আরটিআই নিয়ে ঐতিহাসিক রায় সুপ্রিম কোর্টের

0
Ranjan Gogoi
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: প্রধান বিচারপতির কার্যালয় এ বার থেকে তথ্যের অধিকার আইন বা আরটিআইয়ের অধীনে পড়বে। বুধবার প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ এই ঐতিহাসিক রায় দেয়।

বেঞ্চের ৩:২ সম্মতিক্রমে সুপ্রিম কোর্টের রায়ে বলা হয়েছে, দিল্লি হাইকোর্টের রায় বহাল রেখেই প্রধান বিচারপতির পদটি আরটিআইয়ের আওতায় থাকবে।

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ-এর নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ সুপ্রিম কোর্টের মহাসচিব ও শীর্ষ আদালতের কেন্দ্রীয় জন তথ্য আধিকারিকের দায়ের করা তিনটি আবেদনও খারিজ করেছে। বেঞ্চের অন্য সদস্যদের মধ্যে ছিলেন বিচারপতি এন ভি রামান্না, ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়, দীপক গুপ্তা এবং সঞ্জীব খান্না। এঁদের মধ্যে বিচারপতি রামান্না এবং চন্দ্রচূড় ভিন্ন মত পোষণ করেন। কিন্তু প্রধান বিচারপতি-সহ অন্য তিন বিচারপতির সম্মতি জানান।

সুপ্রিম কোর্ট অবশ্য রায়ে জানিয়েছে, বিশ্বস্ততা এবং গোপনীয়তার অধিকার বজায় রাখতে হবে। একই সঙ্গে যোগ করা হয়েছে, নজরদারি চালানোর সরঞ্জাম হিসাবে আরটিআই-কে ব্যবহার করা যাবে না। এর মাধ্যমে কলেজিয়াম সুপারিশকৃত বিচারকদের শুধু মাত্র নাম প্রকাশ করা যেতে পারে, কারণগুলি নয়।

[ আরও পড়ুন: গুরুত্বের বিচারে অযোধ্যার পরেই, বৃহস্পতিবার এমনই দুটি মামলায় রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট ]

প্রসঙ্গত, গত পাঁচ বিচারকের বেঞ্চ গত ৪ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্টের মহাসচিব এবং কেন্দ্রীয় জন তথ্য আধিকারিক দিল্লি হাইকোর্ট ২০১০ সালের রায় এবং কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশনের (সিআইসি) আদেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.