congress flag

পটনা: উত্তরপ্রদেশের হাথরস গণধর্ষণকাণ্ডের সরাসরি প্রভাব পড়তে পারে প্রতিবেশী রাজ্য বিহারের বিধানসভা ভোটে (Bihar Assembl। যে কারণে বিরোধী দল কংগ্রেসের একটি বড়ো অংশ দাবি করেছে, যে সমস্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে মহিলাদের উপর গুরুতর অপরাধের মামলা বিচারাধীন রয়েছে, তাঁদের টিকিট দেওয়া যাবে না।

হাথরসকাণ্ডের প্রতিবাদে উত্তাল হয়েছে সারা দেশ। কংগ্রেসের উচ্চনেতৃত্বকে প্রতিবাদে সরব হতে দেখা গিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে বিহারের শীর্ষনেতৃত্ব দাবি করেছেন, মহিলাদের উপর অপরাধে অভিযুক্ত কাউকেই টিকিট দেওয়া যাবে না। এমনটাও জানা গিয়েছে, যে কারণগুলির জন্য দলের প্রার্থীতালিকা ঘোষণা স্থগিত রাখা হয়েছে, সেগুলির অন্যতম কারণ এটাই। ইন্ডিয়া টুডে টিভির খবর অনুযায়ী, কমপক্ষে তিনজন সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম নিয়ে বিতর্ক বেঁধেছে।

দলীয় সূত্রে খবর, কংগ্রেসের প্রার্থীতালিকা প্রায় সম্পূর্ণ হয়ে প্রকাশের প্রতীক্ষায় ছিল। কিন্তু গত মঙ্গলবার দলের মহিলা শাখার প্রধান সুস্মিতা দেব মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধে অভিযুক্তদের টিকিট বণ্টন নিয়ে তীব্র সমালোচনা করেন। যার জেরে প্রার্থীতালিকা স্থগিত হয়ে যায়।

সুস্মিতা এবং দলের প্রবীণ নেতা তারিক আনোয়ার বলেছেন, “ধর্ষণের মতো অপরাধে অভিযুক্ত নেতাদের টিকিট দেওয়া উচিত নয়”।

সূত্র উদ্ধৃত করে টাইমস নাও-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিতর্কের কেন্দ্রে রয়েছে ব্রজেশ পান্ডের মতো বেশ কয়েক জন সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম। এ বিষয়ে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিজা ব্যাসের মতো অনেকেই সরব হয়েছেন। এ ছাড়া রাজ্যের হরনৌত, সুলতানগঞ্জ, হিসুয়া এবং টেকরির মতো বিধানসভা কেন্দ্রেও একই ধরনের জটিলতা রয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।

বিহারের বিরোধী মহাজোট ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছে, রাজ্যের ২৪৩টি আসনেই প্রার্থী দেবে তারা। স্থির হয়েছে, ১৪৪টিতে প্রার্থী দেবে আরজেডি। অন্যদিকে, কংগ্রেস প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে ৭০টি আসনে, বামপন্থী দলগুলি পাচ্ছে ২৯টি আসন। বাম দলগুলির মধ্যে সিপিআই-এমএল প্রার্থী দেবে ১৯টি আসনে, সিপিআই এবং সিপিএম যৌথ ভাবে প্রার্থী দেবে ১০টি আসনে। ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চাকে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য আসন দেওয়া হবে আরজেডির ভাগ থেকে।

আরও পড়তে পারেন: কোভিড মহামারিতে বিহার ভোটে খরচের ঊর্ধ্বসীমা অপরিবর্তিত রাখছে কেন্দ্র

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন