Connect with us

দেশ

শীতকালীন অধিবেশনে প্রস্তাবিত যে বিল পাশ হলে অগ্নিগর্ভ হতে পারে ভারতের একটা বড়ো অংশ

নয়াদিল্লি: গত অধিবেশনে কাশ্মীর নিয়ে ঐতিহাসিক বিল নিয়ে আসে কেন্দ্র। সেই বিলটি পাশ হয়ে যাওয়ার পর বিরোধীরা হইচই করলেও সাধারণ মানুষের মধ্যে তার বিশেষ প্রভাব পড়েনি।

কিন্তু আসন্ন শীতকালীন অধিবেশনে কেন্দ্রের এমন একটি বিল পাশ করানোর লক্ষ্য রয়েছে, যেটা করাতে পারলে বিরোধীদের হইচই তো হবেই, ভারতের এক বড়ো অংশ অগ্নিগর্ভ হয়ে উথতে পারে।

সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে শীতকালীন অধিবেশন। এ বার সংসদে উঠতে পারে সিটিজেন্সশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট বিল বা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল।

সংবাদ সংস্থার খবর অনুযায়ী এ বার শীত অধিবেশনে সরকারের আলোচনার তালিকায় রয়েছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল। এ বছর জানুয়ারিতে, গত মোদী সরকারের শেষ অধিবেশনেও বিলটি সংসদে তুলেছিল এনডিএ।

আরও পড়ুন দেড় দিনেও সমুদ্রে ফিরতে না পারায় বেঘোরে মৃত্যু ডলফিনের, প্রশ্নে বন দফতরের ভূমিকা

কিন্তু বিরোধীদের প্রবল প্রতিবাদে তা পাশ হতে পারেনি। বিরোধীদের অভিযোগ ছিল, ধর্মীয় পরিচয়কে হাতিয়ার করে বিদেশি নাগরিকদের নাগরিকত্ব দিয়ে দেওয়া হচ্ছে। প্রস্তাবিত এই বিলের মাধ্যমে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্থানের হিন্দু, জৈন, খ্রিস্টান, শিখ, বৌদ্ধ ও পার্সিরা ভারতে চলে এলে ছ’ বছর থাকলেই তাদের নাগরিকত্ব দেবে কেন্দ্র।

কিন্তু বিরোধীদের থেকেও বেশি কেন্দ্রকে চিন্তায় রাখবে সাধারণ মানুষের প্রতিবাদ। এই বিল নিয়ে সব থেকে বেশি সরব হতে পারে উত্তরপূর্বের প্রায় সব ক’টি রাজ্য। জানুয়ারির অধিবেশনে যখন কেন্দ্র বিলটি পাশ করাতে চেয়েছিল, তখন অসম, মেঘালয়, মণিপুর, নাগাল্যান্ড আর মিজোরামে ব্যাপক প্রতিবাদ হয়।

মিজোরামে তো ভারত থেকে বেরিয়ে যাওয়ারও আন্দোলন শুরু হয়। ওখানকার বিক্ষোভকারীদের সাফ কথা, এই বিল কোনো ভাবেই তারা মেনে নেবে না।

এ দিকে পুরো উত্তরপূর্বের বিজেপি বা তাদের জোটসঙ্গীরা সরকারে রয়েছে। জোটসঙ্গী দলগুলিও ঘরোয়া ভাবে এই বিলের প্রতিবাদ করছে। ফলে বিলটি পাস হয়ে গেলে উত্তরপূর্বের পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে, সেটা এখনই অনুমান করা যাচ্ছে না।

দেশ

লাদাখ সীমান্ত থেকে পিছু হঠছে চিনা সেনা, সরছে অস্থায়ী নির্মাণ: সূত্র

গত আট সপ্তাহ ধরে ভারত-চিন সীমান্তের হট স্প্রিং এবং গোগরা এলাকায় একাধিক বার দুই দেশের সেনার মধ্যে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

নয়াদিল্লি: পূর্ব লাদাখের হট স্প্রিং (Hot Springs) এবং গোগরা (Gogra) এলাকা থেকে মঙ্গলবারেও পিছু হঠছে চিনা সেনা। একই সঙ্গে বেশ কিছু অস্থায়ী নির্মাণও সরিয়ে ফেলা হচ্ছে বলে সরকারি সূত্রে খবর।

গত আট সপ্তাহ ধরে ভারত-চিন সীমান্তের হট স্প্রিং এবং গোগরা এলাকায় একাধিক বার দুই দেশের সেনার মধ্যে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। গত কয়েক দিনের কূটনৈতিক এবং সামরিক পর্যায়ের একাধিক বৈঠকের পর ‘বাড়তি’ সেনা সরিয়ে নেওয়ার প্রস্তাবে সম্মত হয় দুই দেশ। সেই সিদ্ধান্তের রেশ ধরেই সোমবারের মতোই এ দিন চিনা সেনার পশ্চাদপসারণ ঘটছে বলে জানা গিয়েছে। তবে পুরো ঘটনার দিকে কড়া নজর রাখছে ভারতীয় সেনা।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, সমঝোতার মাধ্যমে ‘ডিসএনগেজমেন্ট’ পর্বে এই দু’টি পয়েন্ট থেকেই সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া দু’দিনের মধ্যেই সম্পূর্ণ হওয়ার কথা। অর্থাৎ, গত কয়েক দিন ধরে চিন যে ওই এলাকাগুলিতে সেনা সংখ্যা ক্রমাগত বাড়িয়ে চলেছে, যা প্রমাণও মিলছে।

সেনা প্রত্যাহারের নেপথ্যে

গত সোমবার সকাল থেকে সেনা প্রত্যাহার প্রক্রিয়া শুরু করে চিন। তার আগে রবিবার ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্য়া অজিত ডোভাল এবং চিনা বিদেশমন্ত্রী ওয়াই ই-র মধ্যে প্রায় দু’ঘণ্টা ফোনে কথা হয়।

ওই বৈঠকের পর বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানান, দুই দেশ এলএসি থেকে সম্পূর্ণ সেনা সরানোর ব্যাপারে একমত হয়েছে। দুই দেশ যাতে ধাপে ধাপে সীমান্ত থেকে সেনা সরানো হয়, তা নিশ্চিত করবে। কোনো দেশ একতরফা ভাবে পদক্ষেপ নিলে স্থিতাবস্থা বিঘ্নিত হবে।

ভারতীয় সেনার অবস্থান

সূত্রটি জানাচ্ছে, এলাকায় ডিসএনগেজমেন্ট প্রক্রিয়া চলাকালীন ভারতীয় সেনা নজরদারির বহর এখনই কমাচ্ছে না। উচ্চ-সতর্কতার সঙ্গেই পুরো প্রক্রিয়ার উপর তীক্ষ্ন নজর রাখা হচ্ছে।

এমনটাও জানা গিয়েছে, ডিসএনগেজমেন্ট প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হওয়ার পর আগামী সপ্তাহে ফের বৈঠকে বসতে পারে দু’দেশের সেনা আধিকারিকরা।

এ দিন সরকারি সূত্র জানায়, “হট স্প্রিংস এবং গোগরা থেকে চিনা সেনাদের যথেষ্ট পরিমাণে প্রত্যাহার করা হয়েছে। চিনা সেনারা এই অঞ্চলে সাময়িক পরিকাঠামোও ভেঙে দিয়েছে”।

Continue Reading

দেশ

নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত সিলেবাস কমাল সিবিএসই

তিরিশ শতাংশ সিলেবাস কমানো হয়েছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে সিবিএসই।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। অনলাইনে ক্লাস চললেও, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাসকারী পড়ুয়ারা সেই সুযোগ নিতে পারছে না অনেক ক্ষেত্রেই। ফলে একটা অলিখিত বৈষম্য তৈরি হচ্ছে।

আগামী বছর পরীক্ষায় বসার সময়ে কারও যাতে সমস্যা না হয়, সে কারণে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত সিলেবাস কমানোর সিদ্ধান্ত নিল সিবিএসই।

তিরিশ শতাংশ সিলেবাস কমানো হয়েছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে সিবিএসই। কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল এ দিন বলেন, “এমন একটা পরিস্থিতি এখন, যেখানে গোটা বিশ্ব ভুগছে করোনাভাইরাসে। এই পরিস্থিতিতে ছাত্রছাত্রীদের উপর থেকেও বোঝা কমাতে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত সিলেবাস কমিয়ে দেওয়া হল।”

তবে মূল সিলেবাসের বিষয়গুলি কোনো ভাবেই বাতিল করা হবে না বলে জানিয়েছেন পোখরিয়াল।

উল্লেখ্য, সিবিএসইর দশম আর দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা ১ থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত নেওয়া কথা বলা হলেও পরবর্তীকালে তা বাতিল হয়ে যায়।

দ্বাদশ শ্রেণির ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, শেষ তিনটে পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হবে। তবে যাঁরা পরীক্ষা দিতে চাইবে, পরিস্থিতি অনুকূল হলে, সেই সুযোগ দেওয়া হবে বলেও জানায় সিবিএসই।

Continue Reading

দেশ

বাতিল বিমান টিকিটের ‘সম্পূর্ণ টাকা’ কেন ফেরানো হবে না, কেন্দ্রকে নোটিশ সুপ্রিম কোর্টের

মঙ্গলবার কেন্দ্র এবং ডিজিসিএ-কে নোটিশ পাঠাল সুপ্রিম কোর্ট

নয়াদিল্লি: কোভিড-১৯ মহামারির (Covid-19 pandemic) জেরে বাতিল হওয়া উড়ানের টিকিটের সম্পূর্ণ টাকা যাত্রীদের কেন ফেরানো হবে, এমন প্রশ্নেই মঙ্গলবার কেন্দ্র এবং ডিজিসিএ-কে নোটিশ পাঠাল সুপ্রিম কোর্ট।

এ দিন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি অশোক ভূষণের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ অ-সামরিক বিমান পরিবহণমন্ত্রক (Ministry of Civil Aviation) এবং ডিরেক্টরেট জেনারেল অব সিভিল অ্যাভিয়েশন (DGCA)-এর কাছে জানতে চায়, যাত্রীরা কেন টিকিটের সম্পূর্ণ টাকা ফেরত না পাওয়ার অভিযোগ তুলছেন?

এ বিষয়ে শীর্ষ আদালতে আবেদন দাখিল করে এয়ার প্যাসেঞ্জার অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়া। তাদের দাবি, বিমান সংস্থাগুলি বিধিবহির্ভূত ভাবে নিজেদের ইচ্ছে মতো টাকা ফেরানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বলা হয়েছে, নির্দিষ্ট মেয়াদের মধ্যে পুনরায় উড়ানে যাত্রা করলে নতুন করে টাকা দিতে হবে না। এর জন্য এক বছরের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে প্রায় প্রত্যেকটি সংস্থার তরফে।

শীর্ষ আদালতের আরও দুই বিচারপতি এসকে কউল এবং এমআর শাহের সম্মিলত বেঞ্চ এ দিন এ বিষয়ে নোটিশ জারির নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে জানানো হয়, ঠিক একই ধরনের বকেয়া আবেদনের শুনানিও চলবে এই আবেদনটির সঙ্গে।

কী কারণে মামলা সুপ্রিম কোর্টে?

করোনাভাইরাস (Coronavirus) সংক্রমণ মোকাবিলায় লকডাউনের জেরে বাতিল হয়েছিল সমস্ত রকমের বিমানের টিকিট। এমন পরিস্থিতিতে বিমান সংস্থাগুলি জানিয়ে দিয়েছে, টিকিটের দাম ফেরত দেওয়া হবে না। ভবিষ্যতে ভ্রমণ করতে চাইলে যাত্রীরা রি-শিডিউলের সুবিধা পাবেন। কিন্তু তা মানতে নারাজ যাত্রীরা। বিষয়টিতে অসামরিক বিমান পরিবহণমন্ত্রকের হস্তক্ষেপের পরেও যাত্রীমহলে অভিযোগের অন্ত নেই।

লকডাউনের জেরে বিমান পরিবহণ বন্ধ হওয়ার পর টিকিট বাতিল হওয়াটাই স্বাভাবিক। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় যাত্রীরা অভিযোগ করছেন, ঘরোয়া বিমান সংস্থাগুলি টিকিটের দাম ফেরত না দেওয়ার ‘অনৈতিক’ সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিচ্ছে। নগদ টাকা ফেরত না দিয়ে তারা ক্রেডিট ইস্যুর মাধ্যমে রি-শিডিউলের কথা বলছে।

যেখানে বিমান সংস্থাগুলি জানিয়েছে, ঘরোয়া টিকিটের জন্য লকডাউনের সময় নগদ টাকা ফেরত দেওয়া হবে না। তবে যাত্রীরা টিকিটেক রি-শিডিউল করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে তাঁরা বাড়তি সুবিধা পাবেন। তাঁদের কাছ থেকে কোনো বাড়তি টাকা নেওয়া হবে না।

মন্ত্রকের হস্তক্ষেপ

গত ১৬ এপ্রিল বিকেল একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে অসামরিক বিমান পরিবহণমন্ত্রক জানিয়ে দেয়, বিমানের টিকিট বুকিংয়ের সমস্ত টাকা ফেরত দিতে হবে সংস্থাগুলিকে। ২৫ মার্চ থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বুকিং থাকলে, সেই টাকা বাতিল করার আবেদন জানানোর তিন সপ্তাহের মধ্যে ফেরত দিতে হবে। এর জন্য কোনো রকমের চার্জ কাটা যাবে না।

তবে গত ২৫ মার্চ থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত প্রথমার্ধের লকডাউনের সময়কালে কাটা টিকিটের দাম ফেরতের কথা বলা হলেও দ্বিতীয়ার্ধ নিয়ে কোনো নির্দেশ দেওয়া হয়নি। অর্থাৎ, ১৫ এপ্রিল থেকে ৩ মে-র মধ্যে ভ্রমণের জন্য যাঁরা টিকিট কেটেছিলেন, এ বিষয়ে তাঁদের আক্ষেপ রয়েই গিয়েছে। সঙ্গে রয়েছে বিমান সংস্থাগুলির টাকা ফেরানোর নিজস্ব পদ্ধতি নিয়েও বিতর্ক।

আবেদনে বলা হয়েছে, মন্ত্রক এবং ডিজিসিএ-র নির্দেশের পরেও বিমান সংস্থাগুলি বাতিল টিকিটের টাকা ফেরাতে ব্যর্থ হয়েছে।

Continue Reading
Advertisement
রাজ্য10 mins ago

কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে লকডাউনের মেয়াদ বাড়লে কী কী বন্ধ থাকবে?

রাজ্য29 mins ago

রাজ্যে নতুন করে আক্রান্ত ৮৫০, সুস্থ হলেন ৫৫৫ জন

দেশ39 mins ago

লাদাখ সীমান্ত থেকে পিছু হঠছে চিনা সেনা, সরছে অস্থায়ী নির্মাণ: সূত্র

রাজ্য2 hours ago

বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা থেকে রাজ্যের কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে কড়া লকডাউন

কেনাকাটা3 hours ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

দেশ3 hours ago

নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত সিলেবাস কমাল সিবিএসই

দেশ3 hours ago

বাতিল বিমান টিকিটের ‘সম্পূর্ণ টাকা’ কেন ফেরানো হবে না, কেন্দ্রকে নোটিশ সুপ্রিম কোর্টের

দেশ3 hours ago

দ্রুত গতিতে বাড়ছে সুস্থতা, ভারতে এক সপ্তাহেই করোনামুক্ত লক্ষাধিক

কেনাকাটা

কেনাকাটা3 hours ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা1 day ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা2 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

DIY DIY
কেনাকাটা7 days ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক :  এক ঘেয়ে সময় কাটছে না? ঘরে বসে করতে পারেন ডিআইওয়াই অর্থাৎ ডু ইট ইওরসেলফ। বাড়িতে পড়ে...

নজরে