মেঘ ভাঙা বৃষ্টি, কাশ্মীরের গ্রামে মৃত ৪, নিখোঁজ অন্তত ৩০

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: মেঘ ভাঙা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত জম্মু-কাশ্মীরের প্রত্যন্ত একটি গ্রাম। ৪ জনের মৃত্যুর পাশাপাশি ওই এলাকার অন্তত ৩০ জন বাসিন্দার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না বলা খবর। বুধবারে সকালের এই ঘটনার পর উদ্ধারে নেমেছে সেনাবাহিনীর জওয়ান এবং পুলিশ।

জম্মু অঞ্চলের অধিকাংশ জায়গাতে গত কয়েকদিন ধরেই চলছে জোর বৃষ্টি চলছে। এরই মধ্যে কিশ্তওয়ার জেলার ডচ্চন তেহশিলের হনজার গ্রামে বুধবার সকালে নেমেছিল মেঘভাঙা বৃষ্টি। এর জেরেই প্রবল দুর্যোগ নেমে এসেছে ওই গ্রামে। এমন কি গ্রামটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বাকি অংশের থেকে পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে বলেও জানা গিয়েছে।

Shyamsundar

অনেক প্রতিকূলতা পেরিয়ে অবশ্য সেই গ্রামে পৌঁছে উদ্ধারকাজ শুরু করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এ নিয়ে কিশ্তওয়ারের জেলা শাসক অশোক কুমার শর্মা বলেছেন, ‘‘সেনাবাহিনীর একটি দল এবং পুলিশ ওই এলাকায় পৌঁছেছে। উদ্ধার কাজ শুরু হয়েছে।

ইতিমধ্যেই কাশ্মীরে আরও বৃষ্টিপাত হবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। এর জেরে সেখানকার নদী-নালা এবং জলাশয়ের জলস্তর বাড়তে পারে। সে জন্য স্থানীয় প্রশাসনের তরফে জলাশয়ের কাছে বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

দিল্লিতে তিন ঘণ্টায় ১০০ মিলিমিটার বৃষ্টি

এ দিকে, গোটা উত্তর ভারত জুড়েই কোথাও ভারী, কোথাও অতি ভারী বর্ষণ চলছে। মঙ্গলবার দিল্লিতে মাত্র ৩ ঘণ্টায় ১০০ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়। এত কম সময়ের মধ্যে রাজধানীতে এই পরিমাণ বৃষ্টি সচরাচর হয় না।

২০০৩-এর পর এই জুলাইতেই দিল্লিতে সব থেকে বেশি বৃষ্টি হয়েছে। এখনও পর্যন্ত গোটা মাসে ৩৮১ মিলিমিটার বৃষ্টি দেখে ফেলেছে রাজধানী। এর অধিকাংশ বৃষ্টিই আবার হয়েছে ১৪ জুলাইয়ের পর, কারণ রাজধানীতে এ বার বর্ষা প্রবেশই করেছে ১৩-১৪ জুলাইয়ে।

আরও পড়তে পারেন নিম্নচাপের গতিপথের কারণে চরম অতি ভারী বর্ষণের আশঙ্কা দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায়, ভ্রূকুটি বন্যারও

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন