congress
রায়পুরে নবনির্মিত রাজীব গান্ধী ভবনের দ্বারোদ্ঘাটনে রাহুল গান্ধী। ছবি: টাইমস অব ইন্ডিয়া থেকে

ওয়েবডেস্ক: “স্বয়ম্ভরসভায় যে ভাবে সীতা রামকে বেছে নিয়েছিলেন, ঠিক একই ভাবে ছত্তীসগঢ়ের বিধানসভা নির্বাচনের পর মুখ্যমন্ত্রী বেছে নেওয়া হবে”, জানালেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা টি এস সিংদেও।

তিনি বলেন, “গত ১৫ বছর ধরে ছত্তীসগঢ়ের শাসন ক্ষমতায় নেই জাতীয় কংগ্রেস। রামচন্দ্র যেমন ১৪ বছরের বনবাস কাটিয়ে পুনরায় অযোধ্যার রাজা হয়েছিলেন, একই ভাবে ১৫ বছর পর ফের ক্ষমতায় ফিরবে কংগ্রেস”।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে সিংদেও বলেন, রাজ্য থেকে বিজেপিকে উৎখাত করতে কংগ্রেস সমস্ত সমমানসিকতার রাজনৈতিক দলের সঙ্গে জোট বাঁধবে। ওই জোটের সামনে বিজেপি টিঁকতে পারবে না।

আগামী বছরের গোড়াতেই ছত্তীসগঢ়ের বিধানসভা নির্বাচন। কিন্তু কংগ্রেস কোনো যোগ্য নেতাকেই আগাম মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে তুলে ধরেনি। তেমন প্রশ্নের জবাবেই সিংদেও ভারতের মহাকাব্য রামায়ণ থেকে উদাহরণ তুলে ধরেন। তিনি বলেন, “রামচন্দ্রও সরাসরি বিবাহ করেননি। স্বয়ম্ভরসভায় সীতাই তাঁকে চয়ন করেছিলেন। ছত্তীসগঢ়ের রাজনৈতিক আবহ বোঝাতে গিয়ে তিনি বলেন, ২০০৩ সালে রমণ সিংকেও মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে ভোটের আগে প্রচারে নিয়ে আসা হয়নি”।

সিংদেওর যুক্তি, “উত্তরপ্রদেশেও তো যোগী আদিত্যনাথকে মুখ্যপদপ্রার্থী হিসাবে তুলে ধরা হয়নি। সেখানে বিজেপি স্বয়ম্ভর করেছিল। এখানেও ঠিক হয়ে যাবে। অন্য দিকে হিমাচলপ্রদেশে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে যাঁকে বিজেপি প্রচারে নিয়ে এসেছিল, ভোটের ফলাফলে দেখা যায় তিনি পরাজিত হয়েছেন”।

তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার একাধিক যোগ্য নেতা রয়েছেন রাজ্য কংগ্রেসে। ফলে সময় মতো সঠিক নেতার হাতেই দায়িত্ব যাবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন