Connect with us

খবর

মেরিনা বিচ থেকে জাল্লিকাট্টুপন্থীদের সরাতে শুরু করল পুলিশ, জ্বলল গাড়ি

চেন্নাই: জাল্লিকাট্টুপন্থীদের সরাতে উদ্যোগী হল চেন্নাই পুলিশ। সোমবার সকাল থেকেই বিশাল পরিমাণ পুলিশ জড়ো করা হয় মেরিনা বিচে। বিক্ষোভকারীদের মেরিনা বিচ ছাড়তে অনুরোধ করে আলোচনা চালায় পুলিশ। কিন্তু আলোচনা ব্যর্থ হয়েছে বলে খবর। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, পুলিশ বলপ্‌রয়োগ করেছে কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। বিচের কাছের একটি থানার দুটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে […]

Published

on

চেন্নাই: জাল্লিকাট্টুপন্থীদের সরাতে উদ্যোগী হল চেন্নাই পুলিশ। সোমবার সকাল থেকেই বিশাল পরিমাণ পুলিশ জড়ো করা হয় মেরিনা বিচে। বিক্ষোভকারীদের মেরিনা বিচ ছাড়তে অনুরোধ করে আলোচনা চালায় পুলিশ। কিন্তু আলোচনা ব্যর্থ হয়েছে বলে খবর। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, পুলিশ বলপ্‌রয়োগ করেছে কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। বিচের কাছের একটি থানার দুটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে উত্তেজিত জনতা।

 

জাল্লিকাট্টুর উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে দেওয়ার দাবিতে গত মঙ্গলবার থেকেই মারিনা বিচে জড়ো হয়ে আছেন বিক্ষোভকারীরা। তাঁদের দাবি ছিল জাল্লিকাট্টুর উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে হবে। ইতিমধ্যেই অর্ডিন্যান্স জারি করে ৬ মাসের জন্য নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় কেন্দ্র ও রাজ্য। কিন্তু তাতে খুশি নন বিক্ষোভকারীরা। তাঁদের দাবি, স্থায়ী সমাধান। তার জেরে রবিবার মাদুরাইতে ঢুকতে দেওয়া হয়নি মুখ্যমন্ত্রী পনিরসেলভামকে।

রবিবারই জাল্লিকাট্টু উদ্‌যাপনের জেরে তামিলনাডুতে মৃত্যু হয়েছে ২ জনের। আহত ১০০-রও বেশি।   

রাজ্য

শিকেয় উঠছে করোনা সতর্কতা, বাইরে বেরিয়ে এই ৫টি কাজ মোটেই করবেন না

লকডাউন উঠে আনলক চালু হলেও ভাইরাস কিন্তু পালায়নি!

Published

on

ওয়েবডেস্ক: দেশে দৈনিক করোনাভাইরাস (Coronavirus) আক্রান্তের সংখ্যা এখনও যথেষ্ট। যদিও সুস্থতার হারও ঊর্ধ্বমুখী। তবে সংক্রমণ ঠেকাতে কোভিড-১৯ (Covid-19) সুরক্ষাবিধি মেনে চলা উচিত। বিশেষত, এই পাঁচটি ‘ভুল কাজ’ যেন মোটেই করবেন না।

রাস্তাঘাট, দোকানবাজার, এমনকি হাসপাতাল চত্ত্বরেও এখন মাস্কবিহীন মানুষের আনাগোনা। পুলিশও যে আর আগের মতো সুরক্ষাবিধি বজায় রাখার উপর নজরদারি চালাচ্ছে না, সেটা বাইরে বেরোলেই স্পষ্ট। সরকারি ভাবে সংবাদ মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে সচেতনতা বাড়ানোর প্রয়াস জারি থাকলেও বড়ো অংশের মানুষের যে তাতে আগ্রহ নেই, সেটাও একাংশের মানুষের আচরণে সহজে বোঝা যাচ্ছে।

১. ভাইরাস কিন্তু পালায়নি!

[এমন ছবিই যত্রতত্র এবং সর্বত্র]

লকডাউন পার করে আনলক পর্বে লকডাউনের কড়াকড়ি শিথিল হলেও করোনাভাইরাস কিন্তু এখনও স্বমহিমায় মজুত। স্বাভাবিক ভাবেই আগের মতোই শারীরিক দূরত্ব (Social Distancing) বজায় রাখার বিষয়টি মোটেই ভুলে গেলে চলবে না। অফিস-কারখানা খুলে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই চালু হয়েছে বাস-অটো। ফলে রাস্তায় থাকার সময় শারীরিক দূরত্ব যতটা বেশি সম্ভব মেনে চলতে হবে।

২. ছোঁয়াছুঁয়ি যতটা এড়ানো যায়

[বাসে গাদাগাদি ভিড়]

কাজের জন্য বাইরে বেরোনোয় ততটা বিধিনিষেধ এখন আর নেই। কিন্তু তাই বলে যত্রতত্র স্পর্শ করার অভ্যেস এখনই ফিরিয়ে নিয়ে এলে মুশকিল। রাস্তা অথবা কর্মস্থলে মানুষের আনাগোনা বেড়েছে। বাসেও গাদাগাদি করে কর্মস্থলে পৌঁছোতে বাধ্য হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। ফলে বাইরে বেরিয়ে কোনো বস্তু-সামগ্রীতে হাত না দেওয়ার বিষয়টি এড়িয়ে চলাই ভালো। আবার দীর্ঘ দিন বাদে পরিচিতের সঙ্গে সাক্ষাৎ হওয়ার পর শুভেচ্ছা বিনিময়ও দূরত্ব বজায় রেখেই করতে হবে।

৩. সারাটা দিন কোভিড-খবর

কোভিড-১৯ পরিস্থিতির ধারাবাহিক খবর দেখার অথবা পড়ারই বা কী দরকার! দিনের একটি নির্দিষ্ট সময় করোনা আক্রান্তের যাবতীয় পরিসংখ্যানে চোখ বুলিয়ে নিলেই চলে। আগের মতোই কোভিড-১৯-এর ২৪x৭ আপডেটে ডুবে থাকার থেকে স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে নিজের কাজে মন দেওয়াই ভালো।

৪. মাস্ক ছাড়ার সময় এখনও আসেনি

[এই ছবিও এখনই অতীত]

আনলক শুরু হওয়ার পরই রাস্তাঘাটে বহু মানুষকে মাস্ক ছাড়াই ঘোরাঘুরি করতে দেখা যাচ্ছে। কিন্তু সংক্রমণ যে ভাবে বাড়ছে, তাতে মাস্কের প্রয়োজনীয়তা আরও বেশি। এখন তো রাস্তাঘাটে অধিকাংশ মানুষকেই মাস্ক ছাড়াই দেখা যাচ্ছে। মাস্ক তো নেই-ই, উল্টে বিধি শিকেয় উঠেছে প্রায় সর্বত্র। হ্যান্ড স্যানিটাইজেশনের ক্ষেত্রেও একই কথা বলা চলে।

৫. পকেটের হাল

[ব্যয় বাড়ছে, কমছে আয়]

করোনাভাইরাস এবং লকডাউনের (Lockdown) জোড়া ফলায় ক্ষতবিক্ষত অর্থনীতি। যার জোরালো প্রভাব পড়েছে সাধারণ মানুষের উপার্জনে। ফলে এই সময়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় অথবা জরুরি পণ্যগুলি ছাড়া বাকি কিছু কেনার ইচ্ছে দমন করাই ভালো। চাহিদার তালিকা লম্বা, কিন্তু নিজের পকেটের কথা ভুললে চলবে না। অযথা, খরচের বহর না বাড়িয়ে আগামী দিনের জন্য সঞ্চয়ের কথা মাথায় রাখতে হবে।

Continue Reading

রাজ্য

কলকাতায় কোভিড-গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী, বাকি রাজ্যে পরিস্থিতির উন্নতি

কলকাতায় নতুন করে আক্রান্ত প্রায় সাতশো।

Published

on

coronavirus
রাজ্যে সুস্থতার হার সাড়ে ৮৭ শতাংশ।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রাজ্যে সামগ্রিক ভাবে কোভিড (Covid 19) পরিস্থিতির বিশেষ কোনো পরিবর্তন হল না শুক্রবার। তবে কলকাতায় কোভিড-গ্রাফ কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে। তবে রাজ্যে সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়েছে, সামান্য কমেছে সংক্রমণের হারও। মৃত্যুর সংখ্যা ফের ৬০-এর নীচে নেমে এসেছে।

রাজ্যের কোভিড-তথ্য

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে কোভিডে (Covid 19) আক্রান্ত হয়েছেন ৩,১৯০ জন। এর ফলে রাজ্যে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ লক্ষ ৪১ হাজার ০৪৯। গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর ফলে রাজ্যে এখন মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪,৬৬৫। রাজ্যে মৃত্যুহার বর্তমানে রয়েছে ১.৯৩ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে সুস্থ হয়েছেন ২,৯৭৮ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ লক্ষ ১১ হাজার ২০ জন। রাজ্যে বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২৫,৩৭৪। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ১৫৩ জন। রাজ্যে সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়ে ৮৭.৫৪ শতাংশ হয়েছে।

সংক্রমণের হার আরও একটু কমেছে

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ৪৩,৮১৫টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। রাজ্যে মোট ৩০ লক্ষ ১১ হাজার ৭৫৪টি নমুনা পরীক্ষা হল। রাজ্যে বর্তমানে প্রতি দশ লক্ষ মানুষে ৩৩,৪৬৪ জনের করোনা পরীক্ষা হচ্ছে।

প্রতি দিন যে সংখ্যক মানুষের পরীক্ষা হচ্ছে, তার মধ্যে যত শতাংশের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসছে, সেটাকে বলা হচ্ছে ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার। শুক্রবার রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণের হার ছিল ৭.২৮ শতাংশ।

দৈনিক সংক্রমণের হারের পাশাপাশি সামগ্রিক সংক্রমণের হারের নিম্নগামী যাত্রাও বহাল রয়েছে। বর্তমানে রাজ্যে প্রতি একশোটি টেস্টে ৮ জন পজিটিভ হচ্ছেন।

সংক্রমণ বাড়লেও কলকাতায় মৃত্যুতে লাগাম

কলকাতায় করোনা-আক্রান্তের গ্রাফ কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে। তবে শহরে মৃত্যুতে কিছুটা লাগাম পরানো গিয়েছে। কলকাতায় গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬৯২ জন। এর বিপরীতে কলকাতায় সুস্থ হয়েছেন ৫১৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের।

শহরে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৩,১৪৮। সুস্থ হয়ে গিয়েছেন ৪৬,৬৮৯ জন। শহরে মোট মৃতের সংখ্যা ১,৬৩৯। বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৪,৮২০।

পড়শি চার জেলাতেও সংক্রমণে তুলনামূলক বৃদ্ধি

কলকাতার পাশাপাশি পড়শি চারটে জেলাতেও সংক্রমণের সংখ্যায় তুলনামূলক বৃদ্ধি এসেছে। এর মধ্যে সংক্রমণ শীর্ষে রইল উত্তর ২৪ পরগণা। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় নতুন করে ৬৮৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। উত্তর ২৪ পরগণায় সুস্থ হয়েছেন ৪৪৪ জন। অন্য দিকে দক্ষিণ ২৪ পরগণায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৫৭ জন, ছাড়া পেয়েছেন ১৮৫ জন।

হাওড়ায় ১৯৫ জন নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন আর সুস্থ হয়েছেন ১১৯ জন। অন্য দিকে হুগলিতে ১৭৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন আর ছাড়া পেয়েছেন ১৪২ জন।

বাকি ১৮টা জেলাতেই পরিস্থিতির উন্নতি

কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চল ছাড়া রাজ্যের সব জেলাতেই করোনা-পরিস্থিতির আরও অনেকটাই উন্নতি হয়েছে। সব থেকে আশাপ্রদ ব্যাপার হল গত ২৪ ঘণ্টায় এই ১৮টা জেলার কোথাওই নতুন আক্রান্তের সংখ্যা একশো অতিক্রম করেনি।

এই জেলাগুলির মধ্যে সব থেকে বেশি আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে পশ্চিম মেদিনীপুরে। তাও মাত্র ৯৯ জন নতুন করে এই জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন। নতুন আক্রান্তের নিরিখে এর পরেই রয়েছে যথাক্রমে নদিয়া (৯৪), পূর্ব মেদিনীপুর (৯০) আর পশ্চিম বর্ধমান (৮৮)।

গত ২৪ ঘণ্টায় সক্রিয় কোভিড রোগীর সংখ্যা কমেছে আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, মালদা, নদিয়া, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, পূর্ব মেদিনীপুর এবং পশ্চিম বর্ধমান।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

উত্তরবঙ্গে আরও দু’দিন অতি বৃষ্টির আশঙ্কা, দক্ষিণে বিক্ষিপ্ত

Continue Reading

দেশ

কেন্দ্রের কৃষি বিল কৃষক বিরোধী, এ বার সরব হরিয়ানার দুই বিজেপি নেতা

কেন্দ্রের কৃষি বিল কৃষক বিরোধী, বিস্ফোরক দুই বিজেপি নেতা!

Published

on

farm bills protest
কৃষি বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ।

খবর অনলাইন ডেস্ক: সংসদে সদ্য পাশ হওয়া কৃষি বিলগুলিকে ঘিরে ‘ন্যূনতম সহায়ক মূল্য সম্পর্কে উদ্বেগ ভিত্তিহীন নয়’ বলে দাবি করলেন হরিয়ানার দুই বিজেপি নেতা। একই সঙ্গে তাঁরা বিলগুলিকে ‘কৃষক বিরোধী এবং জনবিরোধী’ হিসেবেও অভিহিত করলেন।

হরিয়ানার দুই বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন বিধায়ক পরমিন্দর সিং ধুল এবং রামপাল মাজরা বলেন, অসংখ্য কৃষক সংগঠন কেন্দ্রের কৃষিক্ষেত্রে সংস্কার সংক্রান্ত বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছে এবং তাদের কথা অবশ্যই শোনা উচিত।

ধুল বলেন, “এই বিলগুলি কৃষক বিরোধী এবং জনবিরোধী। এই সংস্কারগুলি কৃষকদের মুক্তিদাতা হিসাবে বিবেচিত স্যার ছোটু রামের স্বপ্নকে শেষ করে দেবে, যিনি কৃষকদের সমৃদ্ধ ও সুখী দেখতে চেয়েছিলেন”।

কী কারণে বিরোধিতা?

শুক্রবার কৃষি বিলের বিরুদ্ধে ভারত বন্‌ধের ডাক দিয়েছিল কৃষক সংগঠনগুলি। পঞ্জাব ও হরিয়ানার বিভিন্ন জায়গা ছাড়াও কর্নাটক, মহারাষ্ট্র, বিহার এবং পশ্চিমবঙ্গেও প্রতিবাদ বিক্ষোভে নামে সংগঠনগুলি। অন্য দিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এ দিন বলেন, “কৃষকদের প্ররোচিত করা হচ্ছে। বিজেপি কর্মীদের উচিত, তাঁদের কাছে হাজির হয়ে বিলের ভালো দিকগুলির কথা তুলে ধরা”। এর আগের দিন হরিয়ানার দুই বিজেপি নেতার মন্তব্যই এখন চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছে।

পরমিন্দর সিং ধুল বলেন, “করোনাভাইরাস মহামারির জেরে সংকটে পড়ে অর্থনীতি। সেখানে কৃষিক্ষেত্র নতুন করে আশার আলো দেখাচ্ছিল। এমন পরিস্থিতিতে কৃষকরা যখন এই বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছেন, তখন অবশ্যই তাঁদের কথাও শোনা উচিত”।

ধুল জানান, গত বৃহস্পতিবার পঞ্জাবের বিজেপি প্রধান ওপি ধানকরের সঙ্গে তাঁর এ বিষয়ে বৈঠক হয়। তিনি রাজ্যের দলীয় প্রধানকে বলেন, “আমাদের আরও একটা বিল নিয়ে আসা উচিত। যেখানে স্পষ্ট ভাবে উল্লেখিত থাকবে, সরকার অথবা বেসরকারি সংস্থা কৃষকদের কাছ থেকে ন্যূনতম সহায়ক মূল্যের কম দামে ফসল অথবা পণ্য সংগ্রহ করবে না”।

কী বলছেন আর এক বিজেপি নেতা?

অন্য দিকে রামপাল মাজরা বলেন, “ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ছাঁটাই করা হতে পারে, এই আশঙ্কা অমূলক নয়। কৃষকদের কথা আমাদের শুনতে হবে। কারণ, যে কোনো সংস্কারই করা হোক না কেন, তাঁদের উদ্বেগের সমাধান আগে করা দরকার। কোনো বেসরকারি সংস্থার কৃষিপণ্য ক্রয়ের ক্ষেত্রে ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বজায় রাখার উল্লেখ নেই বিলগুলিতে। অন্য দিকে কৃষকের আইনি প্রতিকারও ক্ষেত্রটিকেও সীমাবদ্ধ রাখা হয়েছে”।

তাঁর গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন, “কোনো কৃষক প্রতিকার চেয়ে অঞ্চলের মহকুমা ম্যাজিস্ট্রেটের দ্বারস্থ হতে পারেন। কিন্তু কোনো বড়ো বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে ছোটো কৃষকের বিরোধ দেখা দিলে, তিনি কী ভাবে সংস্থার বিরুদ্ধে আইনি লড়াই করবেন”?

তিনি জোরের সঙ্গে বলেন, “আমি এখন বিজেপিতে রয়েছি। তার মানে এই নয় যে, আমি কৃষকের স্বার্থে মুখ খুলব না। আমাদের দেশ এখন কৃষিক্ষেত্রে যে ধরনের সংস্কার করছে, তা অতীতে বিশ্বের অন্য়ান্য দেশে ব্যর্থ হয়েছে। তাদের দেখে আমাদের শিক্ষা নেওয়া উচিত”।

আরও দেখতে পারেন: কৃষি বিল: পঞ্জাবে একাধিক জায়গায় সিপিএমের জাতীয় সড়ক অবরোধের কয়েকটি মুহূর্ত

Continue Reading
Advertisement
Chennai vs Delhi
ক্রিকেট51 mins ago

অবিশ্বাস্য! প্রথম তিনটে ম্যাচের মধ্যে দুটোতেই হারল চেন্নাই সুপারকিংস

কেনাকাটা2 hours ago

নতুন কালেকশনের ১০টি জুতো, ১৯৯ টাকা থেকে শুরু

শরীরস্বাস্থ্য2 hours ago

হাঁপানি হচ্ছে? জেনে নিন কী কী খাবেন আর খাবনে না

রাজ্য3 hours ago

শিকেয় উঠছে করোনা সতর্কতা, বাইরে বেরিয়ে এই ৫টি কাজ মোটেই করবেন না

coronavirus
রাজ্য4 hours ago

কলকাতায় কোভিড-গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী, বাকি রাজ্যে পরিস্থিতির উন্নতি

farm bills protest
দেশ4 hours ago

কেন্দ্রের কৃষি বিল কৃষক বিরোধী, এ বার সরব হরিয়ানার দুই বিজেপি নেতা

rain in west bengal
রাজ্য5 hours ago

উত্তরবঙ্গে আরও দু’দিন অতি বৃষ্টির আশঙ্কা, দক্ষিণে বিক্ষিপ্ত

শিক্ষা ও কেরিয়ার5 hours ago

বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে অক্টোবরের মধ্যেই ভরতি প্রক্রিয়া সেরে ফেলার নির্দেশ ইউজিসি-র

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 hours ago

নতুন কালেকশনের ১০টি জুতো, ১৯৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো এসে গিয়েছে। কেনাকাটি করে ফেলার এটিই সঠিক সময়। সে জামা হোক বা জুতো। তাই দেরি...

কেনাকাটা1 day ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজোর কালেকশনের নতুন ধরনের কিছু শাড়ি যদি নাগালের মধ্যে পাওয়া যায় তা হলে মন্দ হয় না। তাও...

কেনাকাটা3 days ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা6 days ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা1 week ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা2 weeks ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা2 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা3 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা4 weeks ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা1 month ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

নজরে