পর্যটনে শিল্পে অনেক সমৃদ্ধ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেই কারণেই রিসোর্ট তৈরি করার জন্য এই জায়গাটিকে বেছে নিয়েছেন সরিতা এবং অভিষেক।

২০১৫ সালে ঘটনাটি প্রথম প্রকাশ্যে আসে যখন মহাসমুন্দের জেলাশাসককে চিঠি দিয়ে কিসান মজদুর সংঘের সদস্য ললিত চন্দ্রনাহু জানান, জমিটি আদতে সরকারি। এর পরের বছর আরও একটি চিঠিতে তিনি সরিতাদেবীর বিরুদ্ধে জমিটি কিনে নেওয়ার অভিযোগ জানান। ওই জেলাশাসকের পাশাপাশি রায়পুরের কমিশনারকেও অভিযোগ জানান ললিতবাবু।

এই অভিযোগ পেয়ে জমিটির মালিকানার ব্যাপারে তথ্যের জন্য বন দফতর এবং জলসম্পদ উন্নয়ন দফতরকে নির্দেশ দেন রায়পুরের কমিশনার ব্রিজেশ মিশ্র। এর ঠিক চার মাস পরে বনজমিটি কিনে নেওয়ার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর অফিসে চিঠি দেন আরও এক ব্যক্তি।

এই ব্যাপারে সরিতাদেবী বা তাঁর স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাঁরা ফোন ধরেননি। অন্য দিকে কিছু জানেন না বলে ব্যাপারটা সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন অভিষেক। ঘটনাটির ব্যাপারে প্রথম শুনেছেন বলে জানান ব্রিজেশ মিশ্র। তাঁর কথায়, “ঘটনাটির ব্যাপারে এই প্রথম শুনলাম। এই ব্যাপারে সব কিছু খতিয়ে দেখব। আইন আইনের পথেই কাজ করবে।”

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here