পাকিস্তান আর চিনের মধ্যে প্রস্তাবিত অর্থনৈতিক করিডোরের ব্যাপারে চিনের রাষ্ট্রপতি জি জিনপিং-এর কাছে আপত্তি জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। চিনের হাংঝৌতে অনুষ্ঠিত জি-২০ সামিটের প্রাক্কালে রবিবার চিনের রাষ্ট্রপতির সাথে দেখা করেন মোদী। ৩০ মিনিটের বৈঠকে এই করিডোর ছাড়াও উঠে আসে সন্ত্রাসবাদ প্রসঙ্গ।

প্রধানমন্ত্রী এ দিন বলেন, একে অপরের স্বার্থের প্রতি দু’দেশেরই ‘সংবেদনশীল’ হওয়া উচিত। এর পাশাপাশি পাকিস্তান মদতপুষ্ট সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধেও সুর তোলেন প্রধানমন্ত্রী, এবং জিংপিংকে বলেন যে পাকিস্তানের সাথে চিনের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক যেন সন্ত্রাসবাদ নির্মূলে বাধা সৃষ্টি না করে।

উল্লেখ্য, চিন আর পাকিস্তানের মধ্যে এই অর্থনৈতিক করিডোরের প্যাকেজেই তৈরি হবে পাকিস্তানের গদর বন্দর থেকে চিনের ঝিংজিয়াং পর্যন্ত একটি গ্যাস পাইপলাইন, যেটি পাক অধিকৃত কাশ্মীরের গিলগিট আর বালটিস্তানের মধ্যে দিয়ে যাবে। এখানেই আপত্তি ভারতের।

ভারত আর চিনের সম্পর্কে নতুন টানাপড়েন সৃষ্টি হয় যখন কয়েকমাস আগেই উত্তরাখণ্ডে চিনা সেনা অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটে। সেই ঘটনার পর দুই দেশের রাষ্ট্রপ্রধানের এই প্রথম সাক্ষাৎ। বৈঠক শেষে জিংপিং বলেন, “চিন চায় ভারতের সাথে কষ্টার্জিত বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখতে এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা আরও বাড়াতে”।        

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here