অরবিন্দ কেজরিওয়ালের ‘ফ্রি’ ভালোবাসা

0
Arvind kejriwal
শপথ নিচ্ছেন কেজরিওয়াল

নয়াদিল্লি: “অনেকে বলেন, কেজরিওয়াল দিল্লিতে সব কিছু ফ্রি করে দিয়েছে। তবে এই ফ্রি-এর দুনিয়া সব থেকে বড়ো জিনিসটি পাওয়া তা হল মায়ের ভালোবাসা। কেজরিওয়াল দিল্লির মানুষকে তেমনটাই ভালোবাসে। এই ভালোবাসা একেবারে ফ্রি”। মুখ্যমন্ত্রীপদে হ্যাট্রিক করে রবিবার রামলীলা ময়দানের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে এমনটাই মন্তব্য করলেন আম আদমি পার্টি প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

রাজ্যের ক্ষমতায় এসে বিনামূল্যে একাধিক সরকারি পরিষেবা চালু করেছেন কেজরিওয়াল। যা নিয়ে বিরোধী দলের খোঁচা অব্যহত। প্রত্যুত্তর দিতে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের মঞ্চকেই বেছে নিলেন তিনি। বলেন, “কেজরিওয়াল দিল্লির মানুষকে ভালোবাসে। এটা আদ্যন্ত বিনামূল্যের। আমি কি আবার পড়ুয়াদের কাছ থেকে ফিজ নেওয়া শুরু করতে পারি? অথবা রোগীদের কাছ থেকে চিকিৎসা এবং ওষুধের বিলের জন্য টাকা নিতে পারি? যদি এটা করি, তা হলে আমার থেকে লজ্জিত আর কেউ হবে না”।

এ দিনের শপথগ্রহণে ভিন রাজ্যের কোনো মুখ্যমন্ত্রী অথবা ভিন রাজনীতিক দলের নেতৃত্বকে আমন্ত্রণ জানাননি কেজরি। তবে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। কিন্তু নিজের সংসদীয় কেন্দ্রের উন্নয়নমূলক কাজে ব্যস্ত থাকায় মোদী দিল্লির শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারেননি বলে জানা যায়।

এ প্রসঙ্গে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমি তাঁকে (প্রধানমন্ত্রীকে) আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম। তিনি হয়তো অন্য কোনো কাজে ব্যস্ত রয়েছেন। তবে এই মঞ্চ থেকেই তাঁর কাছে আমি অনুরোধ করতে চাই। তাঁর-সহ প্রত্যেকের শুভকামনা আমি চাইছি”।

বিধানসভা ভোটের প্রচারে কেজরির বিরুদ্ধে আক্রমণে লাগাম ছাড়িয়ে ছিলেন বিজেপি নেতৃত্ব। এ দিন তিনি বলেন, “প্রচারের সময়, রাজনীতি হয় এবং এটা ঘটেওছিল। আপনারা আমার বিরুদ্ধে যা বলেছেন, তার জন্য আমি সবাইকে ক্ষমা করে দিয়েছি, আমি আপনাদের সমস্ত নেতিবাচক বিষয়গুলি ভুলে যাওয়ার অনুরোধ করছি। দিল্লির উন্নয়নের জন্য আমাদের কেন্দ্র-রাজ্য সহমতের ভিত্তিতে কাজ করতে হবে”।

প্রসঙ্গত, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের কার্যালয়ের একটি আনুষ্ঠানিক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মনীশ সিসোদিয়া, সত্যেন্দ্র জৈন, গোপাল রাই, কৈলাশ গহলৌত, ইমরান হোসেন এবং রাজেন্দ্র পাল গৌতমের মতো পুরনো মন্ত্রিসভার সদস্যদের এ বারও সরকারের মন্ত্রীপদে নিয়োগে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.